ঢাকা, বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ আপডেট : ১৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১৫:৫২

প্রিন্ট

গোলমরিচের যত্ত গুণাগুণ ও উপকারিতা

গোলমরিচের যত্ত গুণাগুণ ও উপকারিতা
জীবন-শিল্প ডেস্ক

প্রাচীনকাল থেকেই পুরো বিশ্বজুড়ে গোলমরিচের ব্যবহার হয়ে আসছে। বিভিন্ন রান্নায় মসলা হিসেবে গোলমরিচের কদর প্রচুর। গোলমরিচকে বলা হয় মসলার রাজা। কারণ হিসেবে জানা যায় গোলমরিচের মতো গুনাগুণ নাকি আর কোন মসলায় নেই।

গোলমরিচ লতাজাতীয় উদ্ভিদ। এর সাইন্টেফিক নাম পিপার নিগ্রাম। এই গাছের ফল শুকিয়ে মসলা হিসেবে ব্যবহার করা হলেও কাঁচা ফলও ব্যবহার করা হয় বিভিন্ন মজাদার রান্নায়।

পুষ্টিবিজ্ঞানের তথ্যানুসারে খাবারের স্বাদ বাড়ানোর পাশাপাশি গোলমরিচ চর্বি কমাতেও সাহায্য করে। ক্যালরি কম থাকার পাশাপাশি গোলমরিচে রয়েছে ভিটামিন এ, ভিটামিন সি ও ভিটামিন কে। এছাড়া পটাসিয়াম ও সোডিয়াম ইত্যাদি খনিজও রয়েছে গোলমরিচে।

শরীরের অতিরিক্ত চর্বি ঝরাতে সাহায্য করে গোলমরিচ তার সাথে মুখের স্বাদ বাড়াতে গোলমরিচের জুড়ি নেই। প্রতিদিন হালকা গরম পানিতে গোলমরিচের গুঁড়া আর এক চামচ মধু মিশিয়ে খেলে মুখের স্বাদ বৃদ্ধি পায়। এছাড়াও কমবে অতিরিক্ত ওজন।

গোলমরিচের উপকারিতা অনেক। গোলমরিচের মধ্যে থাকা পিপেরিন মানব দেহের মেটাবলিক রেট বাড়ায়। এছাড়াও কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে গোলমরিচ। মানব শরীরে থাকা অতিরিক্ত ক্যালরিও পুড়িয়ে ফেলে পিপেরিন। গোলমরিচ খাওয়ার পর পিপেরিনের জন্য ঝাল অনুভব শুরু হয়। আর এই ঝালের জন্য বেশ গরম লাগে ফলে তা অন্য কিছু খাবার ইচ্ছে অনেকখানি কমিয়ে দেয়।

তবে প্রতিদিন দুই চামচের বেশি গোলমরিচ খাওয়া উচিৎ নয়। দুই চামচ গোলমরিচ মানে প্রায় ১০-১২টা গোলমরিচের দানা। এর বেশি খেলে আবার পেটের সমস্যা হতে পারে। বিশেষত যাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা আছে, তারা খুব বেশি খাবেন না। এছাড়াও গর্ভবতী মহিলাদের গোলমরিচ খেতে মানা করেন চিকিৎসকরা। এতে মিসক্যারেজ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

ওজন কমাতে চাইলে যেভাবে গোলমরিচ ব্যবহার করবেন-

ওজন কমাতে চাইলে প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস হালকা গরম পানির সাথে এক চামচ গোলমরিচের গুড়া আর এক চামচ মধু মিশিয়ে খেতে পারেন। এছাড়া যাদের সকালটাই শুরু হয় চায়ের সাথে তারা গোলমরিচ ব্যবহার করে চা বানিয়ে খেতে পারেন। একটি পাত্রে পানি গরম করতে বসিয়ে তাতে থেঁতো করা আদা আর গোটা ৪-৫টি গোলমরিচ দিয়ে পাঁচ মিনিট ফোটান। এবার কাপের মধ্যে গ্রিন টি ব্যাগ আর ফোটানো পানি দিয়ে বানিয়ে ফেলুন চা। খুবই উপকারি এই চা কমাবে দেহের অতিরিক্ত ওজন।

সকালে উঠে আবার বানিয়ে নিতে পারেন ডিটক্স ওয়াটর। এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে এক চামচ মধু আর এক চামচ গোলমরিচ মিশিয়ে তাতে একটা পাতি লেবুর রস মিশিয়ে বানিয়ে ফেলুন ডিটক্স ওয়াটার।

অনেকেই গাজরের জুস খেতে পছন্দ করেন। তারা গাজরের জুসে মিশিয়ে ফেলুন গোলমরিচের গুড়া। খুব ভালো ফল পাবেন আর সেই সাথে ওজনও কমবে তাড়াতাড়ি।

যাদের প্রায়ই ঠাণ্ডা লাগে অথবা ঘন ঘন হাঁচি হতে থাকে, তারা যদি কয়েকটা গোলমরিচ রোজ চিবিয়ে খায় তবে উপকার পাবেনই পাবেন। যারা নিয়মিত গ্যাস, অম্বলের সমস্যায় ভুগছেন তারা প্রতিদিন সকালে পাঁচটা করে গোলমরিচ চিবিয়ে খেয়ে এক গ্লাস পানি খান। টানা ৭ দিন করুন। দেখবেন সমস্যা অনেক কমে যাবে।

গোলমরিচের ব্যবহার ক্যানসারের ঝুঁকি হ্রাস পায়। ত্বকের উজ্জ্বলতা রক্ষায়ও গোলমরিচ ভালো কার্যকর। তাই প্রতিদিনের রান্নায় ব্যবহার করুন একটু করে গোলমরিচ।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত