ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ১৯ ফাল্গুন ১৪২৭ আপডেট : ১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৯:৫৮

প্রিন্ট

ঠাকুরগাঁও পৌর নির্বাচন

ব্যক্তি ইমেজ হারিয়ে গেছে প্রতীকের মাঝে

ব্যক্তি ইমেজ হারিয়ে গেছে প্রতীকের মাঝে
ছবি- প্রতিনিধি

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

প্রতীক বরাদ্দের পর থেকেই সরগরম হয়ে উঠেছে ঠাকুরগাঁও পৌরসভা নির্বাচন। তবে বরাবরের মতো ভোটারদের কাছে গ্রহণযোগ্যতার মাপকাঠি হিসেবে ব্যক্তি ইমেজ আর থাকছে না। ঘটছে উল্টো ঘটনা। ব্যক্তিকে ছাড়িয়ে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে দলীয় প্রতীক।

এ কারণে পৌরসভার নির্বাচন রূপ নিয়েছে সম্পূর্ণ ভিন্ন মাত্রায়। মূলত প্রার্থীদের ব্যক্তিগত দোষ-গুণ, ভোটারদের পছন্দ-অপছন্দ সবকিছুই চাপা পড়েছে প্রতীকের আড়ালে। বিশেষ করে নৌকা আর ধানের শীষের নেতাকর্মী আর সমর্থকদের আবেগে লড়াই শুরু হয়েছে প্রতীকের।

দুই প্রতীকের পোস্টার ঝুলছে ঠাকুরগাঁও পৌর এলাকার অলিগলিতে। এবারের পৌর নির্বাচনে ৪র্থ ধাপে ঠাকুরগাঁওয়ে দুটি পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। দুটি হলো, ঠাকুরগাঁও সদর ও রাণীশংকৈল। তবে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চলছে বেশি ঠাকুরগাঁও পৌরসভায়।

ঠাকুরগাঁওয়ে এবার পৌরসভায় মেয়র প্রার্থী তিনজন। আওয়ামী লীগ মনোনীত আনজুমানা আরা, বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী শরিফুল ইসলাম শরিফ ও ইসলামী আন্দোলন ঐক্যজোট থেকে আনোয়ার হোসেন লড়ছেন। এ তিন মেয়র প্রার্থীসহ তোড়জোর প্রচারণা চালাচ্ছেন সংরক্ষিত আসন ও সাধারণ কাউন্সিলরাও।

ভোটাররা মন্তব্য করেন, আগের অনুষ্ঠিত সব স্থানীয় নির্বাচনে ব্যক্তি ইমেজের প্রভাব ছিল। কিন্তু বর্তমান নির্বাচনে সে প্রভাব হারিয়ে গেছে দলীয় প্রতীকের মাঝে।

আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আনজুমানা আরা বন্যা বলেন, নৌকা প্রতীক বাংলার মানুষের আস্থার প্রতীক। যখনই নৌকা জয়ী হয়, তখনই বাংলাদেশের উন্নতি হয়।

এ বিষয়ে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শরিফুল ইসলাম শরিফ বলেন, ভোট সুষ্ঠু হলে ধানের শীষ প্রতীক (বিএনপি) বিপুল ভোটে জয়ী হবেই।

প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বলেন, বর্তমান সরকার ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করেছে। বিএনপির প্রার্থী হেরে যাবার ভয়ে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কিনা তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করছেন।

আনজুমানা আরা বন্যা দাবি করেন, যেহেতু তিনি বর্তমান সরকার দলীয় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী, তাই তিনি জয়লাভ করলে তার পক্ষে পৌর এলাকার বেশি উন্নয়ন করা সম্ভব হবে।

ইসলামী আন্দোলন ঐক্যজোটের প্রার্থী আনোয়ার হোসেন জানান, দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ার কারণে সমাজে ভালো ব্যক্তিত্বরা নির্বাচনে প্রার্থী হলেও ব্যক্তিগত ইমেজ কাজে আসছে না। সমাজের মানুষ পৌর উন্নয়নের জন্য দলমত নির্বিশেষে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলে তিনি জয়ী হবেন বলে আশা প্রকাশ করেন।

এদিকে, কোনো প্রার্থী যাতে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন না করতে পারেন, সেদিকে নজর রাখছেন জেলা নির্বাচন কমিশন।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত