ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ৩১ বৈশাখ ১৪২৮ আপডেট : ১৫ মিনিট আগে

প্রকাশ : ১৪ এপ্রিল ২০২১, ১৪:৩৪

প্রিন্ট

চট্টগ্রামে মৃত্যু-সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী

চট্টগ্রামে মৃত্যু-সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী
ছবি- প্রতীকী

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। মারা যাওয়া ২ জনই নগরের বাসিন্দা। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ৬৮২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ৪১৭ জন। নতুন শনাক্তদের মধ্যে ৩০৬ জন নগরের ও ১১১ জন উপজেলার বাসিন্দা।

বুধবার (১৪ এপ্রিল) চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি এসব তথ্য জানান।

তিনি জানান, চট্টগ্রামে এ পর্যন্ত শনাক্ত হওয়া ৪৫ হাজার ৭০৮ জনের মধ্যে ৩৬ হাজার ৬৫১ জন নগরের ও ৯ হাজার ৫৭ জন উপজেলা পর্যায়ের বাসিন্দা। এখন পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন মোট ৪৩৭ জন। এর মধ্যে ৩২১ জন নগরের ও ১১৬ জন উপজেলার বাসিন্দা।

চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্যমতে, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ২৪৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১০১ জন, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) ল্যাবে ১ হাজার ৩১ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৬৬ জন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৩৫৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৮ জন এবং চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি এন্ড এনিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ২৪৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৬২ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। একই সময়ে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ৮৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১০ জনের শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া গেছে।

এছাড়া নগরীর ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ২১২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৬৮ জন, শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ৪৩৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৬৫ জন, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ৫৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২৬ জন এবং জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ২১ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১১ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে।

এদিকে এপ্রিলে চট্টগ্রামে করোনা সংক্রমণ ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। প্রতিদিন বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে প্রতিদিনই হাসপাতালে ছুটছেন রোগী ও স্বজনরা।

এ বছরের জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে সংক্রমণ কম থাকলেও মূলত মার্চ থেকে করোনা সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে। এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে মোট আক্রান্ত ছিল ১ হাজার ৮৫৯ জন। মার্চে মোট শনাক্ত রোগী সংখ্যা ৪ হাজার ৭৯৮ জন। আর এপ্রিলের প্রথম ১৪ দিনে শনাক্ত রোগী শনাক্ত ছয় হাজারের কাছাকাছি।

এছাড়া চট্টগ্রামে গত ১৪ দিনে করোনায় ৪৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। হঠাৎ মৃত্যু বেড়ে যাওয়ার কারণ কী? এমন প্রশ্নে চিকিৎসকরা বলছেন, করোনার সংক্রমণের ধরণ যেমন অনেকটাই বদলেছে, তেমনি করোনা পজিটিভ ছাড়াও যারা দীর্ঘমেয়াদী জটিল রোগে ভুগছেন, তাদের ক্ষেত্রেই মৃত্যুর হার বেশি হচ্ছে। তাই সংক্রমণ রোধে অবশ্যই সকলকে আরও বেশি সচেতন হওয়ার পরামর্শ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের কোভিড ফোকালপার্সন ও সিনিয়র কনসালটেন্ট (মেডিসিন) ডা. আবদুর রব মাসুম বলেন, সংক্রমণ শুরু হওয়ার প্রথম মাস কয়েক আগেও ৫০ জন রোগীর মধ্যে ৫ জনকে বেশি দেখভাল করতে হতো। অর্থাৎ ৫০ জনের মধ্যে পাঁচ জনের অবস্থা একটু খারাপ ছিল। কিন্তু বর্তমানে ৫০ জনের মধ্যে ১৫ জনই খারাপ অবস্থায় ভুগছেন। একইসঙ্গে যাদের আইসিইউ প্রয়োজন হচ্ছে, তাদের ক্ষেত্রেও মৃত্যুর হার বেশি দেখা যাচ্ছে। এর মধ্যে গেল কয়েকদিনের চিত্র বলছে- যারাই মারা গেছেন তাদের ৯৫ শতাংশই আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

তিনি বলেন, করোনায় আক্রান্ত হয়ে যারা মারা যাচ্ছেন তাদের সকলেই পজিটিভ কোভিড ছাড়াও দীর্ঘমেয়াদী অন্যান্য জটিল রোগে আক্রান্ত। অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, কিডনি, লিভার, শ্বাসকষ্ট ও মস্তিস্কে রক্তক্ষরণজনিতরাই মারা যাচ্ছেন। যাদের বয়সই ৫০ এর উপরে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত