ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : ৫ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:২৩

প্রিন্ট

হংকং বিক্ষোভ

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের রাতভর সংঘর্ষ, ক্যাম্পাসে আগুন

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের রাতভর সংঘর্ষ, ক্যাম্পাসে আগুন
অনলাইন ডেস্ক

হংকংয়ের একটি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ চলকালে সোমবার সকালে সেখানে পুলিশি হামলার খবর পাওয়া গেছে। এর আগে দু পক্ষের মধ্যে রোববার রাতভর সংঘর্ষ হয়েছে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসি। এই সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। এছাড়া দু পক্ষের সংঘর্ষের সময় ক্যাম্পসে আগুন ধরে যায় বলেও খবর পাওয়া গেছে।

হংকংয়ের চীনাপন্থী প্রশাসনের আনা একটি প্রত্যার্পন বিলকে কেন্দ্র করে সেখানে গত পাঁচ মাস ধরে একটানা বিক্ষোভ করছে তরুণরা। বিক্ষোভের মুখে ওই বিলটি বাতিল করা হলেও বিক্ষোভ থামেনি। বরং গণতন্ত্রপন্থী আন্দোলনকারীরা আত্মনিয়ন্ত্রণাধিকারের আরো অনেক দাবি নিয়ে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছে।

প্রথমদিকে বিক্ষোভে কোনো সহিংসতার খবর পাওয়া যায়নি। তবে আধা স্বায়ত্বশাসিত এই চীনা নিয়ন্ত্রনাধীন শহরে জুন থেকে শুরু হওয়া বিক্ষোভে সবচেয়ে বেশি সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে সাম্প্রতিক সময়ে। সহিংসতায় গত কয়েকদিনে বেশ কয়েকজন মারাও গেছেন।

বিবিসি জানায়, রোববার দিনভর হংকংয়ের পলিটেকনিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। পুলিশ সেখানে প্রবেশের চেষ্টা করলে তাদের লক্ষ্য করে পেট্রোল বোমা আর ইট পাটকেল ছুড়ে মারে বিক্ষোভরত তরুণরা। ফলে পিছু হটতে বাধ্য হয় পুলিশ সদস্যরা। রোববার দিনগত রাতেও দু পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয় বলে খবর পাওয়া গেছে।

সোমবার সকালে একদল বিক্ষোভকারী ক্যাম্পাস ছেড়ে বেরিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশের টিয়ার গ্যাস ও রাবার বুলেটের মুখে তারা পিছু হটেন।

এদিকে সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রফেসর জিন গুয়াং ট্যাং একটি ভিডিও বার্তা প্রকাশ করেছেন। সেখানে তিনি বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থী ও পুলিশের মধ্যে সমঝোতার চেষ্টা চালাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন। ওই ভিডিও বার্তায় তিনি বিক্ষোভকারীদের শান্তিপূর্ণভাবে ক্যাম্পস ত্যাগ করারও নিশ্চয়তা দিয়েছেন।

তবে তার এই ভিডিও বার্তা খুব একটা কাজে আসেনি বলেই মনে হয়। কেননা অবরুদ্ধ ক্যাম্পসের মধ্যে এখনও বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন শত শত শিক্ষার্থী।

গত কয়েকদিন ধরেই হংকংয়ের পলিটেকনিক বিশ্ববিদ্যাল শিক্ষার্থীরা সেখানকার চীনাপন্থী শাসকেদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু রোববার রাতে সেই বিক্ষোভ মারাত্মক রূপ নেয়। পুলিশ ক্যাম্পাসের ভিতরে প্রবেশের চেষ্টা চালালে ভিতর থেকে ইট পাটকেল আর পেট্রোল বোমা ছুড়ে মারেন বিক্ষোভকারীরা। এমনকি তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে তীর ধনুক পর্যন্ত ছুড়ে মেরেছে বলেও জানিয়েছেন বিবিসি প্রতিনিধি। এ সময় হাঁটুতে তীরবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন এক পুলিশ কর্মকর্তা। জবাবে টিয়ার গ্যাস, জল কামান আর রাবার বুলেট ছুড়ে পুলিশ।

সোমবার স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ক্যাম্পাসের দখল নেয়ার জন্য পুলিশ অগ্রসর হতে শুরু করলে বিক্ষোভকারীদের সাথে ছোট ছোট বিচ্ছিন্ন সংঘর্ষ শুরু হয়। সেসময় বিক্ষোভকারীরা পুলিশের দিকে পেট্রল বোমা ছুড়লে ক্যাম্পাসে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। কিছুক্ষণ সংঘর্ষ চলার পর পুলিশ পিছু হটে। ক্যাম্পাসের ভেতরে এখনও শত শত বিক্ষোভকারী অবস্থান করছেন বলে জানা গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের রোববার সন্ধ্যার মধ্যে ক্যাম্পাস ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ দিলেও তারা তা গ্রাহ্য করেনি। এখনও ক্যাম্পাসে প্রচুর শিক্ষার্থী বিক্ষোভ করছেন বলে জানা গেছে।

এদিকে পুলিশের মুখপাত্র লুইস লাউ ফেসবুকে প্রচারিত এক বক্তব্যে বিক্ষোভকারীদের ওপর হামলার হুমকি দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা যদি পুলিশ কর্মকর্তাদের দিকে পেট্রল বোমা, তীরের মত বিপজ্জনক অস্ত্র ছুড়ে মারা অব্যাহত রাখে তাহলে আমাদের গুলি করা ছাড়া আর কোনো পথ খোলা থাকবে না।’

এমএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত