ঢাকা, সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০, ১৬ চৈত্র ১৪২৬ আপডেট : ১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১০:২৬

প্রিন্ট

রাতারাতি সেই বিচারপতিকে সরালো মোদি সরকার

রাতারাতি সেই বিচারপতিকে সরালো মোদি সরকার
অনলাইন ডেস্ক

দিল্লি হাইকোর্ট থেকে বিচারপতি এস মুরলীধরকে পঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টে বদলি করার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। বুধবার রাতে গেজেট নোটিফিকেশন দিয়ে এখবর জানানো হয়। একই সঙ্গে বদলি করা হচ্ছে দিল্লির পাঁচ আইপিএস অফিসারকেও।

বুধবার দুপুরেই উত্তরপূর্ব দিল্লিতে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ায় দিল্লি সরকার এবং দিল্লি পুলিশকে ভর্ৎসনা করেছিলেন বিচারপতি এস মুরলীধর এবং তালওয়ান্ত সিংয়ের ডিভিশন বেঞ্চ। পাশপাশি বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে এফআইআর করার ব্যাপারে বুধবার নির্দেশ দিয়েছিল এই বেঞ্চ। আর এই নির্দেশের কারণেই চটজলদি তাকে বদলি করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তবে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম কলকাতা টুয়েন্টি ফোর দাবি করেছে, বিচারপতি বদলির এই নির্দেশের সঙ্গে দিল্লি সহিংসতার কোন সম্পৃক্ততা নেই। কেননা তাকে বদলি করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল ২০ ফেব্রুয়ারির আগেই। তার প্রেক্ষিতে বার অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা কর্মবিরতি পালনের হুমকিও দিয়েছিলেন কিন্তু তা যে কোনও কাজে আসেনি, তারই প্রমাণ বদলির নির্দেশ।

সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দেশের প্রধান বিচারপতির সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে দিল্লি হাইকোর্টের বিচারপতি এস মুরলীধরকে পাঞ্জাব এবং হরিয়ানা হাইকোর্টে বদলি করছেন রাষ্ট্রপতি।

তবে বিরোধী শিবিরের অভিযোগ, দিল্লি হাইকোর্টের এই বিচারপতির রায়ে খুশি নন শাসকদলের নেতারা। তাই তাকে রাতারাতি এভাবে বদলির নির্দেশ দিলো মোদির প্রশাসন।

বিচারপতি এস মুরালীধর উত্তর-পূর্ব দিল্লির মুস্তাফাবাদের সংঘর্ষে আহেতদের যথাযথ চিকিৎসা সহায়তা দিতে মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) মধ্যরাতে দেশটির পুলিশকে নির্দেশ দেন। এছাড়াও বুধবার সংঘর্ষে গৃহহীন মানুষদের আশ্রয়ের ব্যবস্থা করার রায় দিয়ে দিল্লির মানুষের ‘রক্ষাকর্তায়’ পরিণত হন।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে ও ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে দিল্লি হাইকোর্ট থেকে বিচারপতি মুরালীধরকে অন্যত্র বদলির প্রসঙ্গে এর আগে দু’বার রাজি হয়নি কলেজিয়াম। তবে এবার স্বপ্রনোদিত হয়েই প্রথমে কলেজিয়াম ও পরে দেশটির রাষ্ট্রপতি এই সাহসী বিচারপতিকে বদলির নির্দেশ দিলেন।

এমএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত