ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬ আপডেট : ১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২২:১০

প্রিন্ট

কোন প্রাণী কতো ঘন্টা ঘুমায়

কোন প্রাণী কতো ঘন্টা ঘুমায়
জার্নাল ডেস্ক

মানুষ এবং অন্যান্য প্রাণীর দৈনন্দিন কর্মকাণ্ডের ফাঁকে বিশ্রাম নেওয়ার একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া ঘুম। সকল স্তন্যপায়ী ও পাখি এবং বহু সরীসৃপ, উভচর এবং মাছের মধ্যে ঘুমানোর প্রক্রিয়া লক্ষ্য করা যায়। মানুষ ও অন্যান্য স্তন্যপায়ী প্রানীর অস্তিত্ব রক্ষার জন্যে নিয়মিত ঘুম আবশ্যক।

চলুন এক নজরে দেখে নেই কোন প্রাণী কতো ঘন্টা ঘুমায়-

বাদুড়: নিশাচর প্রাণী বলে বাদুড়কে সারা দিন ঘুমিয়েই কাটাতে হয়। তাছাড়া বাদুর পুরো রাতও আবার জেগে কাটায় না। বাদুড় গড়ে সাড়ে ১৯ ঘণ্টা ঘুমায়।

অজগর: অজগর সাপ খুব ঘুমকাতুরে। বিরাট শরীরটা নিয়ে এটি প্রতিদিন গড়ে ১৮ ঘণ্টা ঘুমায়।

বাঘ: বাঘও কম ঘুমায় না। তাদের দিনে অন্তত ১৬ ঘণ্টার ঘুম দরকার।

কাঠবিড়াল: এমনিতে খুব চঞ্চল এই প্রাণী দিনের অন্তত ১৪ দশমিক নয় ঘণ্টা খুব শান্ত থাকে। কেন? কারণ, তখন তারা ঘুমিয়ে থাকে।

সিংহ: বনের রাজা সিংহ দিনে সাড়ে ১৩ ঘণ্টা নিশ্চিন্তে ঘুমায়।

ইঁদুর: সিংহের তুলনায় যত ছোট তত কম কিন্তু ঘুমায় না ইঁদুর। দিনে ১২ দশমিক ৬ ঘণ্টা ঘুমাতে পারলে ওরা চনমনে থাকে।

বিড়াল: সুযোগ পেলে বিড়াল দিনে সাড়ে ১২ ঘণ্টা ঘুমায়।

খরগোশ: বিড়ালের চেয়ে একটু কম ঘুমায় খরগোশ। তাদের দিনে অন্তত ১১ দশমিক ৪ ঘণ্টার ঘুম দরকার।

চিতা বাঘ: দিনে ১০ দশমিক আট ঘণ্টা ঘুমাতে হয় চিতা বাঘকে।

কুকুর: কুকুরের প্রতিদিন গড়ে সাড়ে ১০ ঘণ্টা ঘুমাতে হয়।

বেবুন: দিনে ১০ দশমিক তিন ঘণ্টা ঘুমায় বেবুন।

শিম্পাঞ্জি: শিম্পাঞ্জিকে দিনে অন্তত নয় দশমিক সাত ঘণ্টা ঘুমাতে হয়।

শূকর: শূকর দিনে সাত দশমিক আট ঘণ্টার মতো ঘুমায়।

ছাগল: ছাগল খুব কম ঘুমায়। দিনে মাত্র পাঁচ দশমিক তিন ঘণ্টা।

গরু: গরুর ঘুম আরো কম। তারা মাত্র তিন দশমিক নয় ঘণ্টা ঘুমায়।

হাতি: এশিয়ার হাতির মাত্র তিন দশমিক নয় ঘণ্টা ঘুমালেই চলে। আফ্রিকা অঞ্চলের হাতিকে সুস্থ থাকতে দিনে অন্তত তিন দশমিক তিন ঘণ্টা ঘুমাতে হয়।

ভেড়া: ভেড়া ঘুমায় তিন দশমিক আট ঘণ্টা করে।

গাধা: যেসব প্রাণী খুব কম ঘুমায় তাদের মাঝে গাধা অন্যতম। তারা দিনে মাত্র তিন দশমিক এক ঘণ্টা ঘুমায়।

ঘোড়া: সবচেয়ে কম ঘুমানো প্রাণীদের মধ্যে ঘোড়াকেও রাখতেই হবে, কারণ তারা ঘুমায় মাত্র দুই দশমিক নয় ঘণ্টা করে।

জিরাফ: জিরাফ দিনে ২২ দশমিক এক ঘণ্টা জেগে থাকে জিরাফ। বাকি মাত্র এক দশমিক নয় ঘণ্টা ঘুমায় তারা।

মানুষ: বিজ্ঞানীরা বলেন, সুস্থ থাকতে সব মানুষের দিনে অন্তত আট ঘণ্টা প্রয়োজন। কিন্তু ব্যক্তি বা বয়স ভেদে এর পরিমাণ বেশি কম হতে পারে।

সুস্থ থাকার জন্য মানুষ এবং অন্যান্য প্রাণীর ঘুম খুব জরুরি। তবে এই ঘুম হতে হবে যথাযথ। বিভিন্ন বয়সে ও প্রাণী ভেদে প্রয়োজনীয় ঘুমের সময় আলাদা হতে পারে; কিন্তু শারীরিক প্রক্রিয়াকে সচল ও কর্মক্ষম রাখার জন্য সব প্রাণীর নির্দিষ্ট সময় ঘুমাতে হবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত