ঢাকা, সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ২৯ চৈত্র ১৪২৭ আপডেট : ৫৭ মিনিট আগে

প্রকাশ : ০৪ মার্চ ২০২১, ২১:৩৪

প্রিন্ট

আইনজীবী সমিতির ২ গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১৫

আইনজীবী সমিতির ২ গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১৫

দিনাজপুর প্রতিনিধি

দিনাজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত দফায় দফায় জেলা আইনজীবী সমিতির সামনে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, সকাল ১১টায় কমিটির মেয়াদ বৃদ্ধি, পূর্বের কমিটির আর্থিক অনিয়মসহ কয়েকটি বিষয় নিয়ে আইনজীবী সমিতির কার্যকরী কমিটির সাধারণ সভা শুরু হয়। এ সময় সমিতির সাবেক নেতৃবৃন্দ সাধারণ সভাস্থলে গিয়ে কমিটির মেয়াদ বৃদ্ধির বিরোধিতা করেন এবং সভা স্থগিত করতে বলেন। এতে উভয়পক্ষের মধ্যে বাক-বিতণ্ডার একপর্যায়ে সংঘর্ষ বাঁধে। দফায় দফায় সংঘর্ষ চলে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। সংঘর্ষের সময় উপস্থিত ছিলেন বৃহত্তর দিনাজপুর-৭ সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট জাকিয়া তাবাসসুম জুঁই।

আইনজীবীরা বলেন, গঠনতন্ত্র অনুযায়ী প্রতি বছর চৈত্র মাসের প্রথম শনিবার আইনজীবী সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ১ বৈশাখ থেকে নতুন কমিটির কার্যক্রম শুরু হয়। বাংলা ১৪২৬ সালের নির্বাচনে সভাপতি হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন অ্যাডভোকেট নুরুজ্জাহান জাহানী ও সাধারণ সম্পাদক তহিদুল ইসলাম সরকার। এই কমিটির মেয়াদ ওই বছরের চৈত্র মাসেই শেষ হওয়ার কথা। কিন্তু ওই সময়ে করোনার কারণে আদালত বন্ধ ছিল, তাই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি। পরে আদালত চালু হলে বাংলা ১৪২৭ সালের নির্বাচন গত সেপ্টেম্বর মাসে অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে নতুন করে দায়িত্ব পান সভাপতি পদে অ্যাড. মাজাহারুল ইসলাম সরকার ও সাধারণ সম্পাদক পদে অ্যাড. সাইফুল ইসলাম। এই কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ার আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আগামী চৈত্র মাসের প্রথম শনিবারে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। কিন্তু এর আগেই বর্তমান কমিটি এক সাধারণ সভা ডাকে। যেখানে ইস্যু হিসেবে রাখা হয় কমিটির মেয়াদ আরো এক বছর বৃদ্ধি করা, সাবেক কমিটির নেতৃবৃন্দের আর্থিক দুর্নীতিসহ নয়টি বিষয়।

দিনাজপুর জেলা জজ আদালতের স্পেশাল পিপি অ্যাড. শামসুর রহমান পারভেজ বলেন, গত বছরের সেপ্টেম্বরে জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। তাই বর্তমান কমিটির মেয়াদ এক বছর বাড়ানোর জন্য এই সাধারণ সভার আয়োজন করা হয়েছিল। কিন্তু সাব্কে কমিটির নেতারা সাধারণ সভায় এসে বাধা দেন।

জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. তহিদুল ইসলাম সরকার বলেন, গঠনতন্ত্র অনুযায়ী চৈত্র মাসে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। গত বছর করোনার কারণে নির্বাচনে পাঁচ মাস পিছিয়ে গত বছরের সেপ্টেম্বরে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। আজকে ফাল্গুন মাসের ১৯ তারিখ, আর মাত্র কয়েকদিন পরেই চৈত্র মাস এবং ওই মাসের প্রথম শনিবার নির্বাচন হওয়ার কথা। বর্তমান কমিটি মেয়াদ বাড়ানোর কোনও এখতিয়ার রাখে না। তাই এই অবৈধ সাধারণ সভা আমরা মানি না। আমরা এর প্রতিবাদ করতে গেলে তারা আমাদের উপর হামলা করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে তাৎক্ষণিকভাবে কথা বলেননি আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. সাইফুল ইসলাম।

আইনজীবী সমিতির বর্তমান সভাপতি অ্যাড. মাজহারুল হক সরকার বলেন, সাবেক কমিটি সন্ত্রাসী বাহিনীর দ্বারা আমাদের সভায় হামলা চালিয়েছে। এই ঘটনায় আমার ১২ জন্য সদস্য আহত হয়েছেন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। আমার সাধারণ সম্পাদকের উদ্দেশে এই হামলা চালানো হয়েছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমএম

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত