ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ১৯ ফাল্গুন ১৪২৭ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি ২০২১, ২০:০২

প্রিন্ট

নিরাপদ আবাসন কেন্দ্রে নারীর আত্মহত্যা

নিরাপদ আবাসন কেন্দ্রে নারীর আত্মহত্যা
ছবি- প্রতিনিধি

গাজীপুর প্রতিনিধি

গাজীপুর মহানগরের বাসন থানাধীন ভোগড়া এলাকায় অবস্থিত মহিলা, শিশু ও কিশোরী হেফাজতীদের নিরাপদ আবাসন কেন্দ্রে নাজমা আক্তার (২০) নামে এক নারী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

মঙ্গলবার দুপুর ১টার পর নাজমার লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি ময়মনসিংহের নান্দাইল থানার মুসুল্লী উত্তর কোনাপাড়া এলাকার মো. হারেছ মিয়ার মেয়ে।

বাসন থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ মিজানুর রহমান আবাসন কেন্দ্রের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে জানান, নাজমা আবাসন কেন্দ্রের দোতলার ৩০৩ নম্বর কক্ষের নিবাসী ছিলেন। মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে কেন্দ্রে হেফাজতে থাকা সকল নিবাসীকে প্রতিদিনের মতো নিচে নামানো হয়। কিন্তু মাথাব্যথার কথা বলে নাজমা অন্য নিবাসীদের সঙ্গে এদিন আর নিচে নামেননি।

দুপুর ১টা ১০ মিনিটের দিকে সবাইকে আবার ওপরে পাঠানো হয়। পরে অন্য নিবাসীরা গিয়ে ৩০৩ নম্বর রুমে টয়লেটের দরজার সাথে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় নাজমাকে ঝুলতে দেখে।

ঘটনাটি কর্তব্যরতদের জানালে লাশ উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এটি হত্যা না আত্মহত্যা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

মহিলা, শিশু ও কিশোরী হেফাজতীদের নিরাপদ আবাসন কেন্দ্রের তত্বাবধায়ক মরিয়ম খানম বলেন, গত ২২ ডিসেম্বর গাজীপুর মহানগরের কোনাবাড়ী থানাধীন সমাজসেবা অধিদপ্তরের শিশু উন্নয়ন কেন্দ্র (বালিকা) থেকে ঢাকার শাহ আলী থানার একটি মামলার ভিকটিম হিসেবে নাজমাকে এ কেন্দ্রে পাঠানো হয়। তার হেফাজতী সিরিয়াল নং-১২২৯।

তিনি জানান, মঙ্গলবার সকালে রোদ পোহানো ও কেন্দ্রের ভেতরে হাটাহাটি করানোর জন্য নিবাসীদের নিচে নামানো হয়। কিন্তু নাজমা এদিন নিচে নামেননি। পরে দুপুর সোয়া ১টার দিকে সকলকে ওপরে পাঠানো হলে তারা আবাসন কেন্দ্রের দোতলার ৩০৩ নম্বর কক্ষের টয়লেটে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় নাজমার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায়।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত