ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬ আপডেট : ২১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৭:৫৩

প্রিন্ট

বাসা ছেড়ে দেয়ায় স্বামীকে পিটিয়ে স্ত্রীকে ধর্ষণ

বাসা ছেড়ে দেয়ায় স্বামীকে পিটিয়ে স্ত্রীকে ধর্ষণ
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম নগরীতে গভীর রাতে বাসায় ঢুকে স্বামীকে পিটিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভাড়া বাসার মালিকের ছেলে ধর্ষণ করেছে বলে পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছেন ওই গৃহবধূ। ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গত বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) রাত ৩টার দিকে নগরীর ডবলমুরিং থানার ঝর্ণাপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। শুক্রবার অভিযোগ পেয়ে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এ ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত আনোয়ার হোসেন (৩১) ঝর্ণাপাড়া এলাকার হাবিব ড্রাইভারের বাড়ির মোহাম্মদ আলীর ছেলে। ধর্ষণে অভিযুক্ত এস এম তৌহিদুজ্জামান মিল্কি (৩২) ওই এলাকার একটি ভবনের মালিক মো. ওয়াহিদুজ্জামানের ছেলে। ঘটনার পর মিল্কি পালিয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন ডবলমুরিং থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জহির হোসেন।

গৃহবধূর অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ পরিদর্শক জহির হোসেন জানান, গত ১ সেপ্টেম্বর গৃহবধূ ও তার স্বামী মিল্কিদের ভবনে বাসা ভাড়া নেন। কিন্তু বাসা পছন্দ না হওয়ায় সেটি ছেড়ে দেবেন বলে মিল্কিকে জানান। মিল্কি এতে আপত্তি জানিয়ে বলে, বাসা ছাড়ার দুইমাস আগে মালিককে জানানোর নিয়ম আছে। কিন্তু পরে আবার সম্মতি দেয়।

গৃহবধূর অভিযোগ, বৃহস্পতিবার রাত জেগে তারা বাসা ছাড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। রাত ৩টার দিকে মিল্কি ও আনোয়ারা বাসায় ঢুকে তার স্বামীকে হঠাৎ মারধর শুরু করে। একপর্যায়ে দুজন স্বামী-স্ত্রী নয় দাবি করে মিল্কি তাদের কাবিননামা দেখাতে বলে। গৃহবধূ আরেক কক্ষে কাবিননামা আনার জন্য গেলে মিল্কী তার পেছনে পেছনে ওই কক্ষে প্রবেশ করে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

পরিদর্শক জহির বলেন, শুক্রবার সকালে গৃহবধূ থানায় এসে অভিযোগ করেন। তিনি দুজনকে আসামি করে মামলা করেন। আমরা রাতে অভিযান চালিয়ে ঝর্ণাপাড়া থেকে আনোয়ারকে গ্রেফতার করি। এর আগেই মিল্কি পালিয়ে যায়।

গৃহবধূকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে নিয়ে পরীক্ষা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। এছাড়া ঘটনার সময় গৃহবধূর পরণে থাকা পোশাক আলামত হিসেবে জব্দ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ পরিদর্শক জহির।

ডিপি/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত