ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭ আপডেট : ২৫ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৯:১৮

প্রিন্ট

চলচ্চিত্র নির্মাণে আশফাক নিপুণ, ছবির নাম ‘গোল্লা’

চলচ্চিত্র নির্মাণে আশফাক নিপুণ, ছবির নাম ‘গোল্লা’
বিনোদন প্রতিবেদক

চলতি সময়ে বাংলা নাটকের সবচেয়ে আলোচিত ও প্রশংসিত নির্মাতা আশফাক নিপুণ। তার নির্মাণ মানেই দর্শকদের অন্যরকম আগ্রহ। নাট্যঙ্গনে অস্থিরতার সময়েও তিনি উপহার দিয়েছেন নান্দনিক কাজ।

নতুন খবর হলো, ছোট পর্দার জনপ্রিয় এই নির্মাতা এবার আসছেন চলচ্চিত্র নির্মাণে। এরইমধ্যে সবকিছু চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে। ছবির নাম ‘গোল্লা’। পলিটিক্যাল জনরায় নির্মিতব্য ছবিটির গল্প ও চিত্রনাট্য তার নিজেরই করা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আশফাক নিপুণ নিজেই।

আশফাক নিপুণ বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, ‘এখনও অফিশিয়ালি কোন কিছুই ঘোষণা দেই নি। তবে চলচ্চিত্র নির্মাণ করছি এটা সত্য। এটা আমার প্রথম ছবি হতে যাচ্ছে। ছবির নাম ‘গোল্লা’। আমার সব কাজে গল্প ও চিত্রনাট্য আমারই থাকে। এই সিনেমাটির ক্ষেত্রেও তাই।

ছবিটির জন্য এখন মৌখিকভাবে অনেককেই চূড়ান্ত করে রেখেছি। ছবিতে কারা থাকবেন এবং পরবর্তী প্ল্যান, শুটিং সবকিছু জানুয়ারিতে অফিশিয়ালি ঘোষণা দিয়ে জানাবো। এখন পর্যন্ত বলতে পারি যারা আসলেই ভালো অভিনেতা-অভিনেত্রী তারাই থাকবেন আমার প্রথম ছবিতে। চমকটার জন্য আরও ২০ দিন অপেক্ষা করতে হবে।

চলচ্চিত্র, নাটক দুই জায়গা থেকেই শিল্পী থাকবেন এটা নিশ্চিত। মোটামুটি মাল্টিকাস্টিং বলা যায়। চলচ্চিত্র থেকেই বেশি সম্ভাবনা, নাটক থেকেও কিছু থাকবে, কিছু নতুনও থাকবে। সবকিছু মিলিয়ে একটা বড় পরিসরে কিছু করতে যাচ্ছি, সিনেমাটা আসলেই যেমন হয়।’

ছবির গল্প নিয়ে তিনি বলেন, এখনকার বাংলাদেশের রাজনৈতিক অবস্থা নিয়ে ছবিটির গল্প। পুরোপুরি পলিটিক্যাল থ্রীলারধর্মী চলচ্চিত্র হবে এটি। এখনকার সময়ে আমরা কি কি সমস্যার মধ্য দিয়ে যাচ্ছি, গল্পে এরকম কিছুই থাকবে।

টিভি পর্দায় তুমুল জনপ্রিয়তা অর্জন করে প্রথমবারের মত সিনেমা নির্মাণে আসছেন। নিজের উপর আত্মবিশ্বাসটা কতটুকু সিনেমা নিয়ে? এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, অনেক দিন ধরেই সিনেমা করবো করবো বলছি। এবার করে ফেলতে ফেলতে চাই, পরে কি হবে সেটা পরেই ভাববো।

২০২০ সালটা হয়তো সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির জন্য একটা নতুন সূচনাও হতে পারে। অনেকজনের কাছেই একটা কথা শুনেছি যে, আগামী বছর বাংলা সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির অনেক কিছুই হয়তো পরিবর্তন হবে। এরকম একটা ভাইভ শোনা যাচ্ছে চারিদিকে। যাদের সঙ্গেই কাজ করছি বা আলাপ করছি সবাই ধরেই নিয়েছে যে ২০২০ সালটা হয়তো আসলেই একটা টার্নিং পয়েন্ট হবে সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির জন্য। বলতে গেলে সেজন্যই আমি নির্ধারণ করেছি যে আগামী বছরেই আমি ছবিটা করবো। সেটা যেভাবেই হোক, করে ফেলবো।

তিনি আরও বলেন, ছোট পর্দার পর এবার বড় পর্দায় আসছি, এই চাপটা আমি নিতে চাচ্ছি না। দেখা যায় যে আমরা শুধু চাপটাই নিচ্ছি কিন্তু দিনশেষে কাজটাই হচ্ছে না। তাই আমি এই চাপটাই নিচ্ছি না। এই চাপটা নেওয়ার কারণেই আসলে সবার সিনেমায় আসতে দেরি হয়ে যায়। আমার গল্প প্রস্তুত কিনা, আমার দর্শক প্রস্তুত কিনা এসব ভাবতে ভাবতেই সময় চলে যায়, আর কাজটাই হয়ে উঠে না। আমার কথা হলো, আমার সেই ফিলটা আসছে আর চাপও নেই। তাই কাজটা করেই ফেলতে চাই।

বিষয়টা হচ্ছে আসলে বিয়ে করার মত। আপনি যদি আসলে বিয়ে করতে হবে সেই চাপটা মাথায় নিয়ে নেন তাহলে আপনার আর বিয়ে করা হবে না। তাই বিয়েটা করে ফেলতে হবে, এরপর যা, যেভাবেই আসুক না কেন সামলে নিতে হবে। আমার সিনেমা নিয়ে প্ল্যানটাও ঠিক এরমকমই। যোগ করেন নিপুণ। ‘গোল্লা’

প্রসঙ্গত, মুস্তফা সরোয়ার ফারুকীর ছবিয়ালের শিষ্য হয়ে নাট্যনির্মাণে এসেছেন আশফাক নিপুণ। নির্মাতা হিসেবে তার প্রথম নাটক ‘মায়া’। তিনি আলোচনায় আসেন তাহসান- মিথিলা কে নিয়ে নির্মিত নাটক ‘মধুরেণ সপায়েৎ’ দিয়ে। এরপর নির্মাণ করেন ল্যান্ডফোনের দিনগুলিতে প্রেম, সে এবং সে, সুখের ছাড়পত্র, অবাক ভালোবাসায়, খুঁটিনাটি খুনসুঁটি, ডাকাতিয়া বাঁশি, কমলা রাঙা রোদ, ছেলেটা কিন্তু ভালো ছিল, দ্বন্ধ সমাস, ফেরার পথ নেই, সোনালী ডানার চিল, এই শহরে, রেইনবো, মিস শিউলি, আগুন্তক, আল্পনা কাজল, হোয়াই সো সিরিয়াস, মিডলক্লাস সেন্টিমেন্টের মত বহু নাটক।

বাংলাদেশ জার্নাল/ আইএন

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত