ঢাকা, শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ২৪ বৈশাখ ১৪২৮ আপডেট : ৩ মিনিট আগে

প্রকাশ : ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০৯:১৬

প্রিন্ট

পশুর সাথে এ কেমন নিষ্ঠুরতা!

পশুর সাথে এ কেমন নিষ্ঠুরতা!
ছবি: প্রতিনিধি

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

গোয়ালে বাঁধা ৮ মাস বয়সী গরুর বাছুরকে রাতে খাবার দেন জগদীশ রবিদাস (৩৭)। পরের দিন ভোরে ঘুম থেকে উঠে দেখেন গোয়ালে তার বকনা বাছুর নেই। অনেক খুঁজাখুঁজির পর মৃত অবস্থায় পাওয়া যায় ধান ক্ষেতে। গৃহপালিত পশুর সাথে এ কেমন নিষ্ঠুরতা!

এ ঘটনা ঘটেছে নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলায় পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের পশ্চিম পাশে দুর্গাপুর লেংগুররা নামক গ্রামে।

গত মাস দেড় মাস আগে বাছুরটির মাকেও মৃত অবস্থায় একই গোয়াল ঘরে পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে বাছুরের মালিক মঙ্গলবার রাতে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

বকনা বাছুরের মালিক শ্রী বচন রবিদাসের ছেলে রবিদাস জানান, প্রতিদিনের মতো গত সোমবার সন্ধ্যায় গোয়ালে বকনা বাছুরটি বেঁধে রাখি। রাত অনুমান ১১টার দিকে খাবার দিয়ে বসত ঘরে ঘুমিয়ে পরি। পরের দিন মঙ্গলবার ভোর ৬টার দিকে ঘুম থেকে ওঠে গোয়ালে এসে দেখি আমার বকনা বাছুরটি নেই। পরে স্ত্রী-সন্তান ও প্রতিবেশীদের নিয়ে আশপাশ এলাকার বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে বাছুরটির সন্ধান পায়নি।

ওইদিন বেলা আনুমানিক বেলা ১১টার দিকে জীবন ও লোকমান মোবাইলে জানায় আমাদের গ্রামের মাইনুদ্দিন মড়লে বাড়ির দক্ষিণ পাশে ধান ক্ষেতে একটি মৃত বাছুর পরে রয়েছে। সেখানে গিয়ে দেখি বকনা বাছুরটি আমার এবং কাদা মাখানো অবস্থায় বাছুরটি গলায় রশি প্যাঁচানো ও জিহবা বের করে আছে।

তিনি আরো বলেন, মাস কি দেড় মাস পূর্বে বাছুরটি মাকেও মৃত অবস্থায় পাওয়া যায় গোয়াল ঘরে। আজ কে বা কারা গোয়াল থেকে আমার বকনা বাছুরটি ধান ক্ষেতে নিয়ে মেরে ফেলেছে। এ ধরনের একের পর এক ঘটনায় রাতে আধারে তুলে নিয়ে আমার ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যকে এভাবে মেরে ফেলতেও পারে। এ অবস্থায় পরিবারসহ আতঙ্ক ও নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে আছেন তিনি।

দুর্গাপুর থানার ওসি মো. শাহনুর-এ আলম এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। রাতে অভিযোগ পেয়েছি এবং পরবর্তী আইনানুগ পদক্ষেপের কথা জানান তিনি।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত