ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : ৫২ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২২ জুলাই ২০১৯, ১২:০৯

প্রিন্ট

স্ত্রীর প্রেমিককে বস্তাবন্দী করে পিটুনি দিলেন স্বামী

স্ত্রীর প্রেমিককে বস্তাবন্দী করে পিটুনি দিলেন স্বামী
পাবনা প্রতিনিধি

স্ত্রীর সাথে পরকীয়া করায় সেতু ইসলাম (২৮) নামে এক যুবককে হাত-পা বেঁধে বস্তায় বেধে বেধড়ক পিটুনি দিয়েছেন ক্ষুদ্ধ স্বামী রতন আলী। সেতুকে এভাবে হত্যা করার চেষ্টা চালানো হয়েছে বলে তার মা শাহিদা বেগম দাবি করেছেন।

রোববার পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার ঢুলটি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সেতু ওই এলাকার মৃত আব্দুল গফুর প্রামাণিকের ছেলে।

এ ঘটনায় সেতুর মা নির্যাতনকারী রতনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

পুলিশ এবং স্থানীয়রা জানান, সেতুর ঢুলটি এলাকার জনৈক রতনের স্ত্রীর সাথে সেতু ইসলামের পরকীয়া সম্পর্ক রয়েছে। সম্প্রতি রতন ও তার পরিবারের পক্ষ থেকে সেতুকে পরকীয়া বন্ধের জন্য নিষেধ করা হয়। কিন্তু সেতু তাদের নিষেধ উপেক্ষা করে রতনের স্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত রাখে। এতে রতন ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে এবং সম্প্রতি তাকে দেখে নেয়ার হুমকি দেন।

সেতুর পরিবার ও মামলার বরাত দিয়ে পুলিশ আরও জানায়, ২০ জুলাই রাত আনুমানিক ৯ টার দিকে ঈশ্বরদী-পাবনা সড়কের মল্লিক অ্যাগ্রোফুডের সামনে থেকে রতন তার কয়েকজন সহযোগীকে সাথে নিয়ে সেতুকে একটি সিএনজি চালিত অটোরিকশায় জোর করে তুলে নিয়ে যান। পরে রতন ও তার সহযোগীরা একটি ধান চাতালের গুদামে নিয়ে সেতুর হাত-পা বেঁধে বস্তায় ভরে পেটাতে থাকে। এই সময় তার আর্তচিৎকার শুনে পথচারীরা চাতালের ভেতরে গেলে রতন এবং তার সহযোগীরা পালিয়ে যান। পরে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ আহতাবস্থায় পরকীয়া প্রেমে অভিযুক্ত সেতুকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে।

ঈশ্বরদী থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক মোহাম্মাদ আলী জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতাবস্থায় সেতুকে উদ্ধার করে। ঘটনার পর থেকে রতন পলাতক। রতনের বাবা আব্দুর রহমান অত্যন্ত বৃদ্ধ হওয়ায় পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তাকে থানায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আনা হয়নি। এটি একটি পরকীয়া জনিত ঘটনা বলে তিনি জানান।

সেতুর মা শাহিদা বেগম সাংবাদিকদের কাছে জানান, তার ছেলেকে হত্যার জন্য মধ্যযুগীয় বর্বরতায় বস্তায় ভরে কুকুর- বিড়ালের মত মারা হয়। স্থানীয়রা টের না পেলে তাকে প্রাণে মেরে ফেলা হতো। তিনি নির্যাতনকারী রতন ও তার সহযোগীদের বিচার দাবি করেন। ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বাহাউদ্দিন ফারুকী জানান, সেতুর মা শাহিদা বেগম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। সেতু খুব অসুস্থ। সুস্থ হলেই তার কাছ থেকে সব শুনে পুলিশ প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত