ঢাকা, শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ আপডেট : ৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২১:১৪

প্রিন্ট

বাজারে করোনার প্রভাব

বাজারে করোনার প্রভাব

Evaly

নিজস্ব প্রতিবেদক

অন্যান্য খাতের (পোশাক, চামড়া) মত দেশের নিত্যপণ্যের বাজারে প্রভাব পড়েছে করোনাভাইরাসের। চীন থেকে আসা আদা-রসুন, চিনি এবং ভোজ্যতেলের দাম বেড়েছে। এসব পণ্যের সঙ্গে অজুহাত দেখিয়ে দাম বাড়ানো হয়েছে চাল, ডাল, আটা, মাছ ও মুরগির।

সোমবার রাজধানীর মিরপুর, শাহজাহানপুর, মালিবাগ ও কাওরান বাজার ঘুরে এ চিত্র পাওয়া গেছে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, আমদানিকৃত আদা বিক্রি হচ্ছে ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা কেজি দরে। অথচ গত সপ্তাহেও ১৫০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছিল। আর দেশি আদা বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকা কেজিতে। আদার পাশাপাশি বেড়েছে আমদানিকৃত রসুনের দামও। রসুন বিক্রি হচ্ছে ১৮০-২০০ টাকা কেজি। আবার কোথাও কোথাও বিক্রি হচ্ছে ২২০ টাকা কেজিতে। দেশি রসুন বিক্রি হচ্ছে ১৩০ থেকে ১৫০ টাকায়।

চিকন চাল বিক্রি হচ্ছে ৫২-৬০ টাকা দরে। মাঝারি মানের চিকন চাল বিক্রি হচ্ছে ৪০-৫০ টাকায় এবং মোটা চাল বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা দরে। চালের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে আটার দাম। সাদা খোলা আটা কেজি প্রতি বেড়েছে ২ থেকে ৩ টাকা। গত সপ্তাহেও যে আটা ২৬ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছিলও সেই সাদা আটা এখন বিক্রি হচ্ছে ২৮ থেকে ৩০ টাকা দরে।

চিনি কেজিতে ৫ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৭০-৭৫ টাকায়। যা গত সপ্তাহেও ৬৫ থেকে ৭০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। একইভাবে কেজিতে ১০ টাকা বেড়ে মুগ ডাল ১৩০-১৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অথচ এক সপ্তাহ আগেও ১২০-১৩০ টাকা কেজি দরে মুগ ডাল কেনা-বেচা হয়েছে। তবে আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে মসুরের ডাল।

মাছ ও মাংসের মধ্যে শুধু রুই মাছের দাম বেড়েছে কেজি প্রতি ৫০ টাকা। গত সপ্তাহে ২৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া রুই মাছ সোমবার বিক্রি হয়েছে ৩০০ টাকা থেকে ৩৫০ টাকা কেজি দরে। ১১৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১২৫ টাকা কেজিতে। মাছ মাংসের দাম বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দাম বেড়েছে তেজপাতার। ১০০ টাকা কেজির তেজপাতা বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকায়। অর্থাৎ কেজিপ্রতি দাম বেড়েছে ২০ টাকা।

এনএইচ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত