ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮ আপডেট : ১৬ মিনিট আগে

প্রকাশ : ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০৯:২৪

প্রিন্ট

বিশ্বসেরা বিজ্ঞানীদের তালিকায় অধ্যাপক মামুন

বিশ্বসেরা বিজ্ঞানীদের তালিকায় অধ্যাপক মামুন
দেশসেরা গবেষক ও পদার্থ বিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. আব্দুল্লাহ আল মামুন

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি

বিশ্বসেরা বিজ্ঞানী হিসেবে তালিকাভুক্ত হওয়ায় দেশসেরা গবেষক ও পদার্থ বিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. আব্দুল্লাহ আল মামুনকে সংবর্ধনা দিয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এসোসিয়েশন অব ধামরাই সংগঠন (জাবিয়ান)।

রোববার বিকেলে ধামরাই ঢুলিভিটা মিডসান রেস্টুরেন্টে এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

ড. আব্দুল্লাহ আল মামুন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক। তিনি প্লাজমা নিয়ে গবেষণা করেছেন।

মো. জাহিদ হাসানের সভাপতিত্বে ও রেজুওয়ানুর রহমানের সঞ্চালনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভিডিও কলের মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন- জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারাজানা ইসলাম।

অধ্যাপক ড. ফারাজানা ইসলাম বলেন, ‘ড. আব্দুল্লাহ আল মামুন দেশের জন্য সুনাম অর্জন করেছেন। তিনি আমাদের গর্ব।’

এসময় সবাইকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলারও পরামর্শ দেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এই উপাচার্য।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আব্দুল্লাহ আল মামুনের স্মৃতিচারণ করেন ফরহাদ হোসেন, শহিদুল্লাহ, রুবেল আহমেদসহ একাধিক সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা। স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে এই শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞানী আল মামুনের কর্মের প্রশংসা করেন।

দেশসেরা গবেষক ও পদার্থ বিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. আব্দুল্লাহ আল মামুনকে সংবর্ধনা

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন- জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য আশীষ কুমার মজুমদার, সিনেট সদস্য সাবিনা ইয়াসমিন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র ও ধামরাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন, জাবির নবম ব্যাচের ছাত্র নুরুল হুদা, গোলাম কিবরিয়া, এইচ এম রোস্তম, আলমগীর হোসেন, ইউসুফ হোসেনসহ জাবিয়ানের আরো অনেক শিক্ষার্থী।

অনুষ্ঠানে পদার্থ বিজ্ঞানী ড. আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘আমাদের ধামরাইয়ের ইতিহাস আমাদের গর্বের ইতিহাস। এক সময় এই ধামরাইয়ে দেশের সবচেয়ে বেশি ডক্টরেট ডিগ্রিধারীরা ছিলেন। ধামরাইতে অসংখ্য কৃতি ব্যক্তি রয়েছেন।’

সকলকে স্বপ্ন দেখার কথা জানিয়ে ড. আব্দুল্লাহ আল মামুন আরো বলেন, ‘স্বপ্ন না দেখতে পারলে কখনো স্বপ্ন পূরণ হয় না। বাবা শিক্ষক ছিলেন তাই আমার স্বপ্ন ছিল শিক্ষক হবো। জাবিয়ানরা যে সম্মান দিয়েছে তা কখনো ভুলার নয়। স্বপ্ন দেখতে দেখতে আজ একজন বিজ্ঞানী হয়েছি। আমার চেয়ে অনেক মেধাবী ধামরাইতে আছে। তারা আরো বেশি ভালো করবে।’

প্রসঙ্গত, অধ্যাপক ড. আব্দুল্লাহ আল মামুন কমনওয়েলথ স্কলারশিপ নিয়ে ইংল্যান্ডের সেন্ট এ্যান্ড্রুস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি জার্মানির হোমবোল্ট পোস্টডক ফেলো। তিনি বাংলাদেশ একাডেমি অব সায়েন্স কর্তৃক জুনিয়র ও সিনিয়র গ্রুপে স্বর্ণপদকও লাভ করেছেন।

এছাড়াও জার্মানি থেকে অতি সম্মানজনক ‘ব্যাসেল রিসার্চ অ্যাওয়ার্ড’ পাওয়ার গৌরবও অর্জন করেছেন তিনি। বর্তমানে একমাত্র বাংলাদেশি হিসেবে তিনি এই গৌরব অর্জন করেন। বিশ্বের খ্যাতনামা গবেষণা জার্নালে তার প্রকাশিত গবেষণা প্রবন্ধের সংখ্যা ৪১৭টি।

ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলার জালসা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন অধ্যাপক মামুন। কুশুরা আব্বাস আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক দরবেশ আলীর পাঁচ নম্বর সন্তান তিনি।

ড. মামুনের বড় ভাই ডা.নুরুল আলম বর্তমানে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি। ভাইদের মধ্যে ছোট মামুন। সে কুশুরা আব্বাস আলী উচ্চ বিদ্যালয় থেকেই এসএসসি এবং সরকারি বিজ্ঞান কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞানের ১৩তম ব্যাচের এই ছাত্র কৃতিত্বের সঙ্গে অনার্স এবং মাস্টার্স সম্পন্ন করেন।

বাংলাদেশ জার্নাল/ওয়াইএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত