ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬ আপডেট : ৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৪ আগস্ট ২০১৯, ১২:৩১

প্রিন্ট

সরকারের কঠোর সমালোচনায় জিএম কাদের!

সরকারের কঠোর সমালোচনায় জিএম কাদের!
জার্নাল ডেস্ক

ডেঙ্গুসহ বিভিন্ন ইস্যুতে সরকারের কঠোর সমালোচনায় নেমেছেন জাতীয় পার্টির বর্তমান চেয়ারম্যান জিএম কাদের। সম্প্রতি তিনি গণমাধ্যমে ঘোষণা দিয়ে বলেছেন, কার্যকর বিরোধী দলের ভূমিকা পালন করবে জাতীয় পার্টি।

দৃঢ়তার সাথে জিএম কাদের বলেন, অতীতের মত জাপা আর কারো লেজুড়বৃত্তি করবে না। নিজ শক্তিতে বলিয়ান হয়েই জাপা রাজনীতিতে সক্রিয় থাকবে।

নিজ দল জাতীয় পার্টি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জাতীয় পার্টির মধ্যে প্রতিযোগিতা আছে, তবে কোনও দ্বন্দ্ব নেই।

জাপা চেয়ারম্যান জিএম কাদের বর্তমানে বন্যার্তদের সাহায্যার্থে উত্তরাঞ্চল সফরে রয়েছেন। ঢাকায় ফিরেই তিনি বন্যা ও ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে সরকারের ব্যর্থতার চিত্র জনগণের সামনে তুলে ধরবেন বলে একটি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে জি এম কাদের বলেন, ক্ষমতাসীন সরকার ডেঙ্গু মোকাবিলায় সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছে। আমি দেখি ঢাকার মানুষ আতঙ্কিত। মশা দেখলেই ভয় পাচ্ছে। কারণ জ্বর হলে ডেঙ্গু হচ্ছে। ডেঙ্গু হলে মানুষ মারা যাচ্ছে। এই আতঙ্কিত মানুষকে রক্ষা করার দায়িত্ব সরকারের।

তিনি আরও বলেন, আমরা অসহায় হয়ে থাকব আর প্রতিদিন ডেঙ্গু বাড়বে, আমরা কিছুই করতে পারব না—এটা হতে পারে না। এই মহামারি অবস্থা ঠেকাতে সরকার পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, আমরা এসেছি বন্যা দুর্গত এলাকা পরিদর্শনের জন্য এবং ত্রাণ কার্যক্রম কীভাবে চলছে এগুলো দেখার জন্য। বন্যা দুর্গত এলাকায় জনগণের দুঃখ, দুর্দশা লাঘবে সরকার কী পদক্ষেপ নিয়েছে বিরোধী দলীয় নেতা হিসেবে সেগুলো দেখার জন্য। স্বচক্ষে যা দেখলাম তা ভয়াবহ। সরকারের কোন সাহায্য সহযোগিতা নাই বন্যার্তদের জন্য। বিরোধী দলে আছি, জনগণের কথা বলার জন্য।

তিনি বলেন, বন্যা দুর্গতদের সহায়তায় স্থায়ী বন্দোবস্ত করা উচিত। যারা সব সময় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয় সে সব এলাকা সার্ভে করে ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করতে হবে। যখনই যে এলাকায় বন্যা হবে সেই এলাকাকে বন্যার্ত দুর্গত এলাকা ঘোষণা করে এই তালিকা অনুযায়ী ত্রাণ সহায়তা পৌঁছে দিতে হবে।

এইচ এম এরশাদ মারা যাওয়ার পর দলটির চেয়ারম্যান হন তার ছোট ভাই জি এম কাদের। চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর তা সর্বসম্মতিক্রমে হয়েছিল বলে জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে জানানো হয়। তবে পরে এরশাদ-পত্নী রওশন এরশাদ এ বিষয়ে আপত্তি জানান। দলের চেয়ারম্যান পদ নিয়ে কাদেরের সঙ্গে রওশনের দ্বন্দ্বের বিষয়টি তখন প্রকাশ্যে চলে আসে।

বাংলাদেশ জার্নাল/ওয়াইএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত
close
close