ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারি ২০২০, ৮ মাঘ ১৪২৭ আপডেট : ১৫ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৯:৫৫

প্রিন্ট

ইউপি সদস্যের লালসার শিকার শিশু

ইউপি সদস্যের লালসার শিকার শিশু
নাটোর প্রতিনিধি

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় সাবেক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে আট বছর বয়সী এক শিশুকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার নয় দিন পর তাকে অভিযুক্ত করে বাগাতিপাড়া থানায় যৌন নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেছেন শিশুটির সৎভাই। তবে এখনও তাকে আটক করতে করেনি পুলিশ।

শিশুটির পরিবার সূত্রে জানা যায়, পাঁচ বছর আগে স্বামীর অকাল মুত্যুতে সন্তানদের মুখে আহার যোগাতে ভিক্ষাবৃত্তি করে সংসার চালানো শুরু করেন শিশুটির মা জামবিয়া বেগম। অভাব অনটনের সংসারে ৮ বছরের মেয়ে সামিয়াকে স্কুলেও পাঠাতে পারেননি তার মা।

গত ২৫ নভেম্বর সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বাড়ি থেকে মায়ের সাথে পাশের গ্রাম আস্তিক পাড়ায় ফুপুর বাড়িতে যাচ্ছিল শিশুটি। পথে উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য আমিন সরদারের সাথে দেখা। শিশুটির মা তখন, আমিন সরদারকে তার বাই সাইকেলে করে মেয়ে সামিয়াকে ফুপুর বাড়িতে পৌঁছে দেয়ার অনুরোধ করেন তার মা। এতে রাজি হন ওই ইউপি সদস্য।

কিন্তু কিছুদূর গিয়ে কৌশলে শিশুটিকে সাইকেল থেকে নামিয়ে আমবাগানে নিয়ে যান আমিন সরদার। এরপর তার পোশাক খুলে যৌনাঙ্গসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে হাত দেন। পরে এ নিয়ে কাউকে কিছু না বলার জন্য শিশুটিকে ভয়ভীতিও দেখান তিনি।

পরে শিশুটি তার মাকে বিষয়টি জানালেও বাড়িতে কোনো পুরুষ না থাকায় থানায় অভিযোগ জানাতে পারেনি পরিবারটি। তবে ঘটনার পাঁচদিন পর গত শনিবার (৩০ নভেম্বর) শিশুটিকে সাথে নিয়ে তার চাচা থানায় মৌখিক অভিযোগ করেন।

পরে টানা তিনদিন তদন্ত শেষে ঘটনার সত্যতা পায় পুলিশ। এরপর গত সোমবার রাতে শিশুটির সৎভাই বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ করলে বুধবার মামলা গ্রহন করে থানা পুলিশ। তবে এ ঘটনায় অভিযুক্ত ইউপি সদস্যকে এখনও আটক করতে পারেনি পুলিশ।

এ সম্পর্কে বাগাতিপাড়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল মতিন বলেন, ঘটনার এক সপ্তাহ পরে ভুক্তভোগী পরিবার থানায় মৌখিক ভাবে জানায়। প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যোয়। এর প্রেক্ষিতে বুধবার মামলা গ্রহন করা হয়েছে এবং অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের জোর চেষ্টা চলছে।

এমএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত