ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬ আপডেট : ২ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৭:৩৬

প্রিন্ট

শিশু বলৎকারের জরিমানা ৫ হাজার টাকা

শিশু বলৎকারের জরিমানা ৫ হাজার টাকা
ফাইল ছবি
রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার ৬নং লামচর ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামে বুধবার রাতে গ্রাম্য শালিসে মাতব্বররা ঈমন (১০) নামের এক এতিম শিশুকে বলৎকারের দায়ে লম্পট ইউসুফ মল্লিকের ৫ হাজার টাকা জরিমানা ও ১০ বেত্রাঘাত দিয়ে ছেড়ে দিয়েছে। কিন্তু বলৎকারের শিকার শিশুর মা ওই টাকা প্রত্যাখ্যান করে। এ নিয়ে এলাকাবাসীর মাঝে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

বলাৎকারে অভিযুক্ত ইউসুফ মল্লিব কালিকাপুর গ্রামের মল্লিক বাড়ির অলি আহম্মেদের পুত্র এবং ডাগ্গাতলী বাজারের ব্যবসায়ী। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে অভিযুক্ত ইউসুফ মল্লিক আত্মগোপনে রয়েছে।

সূত্রে জানায়, উপজেলার রসুলপুর গ্রামের হল্লিক বাড়ির এতিম শিশু ইমনকে ৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে পার্শ্ববর্তী কালিকাপুর গ্রামের মল্লিক বাড়ির ইউসুফ মল্লিক বুধবার বেলা ২টার দিকে বাড়ির পরিত্যক্ত বাগানে নিয়ে বলৎকার করে। এতে শিশু অসুস্থ অবস্থায় বসতঘরে ফিরে মা রিনা বেগমকে জানায়। মুহূর্তের মধ্যে বিষয়টি জানাজানি হলেও রাতে গ্রাম্য মাতব্বর কালিকাপুর গ্রামের ফজলু ভূঁইয়া, স্বপন ভূঁইয়া, দেওয়ান গোলাম মুক্তাদির, আমির হোসেন ও নূর আলমের নেতৃত্বে গ্রাম্য শালিস বৈঠক বসে। বৈঠকে বলৎকারের দায়ে অভিযুক্ত ইউসুফ মল্লিককে ৫ হাজার টাকা জরিমানা ও ১০ বেত্রাঘাত দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

শিশু ইমনের মা রিনা বেগম বলেন, বুধবার রাতে শালিস বৈঠকের পূর্বে মোহাম্মদিয়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই জসিম ও মাসুদ সহ ২/৩ জন পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। কিন্তু কিছু লোকজন পুলিশের ভয়ভীতি দেখানোর কারণে কাউকে কিছু বলতে পারি নাই। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বার বার যোগাযোগের চেষ্টা করেও অভিযুক্ত ইউসুফ মল্লিককে পাওয়া যায়নি।

তবে গ্রাম্য মাতব্বর আমির হোসেন বলেন, ঘটনাটি সমাধান দেওয়ার জন্য ইউসুফ মল্লিকের কাছ থেকে শালিষদাররা পুলিশকে দেওয়ার কথা বলে ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। ভিক্টিমের চিকিৎসার জন্য ৫ হাজার টাকা দিতে চাইলে শিশুর মা তা প্রত্যাখ্যান করে।

মোহাম্মদিয়া বাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এস.আই জসিম উদ্দিন বলেন, গ্রামের লোকজনের থেকে সংবাদ পেয়ে আমরা ২ অফিসার ওই বাড়িতে গেলে শিশুর মা কোন কথা বলতে রাজি হয়নি। তার পরেও আমি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি। আর ভিকটিম শিশু ও ইউসুফ মল্লিক সহ ২ পরিবারের কেউ কোন অভিযোগ না দেওয়ায় আমরা কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারি নাই।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত