ঢাকা, শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ আপডেট : ১৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৪ এপ্রিল ২০২০, ২২:৫০

প্রিন্ট

করোনা মোকাবিলায় ‘স্মার্ট দূরত্ব’

করোনা মোকাবিলায় ‘স্মার্ট দূরত্ব’

Evaly

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি বলেছেন, তার দেশে মহামারি করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯’র প্রাদুর্ভাব রোধ করার জন্য চলমান সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পরিকল্পনার সঙ্গে আরো একটি নতুন স্মার্ট দূরত্ব যোগ হতে যাচ্ছে।

শনিবার করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণ এবং প্রতিরোধ বিষয়ক জাতীয় দপ্তরে দেয়া এক বক্তৃতায় প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেন, দেশের মানুষের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার প্রথম এবং দ্বিতীয় পদক্ষেপ করোনা নিয়ন্ত্রণে ভালো সফলতা বয়ে এনেছে।

প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেন, বর্তমানে আমরা জনগণের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার তৃতীয় স্তর বাস্তবায়ন করছি। এখানে ‘স্মার্ট দূরত্ব’ সংযুক্ত করা হয়েছে। এ বিষয়ে বিস্তারিত খুব শিগরগিরই প্রকাশ করা হবে।

পার্সটুডের খবরে বলা হয়েছে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব রোধ করার ক্ষেত্রে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার উদ্যোগের অংশ হিসেবে ইরান দেশের বিভিন্ন পেশা শ্রেণি এবং শহর ও আন্তঃনগরের যোগাযোগের ক্ষেত্রে বিশেষ কিছু সুনির্দিষ্ট বিধি-নিষেধ আরোপ করেছে।

চলমান সামাজিক দূরত্ব বজার রাখার ফলে কী ধরনের প্রভাব পড়ছে এবং পরবর্তীতে আরো করণীয় বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে প্রেসিডেন্ট রুহানি আজকের বৈঠকে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইরত বিভিন্ন দপ্তরের কমিটিকে সঠিক পর্যালোচনার আহ্বান জানিয়েছেন।

এদিকে, আজ এক ভিডিও কনফারেন্সে ইরানের উপস্বাস্থ্যমন্ত্রী ইরাজ হারিচি সাংবাদিকদের বলেন, কয়েকটি মূলনীতির ওপর ‘স্মার্ট দূরত্ব’ বাস্তবায়ন করা হবে। এসবের মধ্যে একটি মূলনীতি হচ্ছে আমরা করোনাভাইরাস এবং মার্কিন নিষেধাজ্ঞাগুলোর বিরুদ্ধে একসঙ্গে লড়াই করব। ফলে এই স্মার্ট দূরত্ব বজায় রাখার কৌশলে আমাদেরকে অর্থনৈতিক ইস্যুগুলো বিবেচনায় নিতে হবে।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যায় চীনকে ছাড়িয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্র, স্পেন, ইতালি ও ফ্রান্স। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইরান।

আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় শিয়া সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশটিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৫৮ জন। এ সংখ্যাসহ এ পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা ৩ হাজার ৪৫২ জনে দাঁড়াল।

করোনার আঁতুড়ঘর চীনে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৩ হাজার ৩২৬ জন। সে হিসাবে সংক্রমণের প্রায় দেড় মাসের মাথায় মৃতের সংখ্যায় চীনকে টপকাল ইরান।

গত ১৯ ফেব্রুয়ারিতে ইরানে প্রথম করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়ে। এরপর তা ব্যাপকহারে ছড়িয়ে পড়লে নিয়ন্ত্রণে সর্বাত্মক চেষ্টা করেও হার মানছে ইরান সরকার।

ইরানের উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তা ও আইনপ্রণেতারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন। ২৯০ আইনপ্রণেতার মধ্যে ২৩ জনই এতে আক্রান্ত হয়েছেন ইতিমধ্যে। এদের মধ্যে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

দেশটিতে করোনা সংকটে মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেন, করোনাভাইরাস এমন কিছু না, যার জন্য আমরা কোনো নির্দিষ্ট তারিখের কথা উল্লেখ করতে পারব। তবে আসছে মাসগুলোতে কিংবা চলতি ইরানি বছরে এ ভাইরাস আমাদের সঙ্গে থাকবে বলে ধারণা করছি।

উল্লেখ্য, এখন পর্যন্ত ইরানে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৫ হাজার ৭৪৩ জন। মারা গেছেন ৩ হাজার ৪৫২ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৯ হাজার ৭৩৬ জন।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

shopno
  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত
best