ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬ আপডেট : ১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৬:৩২

প্রিন্ট

লাগাতার আন্দোলনে উত্তাল বশেমুরবিপ্রবি

লাগাতার আন্দোলনে উত্তাল বশেমুরবিপ্রবি
গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্বাবিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) ভিসি প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিনের পদত্যাগের এক দফা দাবিতে ৫ম দিনের মত বিরতিহীন আন্দোলন করছেন শিক্ষার্থীরা।

সোমবার বৃষ্টি উপেক্ষা করে তারা আন্দোলন করেছেন। মিছিলে মিছিলে কম্পিত হয়ে উঠছে পুরো ক্যাম্পাস।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস ঘুরে জানাগেছে, বৃষ্টি উপেক্ষা করে রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান করে শিক্ষার্থীরা। সোমবার সকালেও বৃষ্টি হলে তারা সেখানে অবস্থা করে। পরে বিভিন্ন স্থান থেকে মিছিল নিয়ে আন্দোলনরত স্থানে আসে শিক্ষার্থীরা।

এসময় স্লোগানে ও মিছিলে পুরো ক্যাম্পাস উত্তাল হয়ে ওঠে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে আন্দোলন স্থানে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি বাড়তে থাকে। এসময় আন্দোলনকারীরা ভিসির নানা অনিয়ম, দুর্নীতি, নারী কেলেঙ্কারী লেখা বিভিন্ন প্লাকার্ড প্রদর্শন করে।

এদিকে আন্দোলনের মুখে শনিবার বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করে সকাল ১০টার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হলেও অধিকাংশ শিক্ষার্থী হল ছাড়েনি। জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন শিক্ষার্থীদের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করায় আরো বেগবান হয়েছে ভিসি বিরোধী আন্দোলন।

শনিবার ক্যাম্পাসের বাইরে বিভিন্ন স্থানে বহিরাগতদের হামলায় ২০ শিক্ষার্থী আহত হওয়ার ঘটনার পর শিক্ষার্থীরা আবোরো হামলার আশংকা করছে। এ হামলার ঘটনার প্রতিবাদে সহকারী প্রক্টর হুমায়ূন কবীর পদত্যাগ করেন।

পরে এ হামলার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। তাদেরকে আগামী ৫ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। ক্যাম্পাস উত্তাল থাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

শিক্ষার্থীরা জানান, কোনো হুমকি-ধমকি এমনকি বৃষ্টি আমাদের আন্দোলন থামতে পারেব না। আমাদের দাবি ভিসির পদত্যাগ করতে হবে। পদত্যাগ না করা পযর্ন্ত আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাব।

সদস্য পদত্যাগ করা সহকারী প্রক্টর হুমায়ূন কবীর ও শিক্ষক মশিউর রহমান জানান, আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করা ন্যক্কারজনক। সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনা এখন সময়ের দাবি।

বশেমুরবিপ্রবির রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. নুরউদ্দিন আহমদ বলেন, আমরা বিভিন্ন গণমাধ্যম থেকে জেনেছি শিক্ষামন্ত্রাণালয় একটি কমিটি গঠন করেছ। এ বিষয়ে আমাদের কথা না বলাই শ্রেয়।

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসের বাইরে শিক্ষার্থীদের ওপর যে হামলার ঘটনা ঘটেছে সে ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। ৫ দিনের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। তদন্ত কমিটি কাজ করছে।

এদিকে, বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার তীব্র প্রতিবাদ ও ভিসির পদত্যাগের দাবিতে গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে মানববন্ধন করেছে জেলার সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এসময় তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান আন্দোলনে সংহতি প্রকাশ করে।

সোমবার সকাল ১০টার দিকে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের টেকেরহাট পপুলার হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। এসময় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও স্কুল-কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

ক্যাম্পাসের বাইরে সাধারণ শিক্ষার্থীরাও আন্দোলনের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছে

প্রসঙ্গত, গত ১১ সেপ্টেম্বর আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ও ক্যাম্পাস সাংবাদিক ফাতেমা-তুজ-জিনিয়াকে সাময়িক বহিস্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এর পরিপ্রেক্ষিতে ভিসির বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম-দুর্নীতি ও নারী কেলেঙ্কারীর অভিযোগ এনে তার পদত্যাগ দাবিতে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা।

বাংলাদেশ জার্নাল/আরকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত