ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭ আপডেট : ২৭ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:৫২

প্রিন্ট

প্রবাসীর স্ত্রীর আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে, গ্রেপ্তার ২

প্রবাসীর স্ত্রীর আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে, গ্রেপ্তার ২
ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে প্রবাসীর স্ত্রী আপত্তিকর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সোমবার গৃহবধূর পিতা ৪ জনের নামসহ ৫ জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

এ ঘটনায় পুলিশ মো. রাসেল মিয়া (২৭) ও বাধন মিয়া (২০) নামের দুই যুবককে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।

মামলা ও গৃহবধূর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বিয়ের দেড় মাস পরই স্ত্রীকে রেখে ওই গৃহবধূর স্বামী মালয়েশিয়ায় চলে যান। সরাইল উপজেলার সদরের নিজসরাইল গ্রামের রুমেলদের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন গৃহবধূ। প্রবাসী স্বামীর সাথে প্রায়ই মোবাইল ফোনে অডিও-ভিডিও কথা বলতেন তিনি। স্বামীর ইচ্ছায় বিভিন্ন ধরনের ছবিও পাঠাতেন। তার বিকাশ নম্বরে স্বামী টাকা পাঠাতেন। নিজেই সেই টাকা উত্তোলন করতেন।

কয়েক মাস আগে গৃহবধূ অসুস্থ হওয়ায় স্বামীর অনুমতিক্রমে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি রুমেল মিয়াকে দিয়ে বিকাশের টাকা তোলেন। এভাবে বেশ কয়েকবার টাকা উত্তোলন করে মোবাইল ফোন সেটটি ফেরত দেয় রুমেল। সুযোগে বুঝে রুমেল মোবাইল সেট থেকে গৃহবধূর ব্যক্তিগত ছবিগুলো রেখে দেয়।

৫-৬ মাস আগে রাসেল, বাধন, রুমেল ও আশিকসহ ৪/৫ জন গৃহবধূকে ফোন করে রুমেলের সাথে ওই গৃহবধূর ছবি থাকার বিষয়টি জানায়। সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেয়ার হুমকিও দেয় তারা। স্ত্রীর ইজ্জত রক্ষার্থে গৃহবধূর স্বামী হুমকি দাতাদের সাথে কথা বলে ৫০ হাজার টাকা দেয়। এরপরেও ওই যুবকরা গৃহবধূকে ফোন করে কুরুচিপূর্ণ কথাবার্তা বলেন এবং আরো টাকা না দিলে ওই ছবিগুলো ফেসবুকে ভাইরাল করে দেয়ার হুমকি দেয়।

একপর্যায়ে আশিক মিয়া গৃহবধূকে কুপ্রস্তাব দেয়। সম্প্রতি তারা গৃহবধূর মোবাইল ফোন থেকে নেয়া ব্যক্তিগত ছবিগুলো এডিট করে রুমেলের ছবির সাথে যুক্ত করে ফেসবুকে ছেড়ে দেয়।

এরপর ওই গৃহবধূ স্বামীর বাড়ি থেকে জেলা শহরে বাবার বাড়িতে চলে যান। গত মঙ্গলবার ওই গৃহবধূ সরাইল গ্রামে তার স্বামীর বাড়িতে এলে রুমেল মিয়া তাকে গালাগালি করে এবং আরো টাকা না দিলে ছবিগুলো ভাইরাল করার হুমকি দেয়।

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএমএম নাজমুল আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আসামিরা ব্ল্যাকমেইলিং করে ওই মহিলার পরিবারের কাছ থেকে টাকা আদায় করেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। আমরা দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছি। অন্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনকে/আরকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত