ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ২২ অক্টোবর ২০২০, ১৫:০২

প্রিন্ট

সাংবাদিকদের মুখ বন্ধ করতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সরকার

সাংবাদিকদের মুখ বন্ধ করতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক

ক্ষমতালিপ্সার জন্য সরকার সাংবাদিকদের মুখ বন্ধ করতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিবৃতিতে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় গতকাল সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক ও বিএফইউজে সভাপতি রুহুল আমিন গাজীকে বুধবার গ্রেপ্তারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে এ বিবৃতি দেয়া হয়।

বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল বলেন, সরকারের পায়ের তলা থেকে মাটি সরে গেছে। জনসমর্থনহীন এই সরকার হিতাহিত-বিবেচনাহীন। অন্ত:হীন ক্ষমতালিপ্সার জন্য এরা প্রতিবাদী সাংবাদিকদের মুখ বন্ধ করতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তাই প্রতিবাদী সাংবাদিক, নির্ভীক লেখক ও অকুতোভয় গণতন্ত্রকামী বরেণ্য সাংবাদিকদের মিথ্যা মামলায় গ্রেপ্তারের খেলায় মাতোয়ারা হয়ে গেছে। সাংবাদিকদেরকে গ্রেপ্তার দু:শাসনকে টিকিয়ে রাখারই ইঙ্গিতবহ।

তিনি বলেন, রুহুল আমিন গাজীকে গ্রেপ্তারের মধ্য দিয়ে সরকার মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে স্তব্ধ করতে আরও একটি ঘৃণ্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো। আগামী দিনে আওয়ামী ফ্যাসিবাদের চেহারা কী বিভৎস রূপ ধারণ করবে সেটিরই একটি কুনজীর এটি। কথায় কথায় বিরুদ্ধ মতাবলম্বীদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা দিয়ে সরকার দেশে প্রতিহিংসার রাজনীতিকে চরম পর্যায়ে নিয়ে গেছে।

ফখরুল বলেন, রুহুল আমিন গাজীকে রাষ্ট্রদ্রোহের বানোয়াট মামলায় গ্রেপ্তারের মাধ্যমে সরকারের সমালোচক, প্রতিবাদী কলামিষ্ট, বিবেকবান লেখক-বুদ্ধিজীবিদেরকে বর্তমান ফ্যাসিষ্ট সরকার এক অশুভ বার্তা জানান দিলো। সরকার কেবলমাত্র বিএনপিসহ বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীরাই নয়, তারা এখন টার্গেট করেছে ফ্যাসিবাদ বিরোধী প্রতিবাদী কন্ঠস্বরকে।

তিনি বলেন, সরকার গণভিত্তি হারিয়ে কোন রকমে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে দিয়ে যারা জাতির বিবেক, তাদের ওপর মরণকামড় দিতে শুরু করেছে।

বিবৃতিতে রুহুল আমিন গাজীকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানান বিএনপি মহাসচিব।

বাংলাদেশ জার্নাল/কেএস/আর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত