ঢাকা, রোববার, ১৬ মে ২০২১, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ আপডেট : ২৮ মিনিট আগে

প্রকাশ : ০৪ মে ২০২১, ২২:০৩

প্রিন্ট

বিএসএমএমইউতে চালু হচ্ছে ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগ

বিএসএমএমইউতে চালু হচ্ছে ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগ ও ৩ বছর মেয়াদি রেসিডেন্সি কোর্স শীঘ্রই চালু হচ্ছে বলে জানিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ।

মঙ্গলবার নিজ কার্যালয়ে এক সভায় উপাচার্য এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা প্রদান করেন।

উপাচার্য শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগ একটি স্পর্শকাতর বিভাগ। ময়নাতদন্তের মতো গুরুত্বপূর্ণ কাজ এই বিভাগের মাধ্যমে সম্পন্ন হয়ে থাকে। অপমৃত্যু, ধর্ষণ, হত্যাসহ অনেক স্পর্শকাতর বিষয়গুলোর প্রকৃত কারণ এই বিভাগের মাধ্যমে জানা যায়। যে কারণে চিকিৎসা বিজ্ঞান ও অপরাধ দমনে এটা একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

এদিকে উপাচার্য তার কার্যালয়ে প্রশাসনিক মিটিং, প্যালিয়েটিভ মেডিসিন ও শহীদ ডা. মিল্টন হলে জেনোম সিকোয়েন্সিং এবং প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভায় অংশগ্রহণ করেন।

প্যালিয়েটিভ মেডিসিন বিষয়ক সভায় নিরাময় অযোগ্য রোগীদের সেবার পরিধি আরো বৃদ্ধি ও এ সংক্রান্ত কার্যক্রম জোরদার করার নির্দেশ প্রদান করেন উপাচার্য শারফুদ্দিন আহমেদ।

জেনোম সিকোয়েন্সিংয়ের সভায় দেশে করোনাভাইরাসের মিউটেন্ট ভ্যারিয়েন্ট নির্ধারণের উপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভায় জরায়ুমুখ ও স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধি ও এ বিষয়ে সেবামূলক কার্যক্রম জোরদার করার পরামর্শ দেন উপাচার্য।

এ সকল কার্যক্রমে বিএসএমএমইউ’র উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ রফিকুল আলম, উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. জাহিদ হোসেন, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. এ কে এম মোশাররফ হোসেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, বেসিক সায়েন্স ও প্যারাক্লিনিক্যাল সায়েন্স অনুষদের ডীন অধ্যাপক ডা. খন্দকার মানজারে শামীম, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. এবিএম আব্দুল হান্নান, প্রক্টর অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবুর রহমান দুলাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে বিএসএমএমইউ’র জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রশান্ত মজুমদারের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বিএসএমএমইউ’র কনভেনশন সেন্টারে মঙ্গলবার মোট ১৯২২ জন করোনার দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন। এ পর্যন্ত প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন ৫৪ হাজার ৫ শত ৬৪ জন এবং দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন ৩১ হাজার ২০১ জন।

বেতার ভবনের পিসিআর ল্যাবে মঙ্গলবার পর্যন্ত পর্যন্ত ১ লাখ ৩৮ হাজার ৮১৯ জনের করোনা টেস্ট করা হয়েছে। বেতার ভবনের ফিভার ক্লিনিকে এদিন পর্যন্ত ৯৩ হাজার ৭৯০ জন রোগী চিকিৎসাসেবা নিয়েছেন।

অন্যদিকে করোনা ইউনিটে মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ৮ হাজার ৪৭৫ জন রোগী সেবা নিয়েছেন। ভর্তি হয়েছেন ৪ হাজার ৭৯৩ জন। সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন ৪ হাজার ৫০ জন। বর্তমানে ভর্তি আছেন ১০০ জন রোগী এবং আইসিইউতে ভর্তি আছেন ১৪ জন রোগী। গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ১০ জন।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমআর/ওয়াইএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত