ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১, ২৪ ফাল্গুন ১৪২৭ আপডেট : ১৩ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৭:২৩

প্রিন্ট

মেদিনীতে লড়বেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

মেদিনীতে লড়বেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

কলকাতা প্রতিনিধি

একুশের বিধানসভা নির্বাচন ঘিরে পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি এখন জমজমাট। ভোটের উত্তাপ যতো চড়ছে ততোই যেন বাংলার রাজনীতিতে শালীনতার মাত্রা হারাচ্ছেন নেতা-নেত্রীরা। একে অপরের বিরুদ্ধে আক্রমণের ঝাঁঝ ক্রমশই বেড়ে চলেছে। মূলত পশ্চিমবাংলার মাটিতে এখন ভোটযুদ্ধে সম্মুখ সমরে দাঁড়িয়ে তৃণমূল-বিজেপি। কেউ কাউকে সুচাগ্র মেদিনী ছাড়তে নারাজ।

রাজনৈতিক গরমাগরম এই আবহের মধ্যে দাঁড়িয়ে এবারে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরাসরি মুসলিম জঙ্গি বলে আখ্যা দিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রী আনন্দ স্বরূপ শুক্লা।

উত্তরপ্রদেশের যোগী সকারের মন্ত্রীসভার এই সদস্য দাবি করেছেন, বাংলায় একুশের ভোটের পর বাংলাদেশে পালাতে হবে মমতা বদ্যোপাধ্যায়কে। শুক্লার এই অভিযোগের পর রাজ্য রাজনীতিতে উত্তাপ যে আরো চড়বে তা বেশ পরিস্কার। কারণ, তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা তাদের নেত্রীর নামে এমন অভিযোগ সহজে হজম করবেন না। পাল্টা দেবেন তারাও। আর এই পাল্টাপাল্টি অভিযোগের পাল্লায় উত্তপ্ত হয়ে উঠবে বঙ্গ রাজনীতি।

শুক্লা অভিযোগ তুলে বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভারতীয়দের বিশ্বাস করেন না। তিনি বাংলার দেবদেবী ঠাকুরদের অপমান করেছেন। উনি বাংলাদেশীদের মতো আচরণ করে থাকেন। তাই একুশের বিধানসভা নির্বাচনে খুব খারাপভাবে হারবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তারপরেই ওনাকে বাংলাদেশে চলে যেতে হবে।

পাশাপাশি স্বরূপ শুক্লা বলেন, ভারতের মাটিতে যে মুসলিমরা ভারতমাতার জয় ও বন্দেমাতরম বলেন তাদের এই দেশে সম্মান দেওয়া হবে।

মূলত ভোটের পারদ চড়তেই রাজ্যের শাসক দলকে যে কমে ছেড়ে দেবে না বিজেপি তা বেশ স্পষ্ট। রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের খোদ সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই এবারে নিশানা করতে শুরু করে দিয়েছে গেরুয়া শিবির।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুসলিম তোষণকে টার্গেট করে যেমন আক্রমণের তীর ছুঁড়তে শুরু করেছে গেরুয়া শিবির, তেমনি হিন্দুত্বের জিগিরকে উস্কে দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করতেও ছাড়তে না তারা। পাশাপাশি দেশপ্রেমের আবেগকেও কাজে লাগাতে চাইছে গেরুয়া শিবির।

পশ্চিমবাংলার মাটিতে জঙ্গি কার্যকলাপের যে অভিযোগ ইতিপূর্বে উঠেছিলো সেই অভিযোগকে সামনে এনে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও টার্গেটে রেখেছে বিজেপি। ফলে একযোগে বিজেপির আনা গুচ্ছের অভিযোগকে সামাল দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একুশের লড়াইকে কীভাবে ঘরে তুলে আনেন সেটাই এখন দেখার।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত