ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:৫১

প্রিন্ট

সরকারকে শেষবারের মতো সময় বেঁধে দিলো আপিল বিভাগ

আপিল বিভাগের অসন্তোষ
জার্নাল ডেস্ক

সংবিধানের পঞ্চম সংশোধনী বাতিলের পরও মুন সিনেমা হলের মালিক টাকা না পাওয়ায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন আপিল বিভাগ। আগামী ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে ক্ষতিপূরণের টাকা পরিশোধের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বেঞ্চ ক্ষতিপূরণ দিতে শেষবারের মতো সরকারকে এই সময় বেঁধে দেন।

আদালতে মামলার কার্যক্রমের বাইরের কথাবার্তা গণমাধ্যমে যাওয়া উচিত নয় বলেও মন্তব্য করেন আপিল বিভাগ।

২০০০ সালে পুরান ঢাকার ওয়াইজঘাটে মুন সিনেমা হলের মালিকের একটি রিটের পরিপ্রেক্ষিতে ২০০৫ সালে সংবিধানের পঞ্চম সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করেন উচ্চ আদালত। এ সময় মুন সিনেমা হলের মালিককে প্রায় ১০০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে সরকারকে নির্দেশ দেন যা বহাল রাখেন আপিল বিভাগ।

প্রসঙ্গত, মুন সিনেমা হলের মালিক ছিলো ইটালিয়ান মার্বেল ওয়ার্কস লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠান। কিন্তু ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় এটিকে পরিত্যক্ত সম্পত্তি হিসেবে ঘোষণা করা হয় যা পরে শিল্প মন্ত্রণালয় মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের অধীনে ন্যস্ত করে।

যদিও ইটালিয়ান মার্বেল ওয়ার্কস লিমিটেডের মালিক মাকসুদুল আলম এর মালিকানা দাবি করেছিলেন। পরে ১৯৭৭ সালে সেনাশাসক জিয়াউর রহমানের সামরিক ফরমানে বলা হয় সরকার কোন সম্পত্তিকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করলে তা আদালতে চ্যালেঞ্জ করা যাবে না।

এর প্রেক্ষাপটে ২০০০ সালে এসে ইটালিয়ান মার্বেল ওয়ার্কস লিমিটেড হাইকোর্টে একটি রিট করে পঞ্চম সংশোধনীকে চ্যালেঞ্জ করে এবং এর ধারাবাহিকতায় ২০০৫ সালের অগাস্টে হাইকোর্ট ১৯৭৫ এর পনেরই অগাস্টের পর খন্দকার মোশতাক আহমেদ, বিচারপতি আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম ও মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমানের ক্ষমতা গ্রহণকে অসাংবিধানিক ও বেআইনি ঘোষণা করে।

এ রায় রাজনৈতিক অঙ্গনে ব্যাপক ঝড় তোলে। তবে সুপ্রিম কোর্টও পরে ২০১০ সালে এ রায় বহাল রাখে ও মুন সিনেমা হল ইটালিয়ান মার্বেল ওয়ার্কস লিমিটেডকে ফেরত দেয়ার নির্দেশ দেয়।

কিন্তু তারপরেও মালিকানা ফেরত না পেয়ে আবারো আদালতের শরণাপন্ন হয় ইটালিয়ান মার্বেল ওয়ার্কস লিমিটেডের মালিক পক্ষ। তখন অ্যাটর্নি জেনারেলের তরফ থেকে আদালতে জানানো হয় যে মুন সিনেমা হল আগের অবস্থায় ফেরত দেয়ার উপায় নেই, তাই জমি ও কাঠামোর মূল্য ধরে মালিক ক্ষতিপূরণ পেতে পারে।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত