ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ৮ আষাঢ় ১৪২৮ আপডেট : ২ মিনিট আগে

প্রকাশ : ০৮ মে ২০২১, ১০:২৯

প্রিন্ট

গরমে তরমুজ খাওয়ার সুফল

গরমে তরমুজ খাওয়ার সুফল
ছবি: সংগৃহীত

জীবন-শিল্প ডেস্ক

গ্রীষ্মের তীব্র দাবদাহ চলছে। এমন গরমে শরীর তরতাজা রাখতে তরমুজই উপযুক্ত ফল। এ ফলটির প্রায় ৯৫ শতাংশই পানি। এই গরমে লাল টকটকে এক ফালি তরমুজ দেবে শীতল অনুভূতি। তাই তো সতেজ থাকতে বৈশাখের গরমে এই ফলের চাহিদা সব থেকে বেশি। কেবল প্রশান্তি পেতেই নয়, স্বাস্থ্যগত দিক বিবেচনায়ও তরমুজ এগিয়ে। তরমুজে আছে লাইকোপেন, অ্যামাইনো অ্যাসিড, ভিটামিন, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও পানি। রূপচর্চায় ব্যবহার বা খাওয়া- দুভাবেই তরমুজের উপকারিতা পাওয়া সম্ভব।

তরমুজ তীব্র গরমেও আপনার শরীরকে পানিশূন্যতা পূরণ করে। কম সামান্য ক্যালোরি আছে এতে। এক কাপ তরমুজ থেকে মাত্র ৪৬ ক্যালোরি পাওয়া যায়।

গরমে তরমুজ খেলে যত উপকার পাওয়া যায় তা আজকে বাংলাদেশ জার্নালের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-

গরমে পানির ঘাটতি কমাতে

তরমুজে পানির পরিমাণ ৯২ ভাগ পানি। তাই শরীরকে ঠাণ্ডা করতে ও পানিশূন্যতা কমাতে তরমুজ অতুলনীয়। বিশেষজ্ঞরা বলেন, ক্যাফেইনের তুলনায় তরমুজ অনেক গুণ বেশি উপকারী। তাই ক্যাফেইন কমিয়ে বেশি বেশি তরমুজ খাওয়া উচিত।

রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে

করোনার এই সময়ে শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতার প্রয়োজনীয়তা আমরা অনেকটাই বুঝতে পেরেছি। আর যেসব খাবার খেলে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে, তার মধ্যে একটি হলো সহজলভ্য রসাল ফল তরমুজ। তরমুজ সি ও বি৬-এ সমৃদ্ধ। আর এ দুটি উপাদান শরীরকে রোগের বিরুদ্ধে লড়তে সাহায্য করে। তাই গরমের এই সময়ে বেশি বেশি খেতে হবে তরমুজ।

ওজন কমাতে সাহায্য করে

তরমুজে রয়েছে ৯২ শতাংশ জলীয় উপাদান যা শরীরের প্রয়োজনীয় জলের চাহিদা পূরণ করে। ফাইবার সমৃদ্ধ তরমুজে রয়েছে ভিটামিন এ, বি৬, সি, এবং খনিজ উপাদান পটাসিয়াম যা ওজন কমাতেও সাহায্য করে।

রোদের তীব্রতার প্রভাব কমাতে

গরমের তীব্রতা দিন দিন বাড়ছে। তাই গরমে হঠাৎ করেই হতে পারে হিট স্ট্রোক। তরমুজ মস্তিষ্ক ও শরীরকে রাখে ঠাণ্ডা আর শক্তি সঞ্চার করে; যা হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়।

স্বাস্থ্যকর হার্ট পেতে

তরমুজে থাকে প্রচুর পরিমাণ পটাসিয়াম। এই খনিজ উপাদান আমাদের হার্ট ভাল রাখে, পেশী শক্তি বাড়ায়, হাড়ের গঠন মজবুত করে। কিন্তু, অতিরিক্ত পটাসিয়াম শরীরে গেলে হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ে, পালস রেট কমে যায়।

তীক্ষ্ণ দৃষ্টির জন্য

আমরা সবাই জানি, চোখের সুস্থতার জন্য ভিটামিন এ’র বিকল্প নেই। আর এক ফালি তরমুজেই আপনি প্রতিদিনের প্রয়োজনের ৯-১১ ভাগ ভিটামিন এ পেয়ে যাচ্ছেন; যা আপনার চোখের স্বাস্থ্যকে সুরক্ষিত রাখবে; বাড়াবে দৃষ্টিশক্তি।

ব্যায়ামের সুফল পেতে

ব্যায়াম শারীরিক সুস্থতার জন্য দরকার। তবে আপনি কি জানেন, ব্যায়াম করার পর তরমুজ খেলে ব্যায়ামের সুফল পাওয়া যাবে আরও দ্রুত। তরমুজে থাকা অ্যান্টি–অক্সিডেন্ট, অ্যামাইনো অ্যাসিড, পটাশিয়াম, মিনারেল ব্যায়ামের পর পেশিতে শক্তি জোগায়।

প্রতি ১০০ গ্রাম তরমুজে ক্যালোরির পরিমাণ ৩০ ও শর্করার পরিমাণ প্রায় ৬ গ্রাম। একদিনে ৫০০ গ্রাম পর্যন্ত তরমুজ হজম করা সম্ভব, কারণ এতে শরীরে ঢোকে ১৫০ ক্যালোরি। কিন্তু, এর থেকে বেশি তরমুজ খেলে সেটা শরীরের জন্য ক্ষতিকর হয়ে দাঁড়ায়।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত