ঢাকা, সোমবার, ০৩ আগস্ট ২০২০, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৭ আপডেট : ৫ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৪ জুলাই ২০২০, ০৬:২৩

প্রিন্ট

থানা ভাঙচুর, জামিন নিতে গিয়ে দুই সরকারি কর্মচারীসহ গ্রেপ্তার ৩

থানা ভাঙচুর, জামিন নিতে গিয়ে দুই সরকারি কর্মচারীসহ গ্রেপ্তার ৩
বাঁ থেকে আসামি মো. শাওন ও রায়হান হান্নান দ্বীপ
দিনাজপুর প্রতিনিধি

দিনাজপুর কোতয়ালি থানা ঘেরাও ও ভাঙচুরের মামলায় জামিন নিতে গিয়ে দুই সরকারি কর্মচারীসহ তিনজন গ্রেপ্তার হয়েছেন। গ্রেপ্তারের পর আদালত তাদের জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের উচ্চমান সহকারি মো. শাওন (৩৪), দিনাজপুর সরকারি কলেজের মাস্টাররোল চাকরি করা রায়হান হান্নান দ্বীপ (৩০) এবং রাজা মিয়া ( ২৯)।

সোমবার দুপুরে দিনাজপুর জজকোর্টের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শিশির কুমার বসুরের আদালতে জামিন নিতে গেলে ম্যাজিস্ট্রেট ওই ৩ আসামির জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

জানা গেছে, গত ১১ জুলাই দিনাজপুর জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি ইমাম আবু জাফর রজব ও দিনাজপুর সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ সুজনকে বিভিন্ন মামলায় গ্রেপ্তার করা হলে দলীয় নেতাকর্মী ও ছাত্রলীগ নেতাদের একাংশ তাদের মুক্তির দাবিতে কোতয়ালি থানা ঘেরাও ও ভাঙচুরের চেষ্টা চালায়। এতে ১৪ পুলিশ সদস্য আহত হন।

এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ওইদিন রাতেই ৪৭ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ২০ জনের নামে মামলা দায়ের করে।

হান্নান দ্বীপের বিষয়ে দিনাজপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোহাম্মদ হোসেন বলেন, রায়হান হান্নান দ্বীপ আমি অধ্যক্ষ হওয়ার আগেই মাস্টাররোল চাকরিতে ঢুকে। পরে তাকে দর্শন বিভাগ থেকে লাইব্রেরিতে দেওয়া হয়। তাকে জেলে প্রেরণ করা হয়েছে বিষয়টা মাত্র জানলাম। আদালত থেকে যদি কোন নির্দেশনা আসে তাহলে অবশ্যই পরবর্তী একাডেমিক কাউন্সিল সভায় আমরা আলোচনা করব। সেখানেই তার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. আবু বকর সিদ্দিক বলেন, শিক্ষাবোর্ডের একজন কর্মচারীকে জেল হাজতে প্রেরণ করার বিষয়টা শুনলাম। আইন অনুযায়ী পরবর্তীতে যে ব্যবস্থা নেওয়ার দরকার আমরা সেটাই করব।

বাংলাদেশ জার্নাল/আর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত
best