ঢাকা, শুক্রবার, ০২ অক্টোবর ২০২০, ১৮ আশ্বিন ১৪২৭ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ১০ আগস্ট ২০২০, ১৮:৫৩

প্রিন্ট

আমাদের ভালোবাসা আর স্মৃতিতে বেঁচে থাকবেন আপনি: বুবলী

আমাদের ভালোবাসা আর স্মৃতিতে বেঁচে থাকবেন আপনি: বুবলী
বিনোদন প্রতিবেদক

না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন কিংবদন্তি গীতিকার, সুরকার ও সংগীত পরিচালক আলাউদ্দিন আলী। সোমবার দুপুরে এফডিসিতে জানাজা শেষে বিকালে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। এমন কিংবদন্তির প্রয়াণে শোবিজ অঙ্গনে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। শোবিজের অনেকেই তাকে নিয়ে ফেসবুকে লিখছেন নানা স্মৃতিকথা।

এ প্রজন্মের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা শবনম বুবলী। কিংবদন্তির বিদায়ে শোকাহত হয়েছেন তিনিও। নিজের ফেসবুকে গুণী এই শিল্পীকে নিয়ে বুবলী লিখেন, সবার মত আমিও আপনার অসংখ্য গান শুনে বড় হয়েছি, শত শত গান। বড় বোন সংগীত শিল্পী বলে হয়তো গানের ব্যাপারে আমার জানা পরিচয় টা একটু বেশি। আমিও ছোটবেলায় গান শেখা শুরু করেছিলাম কিন্তু কন্টিনিউ করিনি, ফাঁকিবাজী করতাম। হারমোনিয়াম দেখলেই আমি বাসার অন্যদিকে ছুটতাম। আমার ভালো লাগা ছিলো নাচ ঘিরে, কিন্তু বরাবরই গানটা শুনতে ভালোবাসতাম আমি।

মনে পড়ে, ছোট্ট থেকে স্কুল, কলেজে যে কোন প্রতিযোগীতায় বড় আপু গানে, মেজো আপু স্পোর্টসে আর আমি নাচে অংশগ্রহণ করতাম আর স্যার ম্যাডামরা মজা করে আম্মু আব্বুকে বলতেন “ভাই সাহেব সব পুরস্কার তো আপনার বাসায় যাবে, কারণ পড়ালেখা আর সৃজনশীলতায় বরাবরই তো সিরিয়াস ওরা”।

তিনি আরও লিখেন, ছোটবেলায় যখন বড় আপু কত দরদ দিয়ে আপনার গান গুলো গাইতেন তখনই আমরা পরিবারের সবাই মন্ত্রমুগ্ধের মত শুনতাম। আপু গানের কত শত প্রতিযোগীতায় সুনিপুণ ভাবে আপনার গান গেয়ে যে কত পুরষ্কারে ঘর ভরেছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। সবচেয়ে বড় পুরষ্কারগুলো হতো যখন গুণীজনরা গান শুনে গর্বে কেঁদে ফেলতেন।

আপু একটু বড় হবার পর যখন সিনেমায় প্লেব্যাক করার ডাক পেলো। অনেক গুণী সুরকার আর সংগীত পরিচালকদের মধ্যে আপনার সুর এবং সংগীতায়োজনে গান গাইবার সুযোগ পাবার পর স্বভাবতই বেশি আনন্দ হয়েছিলো। একে একে আপনার অসংখ্য গান গাইবার সৌভাগ্য হয়েছে আপুর, কত প্রশংসা আর দোআ করেছেন আপনি আমার বোনকে! বলতেন এত পিচ্চি একটা মেয়ে এতো ভালো গায় কি করে!

এর মধ্যে তখন আমিও একদিন আম্মু আর আপুর সাথে শ্রুতি রেকর্ডিং স্টুডিও তে গিয়েছিলাম আপনি কিভাবে গান করেন তা দেখতে। আপনি আমাকে কিছুক্ষণ খেয়াল করার পর বলেছিলেন, এইটুকুন ছোট্ট মেয়ে এতো ভালো শ্রোতা গানের! সত্যি তোদের জন্য অনেক আশির্বাদ!

সুরের জাদুকর আলাউদ্দিন আলী আংকেল, আপনার মত কিংবদন্তিরা কখনই চিরতরে চলে যান না, থেকে যান আমাদের মত অনেক মানুষের ভালোবাসা আর স্মৃতিতে। ভালো থাকবেন।

রোববার (০৯ আগস্ট) বিকেল ৫টা ৫০ মিনিটে রাজধানী মহাখালীর ইউনিভার্সেল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন আলাউদ্দিন আলী। এরপর রাতে তার মরদেহ রাখা হয় বারডেম হাসপাতালের হিমঘরে।

আইএন

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত