ঢাকা, শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ কার্তিক ১৪২৭ আপডেট : ৩১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৮:১৫

প্রিন্ট

‘নো কার্ব’ -এ মারাত্মক ক্ষতি!

‘নো কার্ব’ -এ মারাত্মক ক্ষতি!
প্রতীকী ছবি
স্বাস্থ্য ডেস্ক

রচেস্টার স্ট্রং হাসপাতালের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ রবার্ট কোলম্যান অ্যাটকিনস প্রথম বলেছিলেন কার্বোহাইড্রেট নাকি শুধু ওজন বাড়ায়। ১৯৭২ সালে তার লেখা, অ্যাটকিনস ডায়েট রেভোলিউশন বইয়ে প্রকাশ করেন, কার্বোহাইড্রেটের একমাত্র কাজ ওজন বাড়ানো। তাই ডায়েট হওয়া উচিত ‘লো কার্ব’ এবং ‘নো কার্ব’।

পুষ্টি বিজ্ঞানীরা কিন্তু এ কথা মানেন না। বিশেষ করে ছোটদের শরীর গড়তে (স্ট্রাকচারাল গ্রোথ) কার্বোহাইড্রেট অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি উপাদান। প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন মিনারেলস নিয়ে সবাই চিন্তা করেন। কিন্তু কার্বোহাইড্রেটের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়ে অনেকেরই স্বচ্ছ ধারণা নেই।

অ্যাটকিন সাহেব দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ের এক পুষ্টি গবেষক অ্যালফ্রেড পেনিংটনের গবেষণার সূত্র ধরে ‘নো কার্ব ডায়েট’ নিয়ে জোর প্রচার শুরু করেন। তারই সূত্র ধরে অনেকে কার্বোহাইড্রেটকে দৈনিক খাবারের তালিকা থেকে বাদ দিয়েছেন। এই ডায়েট মানতে গিয়ে হোক বা অন্য কারণে ডাক্তার অ্যাটকিনের গুরুতর হার্ট অ্যাটাক হয়েছিল।

জটিল জৈব যৌগ কার্বোহাইড্রেটের মূল উপাদান কার্বন, হাইড্রোজেন আর অক্সিজেন। আমাদের শরীরের জ্বালানি হল কার্বোহাইড্রেট। যত দামি গাড়িই হোক না কেন জ্বালানি না দিলে যেমন গাড়ি চলতে পারে না, তেমনই রোজকার ডায়েটে কার্বোহাইড্রেট না থাকলে নানা অসুবিধা হয়। খাবারের এই উপাদান প্রোটিন, ফ্যাট, ভিটামিন বা অন্যান্য মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টসের থেকে অনেক দ্রুত শক্তির জোগান দেয়, জানালেন ডায়েটিশিয়ান রেশমী রায় চৌধুরী। তিনি বলেন, চিনি হল সব থেকে সরল (সিমপ্লিয়েস্ট ফর্ম) কার্বোহাইড্রেট। আমরা যে চিনি (সুক্রোজ) খাই তা ছাড়াও বিভিন্ন মিষ্টি ফলে (ফ্রুক্টোজ) ও দুধে ল্যাক্টোজ নামে সরল কার্বোহাইড্রেট পাওয়া যায়। তবে চিনি কিন্তু আমাদের শরীরের জন্য মোটেও ভাল নয়। স্টার্চ হল কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট, পাওয়া যায় বিভিন্ন শস্য, সবজি, বিনস ও কড়াইশুঁটি থেকে।

চাল, ডাল, ভুট্টা, সয়াবিন ও কড়াইশুঁটি থেকে কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট পাওয়া যায়। রেশমী জানালেন, এগুলি আমাদের শরীরের জন্যে অত্যন্ত দরকারি। এ ছাড়াও কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট আছে গম, ওটস, জোয়ার, বাজরা ইত্যাদিতেও। তাই রোজকার খাবারে ভাত, রুটি, বা তার বদলে ওটস, জোয়ার, বাজরা বা কিনওয়ার মত কার্বোহাইড্রেট থাকা জরুরি।

রেশমী রায় আরো বলেন, চিনি হল সব থেকে সরল (সিমপ্লিয়েস্ট ফর্ম) কার্বোহাইড্রেট। আমরা যে চিনি (সুক্রোজ) খাই তা ছাড়াও বিভিন্ন মিষ্টি ফলে (ফ্রুক্টোজ) ও দুধে ল্যাক্টোজ নামে সরল কার্বোহাইড্রেট পাওয়া যায়। তবে চিনি কিন্তু আমাদের শরীরের জন্য মোটেও ভাল নয়। স্টার্চ হল কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট, পাওয়া যায় বিভিন্ন শস্য, সবজি, বিনস ও কড়াইশুঁটি থেকে।

চাল, ডাল, ভুট্টা, সয়াবিন ও কড়াইশুঁটি থেকে কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট পাওয়া যায়। রেশমী জানালেন, এগুলি আমাদের শরীরের জন্যে অত্যন্ত দরকারি। এ ছাড়াও কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট আছে গম, ওটস, জোয়ার, বাজরা ইত্যাদিতেও। তাই রোজকার খাবারে ভাত, রুটি, বা তার বদলে ওটস, জোয়ার, বাজরা বা কিনওয়ার মত কার্বোহাইড্রেট থাকা জরুরি, যোগ করেন তিনি। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

আরো পড়ুন:

> গ্যাস্ট্রিক নিয়ন্ত্রণের দাওয়াই দই, যেভাবে খাবেন

> করোনা থেকে বাঁচাতে পারে যে খাদ্যাভ্যাস

> যে ৫ কারণে করলার রস খেতেই হবে

> শিশুর ডায়াবেটিস ও করণীয়

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত