ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ১০ বৈশাখ ১৪২৮ আপডেট : ২২ মিনিট আগে

প্রকাশ : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫:৫৪

প্রিন্ট

‘ইমো’ তে প্রীতম হাসানের চমক

‘ইমো’ তে প্রীতম হাসানের চমক

বিনোদন প্রতিবেদক

প্রিয়জন, আত্মীয় স্বজন, পিতা-মাতা বা ভাইবোনের প্রতি আবেগ প্রকাশের দিন হিসেবে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস পালিত হয়ে আসছে বিশ্বজুড়ে। সাংস্কৃতিকভাবে দিবসটি পশ্চিমা ভাবধারার হলেও গত কয়েক দশক ধরে বাংলাদেশিরা দিনটিকে নিজেদের মতো করে পালন করে এসেছে।

এই দিবস উদযাপনে অনন্য মাত্রা যোগ করেছে গান। সেই ভাবনা থেকেই ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে যোগাযোগ মাধ্যম ইমো হাজির হয়েছে একটি গান নিয়ে। দেশের জনপ্রিয় গীতিকার ও সংগীতশিল্পী প্রীতম হাসানের কণ্ঠে প্রকাশ করেছে ‘জীবনের উৎসবে একসাথে’ শিরোনামে একটি গান। এর পাশাপাশি জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেতা ইরফান সাজ্জাদকে নিয়েও একটি মিউজিক ভিডিও ফিচার করেছে ইমো।

ভালোবাসা দিবস ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে মিউজিক ভিডিওটি ইমো’র মাইপ্লানেট, ইউটিউব এবং ফেসবুক পেইজ এবং বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে দেখা যাচ্ছে।

এই গানটির সুরকার এবং সংগীতশিল্পী প্রীতম হাসান বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষকে একে অপরের কাছে আনতে এবং প্রিয়জনের সাথে যোগাযোগ বৃদ্ধিতে সার্বক্ষণিক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ইমো। সে ধারাবাহিকতায় এই গানটির আয়োজন। আমি খুবই আনন্দিত আয়োজনটির অংশ হতে পেরে। আমার নতুন এই গানে দেখানো হবে ভালোবাসা শুধু রোমান্টিকতার সম্পর্কের মধ্যেই আটকে নেই। বরং ভালোবাসা হতে পারে মানুষের প্রতি, বন্ধুত্বের প্রতি, এমনকি প্রকৃতির প্রতিও।’

ইমো’র ভাইস প্রেসিডেন্ট ক্রিস্টোফার হিউ বলেন, ‘প্রীতম হাসানকে সাথে নিয়ে এরকম ব্যতিক্রমধর্মী গানের মাধ্যমে ভালোবাসা দিবস উদযাপন করতে পেরে আমরা খুবই উচ্ছ্বসিত। আশা করছি গানটি সব শ্রেণি-বয়সের শ্রোতাদের মন ছুঁয়ে যাবে।’

তিনি আরো যোগ করেন, ‘প্রিয়জনের সাথে যোগাযোগ করার পাশাপাশি মানুষদেরকে তাদের ভালবাসার কাজে উৎসাহ দেওয়ার জন্য ইমো তৈরি করা হয়েছে। গত বছর প্রত্যেক বাংলাদেশি গড়ে ৭৫৩ বার ইমোর মাধ্যমে তাদের আপনজনদের সাথে যোগাযোগ করতে পেরেছে। আমরা আশা করি ব্যবহারকারীদের সাথে নিয়ে ইমো আরো ভালোবাসা এবং নতুন আশার সঞ্চার করবে।’

২০২০ সাল থেকে বাংলাদেশের মানুষের দৈনন্দিন জীবনে ইমোর গুরুত্ব বেড়েই চলেছে, প্রায় ৯৬০০ কোটি ম্যাসেজ এবং ২৬০০ কোটি অডিও এবং ভিডিও কল ইমো’র মাধ্যমে বাংলাদেশি ব্যবহারকারীরা সম্পন্ন করেছে। এছাড়াও স্থানীয় ব্যবহারকারীরা বিদেশে অবস্থানরত প্রিয়জনদের সাথে যোগাযোগ করতে প্রায় ৩০০০ কোটি ম্যাসেজ এবং ১৫০০ কোটি কল করেছেন। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষের মাঝে সংযোগ স্থাপনে ইমো’র প্রচেষ্টার চিত্র উঠে এসেছে।

নিজেদের ভালোবাসার গল্পগুলো #CelebrateLoveTogether হ্যাশট্যাগ দিয়ে ইমো’র মাইপ্ল্যানেট এবং অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিতে শেয়ার করার মাধ্যমে দেশের সকল ইমো ব্যবহারকারীরা এই উদযাপনের অংশ হতে পারে।

প্রসঙ্গত, ইমো একটি বিশ্বব্যাপি ইন্সট্যান্ট যোগাযোগ প্ল্যাটফর্ম। পৃথিবীর যেকোনো প্রান্তের মানুষের সাথে অন্য প্রান্তের মানুষ অডিও কল, ভিডিও কল, গেমস বা মাল্টিমিডিয়া ইত্যাদি সুবিধার মাধ্যমে একে অপরের সাথে খুব সহজেই যোগাযোগ করতে পারে। ইমো’র উন্নত যোগাযোগ প্রযুক্তি এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে প্রায় ১৫০টিরও বেশি দেশে ৬২ ভাষায় ২০ কোটিরও বেশি মানুষ তাদের বন্ধু, পরিবার বা বিভিন্ন কমিউনিটিতে সফল ভাবে যোগাযোগের পাশাপাশি জীবনের নানা আয়োজন ভাগাভাগি করে নিতে পারছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/আইএন

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত