ঢাকা, বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬ অাপডেট : ৫ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ১৫:৪৯

প্রিন্ট

বিয়ের সাতরঙা শাড়ি

বিয়ের সাতরঙা শাড়ি
রিফাত পারভীন

বিয়ের নানা আয়োজনের মধ্যে নতুন বউয়ের শাড়ি কেনা অন্যতম। বিয়ের বিশেষ দিনের শাড়িটি হওয়া চাই চোখ ধাঁধানো। তবে আমাদের দেশে বেশ কিছু ধরণের শাড়ি জনপ্রিয় ও প্রচলিত। জেনে নিন কোন ধরণের শাড়ি আমাদের দেশের বিয়েতে বউরা বেশি পড়ে থাকেন এবং কেমন দামে পাবেন।

জামদানি

জামদানির নাম শুনে প্রথমেই মাথায় আসে আমাদের ঐতিহ্যের কথা। কারণ বাংলাদেশেই যে জামদানি শাড়ি জন্ম। যদিও জামদানি শাড়ির মধ্যে রয়েছে নানা রকম ধরণ। যার মধ্যে আছে হাফ সিল্ক এবং ফুল কটন। আর বিয়ের অনুষ্ঠানে বেশি ভাগ বউরাই হাফ সিল্ক জামদানি কিনে থাকেন। এই দুই ধরণের শাড়িই পেয়ে যাবেন ৫০০-৫০,০০০ টাকার মধ্যে। আর রঙের ক্ষেত্রে লাল, নীল, হলুদ, সবুজ, মেরুন, গোলাপি, সাদা ইত্যাদি বেশি প্রাধান্য পায় বউদের কাছে। ডিজাইনের ক্ষেত্রে অনেকেই সব জামদানিকে এক করে ফেলেন। তবে ডিজাইনের মধ্যে আছে দুবলাজাল, বলিহার, শাপলা ফুল, আঙ্গুরলতা, ময়ূরপ্যাচপাড়, কলমিলতা, চন্দ্রপাড়, ঝুমকা, ঝালর, ময়ূরপাখা, কল্কাপাড়, কচুপাতা, তেরছা, জলপাড়, পান্না হাজার, প্রজাপতি, শবনম, জবাফুলসহ আরো অনেক অনেক নাম।

বেনারসি

বেনারসি শাড়ি আমাদের দেশে সবচেয়ে বেশি পড়া হয় বিয়েতে। সিঁদুর লাল, মরিচ লাল, মিষ্টি লাল, লালচে মেরুন, কালচে মেরুন, নীল, রাণী ম্যাজেন্ডা, গাঢ় ম্যাজেন্ডা, গাঢ় গোলাপি, মিষ্টি গোলাপি, সবুজ, ফিরোজা, পেস্ট কালার বিয়েতে বউরা পড়ে থাকেন। বিভিন্ন রঙের সাথে কপার-গোল্ডেন সুতার কাজ, পাথর বসানো বা ফ্লোরাল প্রিন্ট বা কলকির মাঝে বিভিন্ন রঙের সুতা দিয়ে মিনা করা থাকে। বেনারসি শাড়ি একটু ভারি হয়ে থাকে। শাড়িতে পাথর ছাড়া ৩৫,০০-৩০,০০০ টাকার মধ্যে এবং পাথরসহ ৮০,০০০- ১,০০০০০ টাকার মধ্যে।

কাঞ্জিভরম

আমাদের দেশে কাশ্মীরি আর কাতান স্টাইলের কাঞ্জিভরম শাড়ি বউরা বেশি পড়ে থাকেন। এই শাড়িগুলো বেশি হয় গাঢ় পেস্ট, গাঢ় ম্যাজেন্ডা, হালকা ম্যাজেন্ডা, হালকা অ্যাশ, আকাশি, সবুজ ইত্যাদি রঙের। শাড়ি পেয়ে যাবেন ২৫,০০০-১,০০০০০ টাকার মধ্যে।

কাতান

সুতার কাজসহ পাথর বসানো, কলকি ও ফ্লোরাল প্রিন্টে, লাল, সবুজ, পেস্ট, রাণী ম্যজেন্ডা, সাদা, গোল্ডেন, ক্রিম, সবুজ, গাঢ় নীল, মেরুন, কালো, হলুদ, বাসন্তি, কমলা ইত্যাদি রঙের শাড়িগুলোতে নজরকাড়া পাড়ের ডিজাইন থাকে। বিভিন্ন কাতানের মধ্যে জর্জেট কাতান, মিরপুরীয় কাতান, অপেরা কাতান, পাছারা কাতান, তসর কাতান, মসলিন কাতান, স্বর্ণকাতান, ভেলভেট কাতান, পিওর কাতান, ফুলকলি কাতান, জুট কাতান, চেন্নাই কাতান ইত্যাদি। এই শাড়িগুলো ১৫০০-৪০,০০০ টাকার মধ্যেই পাওয়া যায়।

মসলিন

আমাদের দেশে বিয়েতে মসলিন শাড়ির কদর অনেক। বিশেষ করে রিসেপশনের দিন বউরা মসলিন শাড়ি পড়ে থাকেন। মিষ্টি, উজ্জ্বল আর হালকা রঙের হয়ে থাকে এই শাড়িগুলো। এই শাড়িগুলো ৩৫০০-৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে।

ছবি ইন্টারনেট

আরএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত
close
close