ঢাকা, রোববার, ১৬ মে ২০২১, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ আপডেট : ৩ মিনিট আগে

প্রকাশ : ১৯ এপ্রিল ২০২১, ১৯:৩৩

প্রিন্ট

হাতিরঝিলও চান মেয়র আতিক

হাতিরঝিলও চান মেয়র আতিক
সংগৃহীত ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক

ওয়াসার খালগুলোর মতো হাতিরঝিলের দায়িত্বও সিটি করপোরেশনের কাছে বুঝিয়ে দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। তবে যদি হাতিঝিল রক্ষনাবেক্ষণ করতেই হয় তাহলে পরিপূর্ণভাবে করার আহ্বানও জানান তিনি।

সোমবার দুপুরে মগবাজার মধুবাগ প্রধান সড়ক, নয়াটোলা শহীদ আব্দুল ওহাব রোড ও তৎসংলগ্ন লেন-বাইলেন, শাহ বাড়ি মাজার রোড লেন-বাইলেন এবং গাবতলা জাহাবক্স লেন-বাইলেন এলাকার জলাবদ্ধতার সমস্যা দূরীকরণের লক্ষ্যে চলমান উন্নয়ন কাজ পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এই আহ্বান জানান।

মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, রাজউককে হাতিরঝিল মেইনটেইনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আমি মনে করি হাতিরঝিলও উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আওতায় আসতে হবে। যেমন করে ওয়াসার খাল দেওয়া হয়েছে। সেরকম পানি উন্নয়ন বোর্ডের যত ধরণের স্থাপনা ডিএনসিসি এলাকায় আছে সেটিও আমাদের দিতে হবে। তাহলে আমরা সমন্বিতভাবে কাজ করতে পারব।

তিনি বলেন, হাতিরঝিলের কিছু অংশ আমি করছি, কিছু অংশ রাজউক করবে এতে সমস্যা হয়ে যাচ্ছে। ডিএনসিসি এলাকায় যত খাল, হাতিরঝিল, লেক অন্যান্য যা জলাশয় আছে যতদ্রুত সম্ভব আমাদের যদি দেওয়া হয় আমরা সমন্বিতভাবে কাজ করব।

ওয়াসা থেকে খালগুলো বুঝে নেওয়ার পর খালগুলোর সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে মেয়র বলেন, খালগুলো যখন ওয়াসার ব্যবস্থাপনায় ছিল তখন সেগুলো সঠিকভাবে পরিস্কার এবং রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়নি। ইতোমধ্যে ডিএনসিসি বিভিন্ন জায়গায় খাল উদ্ধার ও পরিস্কার কার্যক্রম শুরু করেছে যা চলমান রয়েছে।

এসম হাউজিং কোম্পানীগুলোকে তাদের কাজের দ্বারা যাতে নগরবাসীকে জলাবদ্ধতাসহ কোন ধরণের দুর্ভোগ পোহাতে না হয় সে বিষয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন মেয়র।

রামপুরা পাম্পহাউজ পরিদর্শনকালে যে সকল পাম্প নষ্ট হয়ে পড়ে আছে সেগুলো দ্রুততম সময়ের মধ্যে মেরামতের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশও দেন তিনি। সেই সঙ্গে ডিএনসিসি মেয়র নগরীর প্রতিটি নাগরিককে পরিবেশ সম্পর্কে সবসময় সচেতন থাকার আহবান জানান মেয়র।

পরিদর্শনকালে মেয়রের সাথে আরও উপস্থিত ছিলেন ডিএনসিসির প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুহাম্মদ আমিরুল ইসলাম, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমডোর এম সাইদুর রহমান, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. শরীফ উদ্দীন প্রমুখ।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমআর/আরএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত