ঢাকা, রোববার, ১৬ মে ২০২১, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ আপডেট : ৫৮ মিনিট আগে

প্রকাশ : ১৯ এপ্রিল ২০২১, ২২:৩৩

প্রিন্ট

চট্টগ্রামে সাড়া ফেলেছে ‘মানবিক বাজার’

চট্টগ্রামে সাড়া ফেলেছে ‘মানবিক বাজার’
ছবি- নিজস্ব

সরদার অহিদুজ্জামান

গত বছরের মার্চে বাংলাদেশে হানা দিয়েছিল করোনা। এর আগেও অনেক মহামারির মুখোমুখি হয়েছে পৃথিবী কিন্তু এমন দৃশ্য দেখিনি কেউ! ‍কবি পলিয়ার ওয়াহিদ তার করোনাকালের কবিতায় লিখেছেন, 'কী নিদারুণ এসব দিন, নিজের মুখও ছুঁতে পারছে না হাত’। এরচেয়ে অসহায় কখনো হয়েছে মানুষ? কিন্তু আশার কথা হলো, রাত যত গভীর হবে প্রভাত তত কাছে। এসব কথা মুখে বলা যত সহজ কাজে করা তত কঠিন। কারণ মহামারি মোকাবিলা করা চাট্টিখানি কথা নয়। আর সেই কঠিন দায়িত্ব নিজের মাথায় নিয়ে অসহায়, গরিব, খেটে খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন এমনই এক মানবিক ও দরদি মানুষ চট্টগ্রামের এরশাদ সিদ্দিকী।

চট্টগ্রামের শিকারপুর-বুড়িশ্চরে ‘বিশ্বাস রাখুন পাশে থাকুন’ স্লোগানে শুরু হয় ‘মানবতার দেয়ালে মানবিক বাজার’। এই মানবিক কর্মযজ্ঞ থেকে ভোগ্যপণ্য বিশেষ করে চাল-ডাল থেকে শুরু করে কাঁচাবাজার- যেমন : আলু, টমেটো, কপি, লাউ, ডিম, মুরগি, মিষ্টি কুমড়াসহ বিভিন্ন ধরনের শাক-সবজি বিনামূল্যে নিতে পারছে যে কেউ। প্রথমে দুজন মিলে শুরু করলেও আস্তে আস্তে কাজের পরিধি ও বাস্তবায়ন দেখে সঙ্গে পেয়েছেন আরও কিছু মানবিক ও সিংহ হূদয়ের মানুষকে। এগিয়ে এসেছে কিছু যুবকও। ফলে দিনকে দিন সাড়া ফেলেছে উদ্যোক্তা এরশাদ সিদ্দিকীর মানবিক বাজার।

আগে অনেকে মানবিকতার দেয়াল বলতে ‘পুরনো কাপড়’-এর কথা বুঝত। কিন্তু তাদের নিত্যপণ্যের আইডিয়া অভিনব ও সাহসী বলে মন্তব্য করেছেন অনেকে। এলাকার বৃদ্ধরা বলছেন, করোনার ভয়াবহ দিনে এ রকম মানবিক চিত্র দেখে আমরা আনন্দিত। এমন দুর্যোগময় সময়ে খেটে খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে মানবতার এক অনন্য নজির তৈরি করেছে তারা।

উদ্যোক্তা মো. এরশাদ সিদ্দিকী ছাড়াও তার সঙ্গে রয়েছেন মো. নাছির ফারুকী, রাহুল রাশেদ, আবুল কালামসহ আরও অনেকে খাদ্যপণ্য নিয়ে খেটে খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। শবেবরাতের দিনে সাধারণ মানুষের জন্য বিনামূল্যে মুরগি, চাল, আলু, পেঁয়াজ, টমেটো, সেমাই, চিড়া দেয়া হয়।

উদ্যোক্তা এরশাদ সিদ্দিকী বলেন, আমরা নগদ অর্থ সহায়তা চাই না। আমাদের খাদ্যপণ্য দিয়ে সহায়তা করুন। ইতোমধ্যে এই রমজান মাসেই ২৩০ পরিবারকে পণ্য সেবা দিয়ে সহযোগিতা করেছি। আমরা এ কার্যক্রম অনেক দূর এগিয়ে নিতে চাই। সমাজের বিত্তশালীরা একটু এগিয়ে এলে অনেকের মুখে হাসি ফুটবে।

আরেক সদস্য নাছির ফারুকী বলেন, পণ্যসেবা নিয়ে সাধারণ মানুষের জন্য বিনামূল্যে মানবিক বাজারে সবাইকে সাধ্যমতো এগিয়ে আসার আহ্বান জানাই। বিশ্বাস রাখুন, পাশে থাকুন আমরা এ স্লোগানে কাজ করছি। অসহায়দের মুখের হাসি আমাদের চলার পথে প্রেরণা, বলেছেন আবুল কালাম ও রাহুল রাশেদ মানবিক বাজারের সদস্য।

এরশাদ সিদ্দিকী তার ফেসবুকে মানবিক বাজারের ছবি দিয়ে স্টাটাসে দিয়েছেন, ‘আপনাদের মানবিকতায়, ভালোবাসায় আবারও ভরে উঠছে আমাদের গোলা-ভাণ্ডার। এ কাজে আপনারাই নায়ক আমরা সেবক মাত্র। আপনাদেরই মানবিকতা আমরা পৌঁছে দিচ্ছি অসহায়, দুস্থ, দরিদ্র, গরিব মানুষের কাছে। গতবার এই লকডাউনের সময়ে অনেকেই সাহায্য নিয়ে এগিয়ে এসেছিলেন, এবার কেউ নেই তাই সামান্য সাহায্যই এদের কাছে অনেক বড় কিছু। আমরা এই কাজটাকে ভালোবেসে ফেলেছি আপনাদের আস্থা বিশ্বাস নিয়ে আমরা যেতে চাই আরো দূর-বহুদূর। আপনাদের আরও আস্থা বিশ্বাস ভালোবাসা নিয়ে অসহায় গরিব মানুষগুলোর মুখে হাসি ফোটাব ইনশাল্লাহ।’

বিশ্বাস রাখুন পাশে থাকুন। মাস্ক পড়ুন, ঘরে থাকুন।

বাংলাদেশ জার্নাল/আরএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত