ঢাকা, রবিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২০, ৬ মাঘ ১৪২৭ আপডেট : ২ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৩:১৩

প্রিন্ট

সন্তানদের সামলান: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সন্তানদের সামলান: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

সন্তানদের সামলাতে বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। মঙ্গলবার রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় দুই দিনব্যাপী উগ্রবাদবিরোধী জাতীয় সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে বাবা-মায়েদের উদ্দেশ্য মন্ত্রী বলেন, ‘সময় থাকতে নিজেদের সন্তানদের সামলান না হলে তারা বখে যাবে। নিজের সন্তানদের সব সময় ভালো কাজে ব্যস্ত রাখুন, যাতে তারা উগ্রবাদে জড়িয়ে না পড়ে।

জাতিসংঘ ও মার্কিন সংস্থা ইউএসএআইডির সহায়তায় ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট এই সম্মেলনের আয়োজন করে।

সমাপনী দিনে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। এ সম্মেলনে গবেষণাপত্র এবং উগ্রবাদ প্রতিরোধে মাঠপর্যায়ে কাজ করা বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিরা অভিযোগ করেন, বিষণ্ণতা, একাকিত্ব ও বৈষম্য থেকে তরুণরা উগ্রবাদে ঝুঁকে পড়ছে। মাদ্রাসার বাইরে সাধারণ শিক্ষায় শিক্ষিত তরুণরাও ঝুঁকছে। সম্মেলনে উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে বিভিন্ন অংশীজন নিয়ে সমন্বিত কার্যক্রম চালানোরও সিদ্ধান্ত আসে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ থেকে জঙ্গিবাদ নির্মূলে অনেকটাই সফল হওয়া গেছে। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত ‘জিরো টলারেন্স’ নীতির আলোকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কাজ করায় এটা সম্ভব হয়েছে।’

জঙ্গিবাদ দমনে সরকারের বিভিন্ন কার্যক্রম তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘ছেলেমেয়েদের নিঃসঙ্গতা, একাকিত্ব ও বিষণ্ণতা দূর করতে বাবা-মায়েদের নজর দিতে হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘অতীতে টার্গেট করে দেশের নানা প্রান্তে মানুষ হত্যা করা হয়েছে। সব কটি ঘটনা পর্যালোচনা করে আমরা নিশ্চিত হয়েছি- এগুলো আমাদের দেশীয় সন্ত্রাসীদেরই কর্মকাণ্ড। তারা বাংলাদেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করতে এ ধরনের কর্মকাণ্ড চালিয়েছে।’

‘২০১৬ সালে হলি আর্টিজানে জঘন্যতম জঙ্গি হামলা চালিয়ে দেশি-বিদেশিসহ ২২ জন নাগরিককে হত্যা করা হয়। এর পরপরই একটি ওয়েবসাইট থেকে দাবি করা হল- এটি অন্য একটি দেশের জঙ্গিদের কাজ। অথচ সে দেশের সঙ্গে আমাদের বর্ডারসহ কোনো ধরনের সম্পর্ক নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘এ ঘটনার পরপরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জঙ্গিবাদবিরোধী ডাক দিলেন। সে ডাকে সাড়া দিয়ে সর্বস্তরের মানুষ ঘুরে দাঁড়ালেন। এরপর এমন ঘটনাও ঘটেছে- মা তার নিজের সন্তানকে ধরিয়ে দিয়েছেন।’

তরুণদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তরুণরা যারা ফেসবুকসহ অন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কিংবা ভার্চুয়াল জগতে সারাক্ষণ থাকেন, তারা কোনো কিছু দেখলে বিশ্বাস করার আগে যেন বিষয়টি যাচাই করে নেন।’

বাংলাদেশ জার্নাল/ওয়াইএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত