ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারি ২০২০, ৮ মাঘ ১৪২৭ আপডেট : ২ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১:৪০

প্রিন্ট

কোটা গ্রুপের এডমিন-মডারেটরদের ছাত্রত্ব বাতিলের দাবি মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের

কোটা গ্রুপের এডমিন-মডারেটরদের ছাত্রত্ব বাতিলের দাবি মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের
অনলাইন ডেস্ক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুরকে অপসারণ ও শাস্তির দাবিতে ৪৮ ঘন্টার আলটিমেটাম দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

মঙ্গলবার দুপুরে ডাকসু ভবনের সামনে আয়োজিত মানববন্ধন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কাছে এই দাবি জানানো হয়। এ সময় উপাচার্যের সামনে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের কেন্দ্রীয় কমিটি সাধারণ সম্পাদক মো: আল মামুন স্মারকলিপি পড়ে শোনান।

নুরকে অপসারণের পাশাপাশি সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নামে চলা ফেসবুক পেজ ও গ্রুপের এডমিন-মডারেটরদের ছাত্রত্ব বাতিলের দাবিও তুলেছেন তারা।

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের তিন দফা দাবিগুলো হচ্ছে- দুর্নীতির অভিযোগ, সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতারণা, রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্র এবং দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হওয়ায় ডাকসুর ভিপি পদ থেকে নুরুল হক নুরকে অপসারণ ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান; জামায়াত-শিবির দ্বারা পরিচালিত সন্ত্রাসী সংগঠন সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদকে ঢাবি ক্যাম্পাসে নিষিদ্ধকরণ এবং নুরুল হক নুরের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত কোটা সংস্কার চাই ফেসবুক পেজ ও গ্রুপে বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ, প্রধানমন্ত্রী ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের অবমাননা করার অপরাধে এসব ফেসবুক পেজ ও গ্রুপের এডমিন ও মডারেটরদের ছাত্রত্ব বাতিলসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান।

বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো: আল মামুন বলেন, দুর্নীতিবাজ নুরুল হক নুরকে ডাকসুর ভিপি পদ থেকে অপসারণ ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানসহ তিন দফা দাবিতে মাননীয় উপাচার্যকে আমরা ৪৮ ঘন্টার আলটিমেটাম দিয়েছি। আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে মাননীয় উপাচার্য ও ডাকসু সভাপতি দাবি বাস্তবায়ন না করলে নুরুল হক নুরকে ঢাবি ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করবে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে নুর একের পর এক প্রতারণা করে যাচ্ছে। সে সাধারণ শিক্ষার্থীদের অধিকার ও নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি ভুলে গিয়ে অনৈতিক ভাবে ডাকসু ভিপি পদ ব্যবহার করে দুর্নীতি, টেন্ডার বাণিজ্য, কমিশন বাণিজ্য ও রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে যা ডাকসুর লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও গঠনতন্ত্র পরিপন্থী। সাধারণ শিক্ষার্থীদের কাছে নুরুল হক নুর এখন ঘৃণার পাত্রে পরিণত হয়েছে।

তিনি বলেন, ডাকসুকে কলঙ্কমুক্ত করার জন্য আমরা অবিলম্বে তার অপসারণ ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি। উপাচার্য স্মারকলিপি গ্রহণ করে আমাদেরকে আশ্বস্ত করে বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের অভিযোগগুলো খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচীতে আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক ইয়াসির আরাফাত তূর্য, কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি শেখ সুহিন আজাদ, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক আফসানা নূর দিনিয়া, সহ-সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক, ঢাবির জিয়া হল শাখার সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম মাহিমসহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

বাংলাদেশ জার্নাল/জেডআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত