ঢাকা, শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:২০

প্রিন্ট

আক্রমণাত্মক বিতর্ক নিয়ন্ত্রণে অসহায় উপস্থাপক

আক্রমণাত্মক বিতর্ক নিয়ন্ত্রণে অসহায় উপস্থাপক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

আগামী ৩ নভেম্বরের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে আগে স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ক্লিভল্যান্ডে প্রথম বিতর্কে মুখোমুখি হন রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ডেমোক্রেট প্রার্থী জো বাইডেন। এদিন সুপ্রিমকোর্টের মনোনয়ন, করোনা ভাইরাস মহামারি, বর্ণবাদ, জলবায়ু পরিবর্তন ও মেইলের মাধ্যমে ভোটদান নিয়ে বিতর্ক করেছেন ট্রাম্প ও বাইডেন। খবর সিএনএনের।

দেড় ঘন্টার এই বিতর্ককে ‘বিশৃঙ্খলপূর্ণ’ বলে অভিহিত করেছে সিএনএন। একে অপরকে তীব্রভাবে ব্যক্তিগত আক্রমণ করেন। দুজনকে সামলাতে হিমশিম খেতে হয়েছে উপস্থাপক ওয়ালেসকে। ট্রাম্পকে কয়েকবার ধমক দিয়ে চুপ করতে বলেন বাইডেন। এদিকে ট্রাম্প বারবার বাইডেনের কথার মধ্যে ঢুকে পড়েন। ক্রিস ওয়েলস এই সময় হাত উঁচিয়ে ট্রাম্পকে বলেন, ‘আপনি বিঘ্ন সৃষ্টি করছেন’। ট্রাম্প পাল্টা উত্তর বলেন, ‘তিনিও করছেন।’

বাইডেন এসময় ট্রাম্পকে ‘আপনি চুপ করবেন’ বলে ধমক দিয়ে বলেন, এটা প্রেসিডেন্সিয়ালসুলভ আচরণ নয়। বাইডেন এক পর্যায়ে দর্শকদের উদ্দেশ্যে বলে ওঠেন, ‘এই ভাঁড়টা কী করার চেষ্টায় আছে, সে বিষয়ে আপনাদের কোনো ধারণা আছে?’ এই সময় ট্রাম্পকে তিনি ‘দায়িত্বহীন, মিথ্যেবাদী, সঙ ও পুতিনের পোষা কুকুর’ বলেও আক্রমণ করেন। ট্রাম্প এগুলো শুনে ক্ষিপ্ত হয়ে পড়েন।

বিতর্কে মহামারী নিয়ে বাইডেন বলেন, করোনা নিয়ে প্রেসিডেন্টের কোনো পরিকল্পনা ছিল না। এর জবাবে ট্রাম্প বলেন, এটা ছিল চীনের ভুল। তবে আমরা দুর্দান্ত কাজ করেছি। এ সময় ট্রাম্প আরো বলেন, বাইডেন এমন পরিস্থিতিতে পুরো দেশ বন্ধ করে দিতেন এবং দেশকে অর্থনৈতিকভাবে ধ্বংস করে দিতেন। বাইডেন ক্ষমতায় থাকলে ১০ লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হতো।

দ্বিতীয় এবং শেষ বিতর্কটি অনুষ্ঠিত হবে ১৫ ও ২২ অক্টোবর। ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ও কমলা হ্যারিসের মধ্যে বিতর্ক অনুষ্ঠিত হবে ৭ অক্টোবর। ১৯৬০ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীদের বিতর্কের প্রথা চলে আসছে।

আরো পড়ুন: ট্রাম্পকে ‘পুতিনের কুকুর’ বললেন বাইডেন

বাংলাদেশ জার্নাল/নকি

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত