ঢাকা, রোববার, ৩১ মে ২০২০, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ আপডেট : ২২ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১১ মে ২০২০, ১৬:২৫

প্রিন্ট

অবশেষে ‘নির্বাচনে দাঁড়ানো’ নিয়ে মুখ খুললেন সাকিব

অবশেষে ‘নির্বাচনে দাঁড়ানো’ নিয়ে মুখ খুললেন সাকিব

Evaly

স্পোর্টস ডেস্ক

ক্রিকেটারেরা যে রাজনীতি করেন না, এমন নয়। দীর্ঘদিন রাজনীতির পর পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খান এখন দেশটির প্রধানমন্ত্রী। রাজনীতির মাঠ আর খেলার মাঠ, দু’টিই বড় জটিল হিসাবের মাঠ। পারফরম্যান্স কাকে কখন কোথায় নিয়ে যায়, তা বলা দুরূহ! তবে এ দুই মাঠে আছে ব্যাপক ফারাক।

মাশরাফি বিন মর্তুজা খেলা চালিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি রাজনীতি করছেন। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নড়াইল-২ আসন থেকে সংসদ সদস্যও নির্বাচিত হয়েছেন। ওই নির্বাচনে মাশরাফির পাশাপাশি নির্বাচনে দাঁড়ানোর কথা ছিল সাকিব আল হাসানেরও। কিন্তু নমিনেশন না পাওয়ায় রাজনীতিতে আসা হয়নি সাকিবের। বিষয়টি নিয়ে সাকিব কখনোই সরাসরি কথা বলেননি। তবে বলেছিলেন, সুযোগ পেলে তিনি খেলা চলাকালীন রাজনীতির মাঠে নামবেন।

আজ ডয়েচে ভেলের সাক্ষাৎকারে সাকিব জানালেন রাজনীতি নিয়ে তার ভাবনা। যদিও আগের মতই খুব একটা খোলাসা করলেন না সাকিব। সাকিব বলেছেন,‘আসলে কিছু জিনিস গোপন থাকাই ভালো। যে বিষয়টি জানতে চাচ্ছেন সেটা প্রকাশ পাওয়াই উচিত না! আমি যদি রাজনীতিতে আসি তাহলে সেটাও (২০১৮ সালে নমিনেশন পাওয়া) প্রকাশ পাবে না। আবার যদি না আসি সেটাও আসবে না।’

২০১৮ সালের নির্বাচনকালীন সময়ে জনশ্রুতি চালু ছিল যে, সাকিব আল হাসান নিজেই সংসদ সদস্য হওয়ার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন। এমনকি মাশরাফির সঙ্গে তিনিও মনোনয়নপত্র তুলতে চেয়েছিলেন। তখন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরামর্শে এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে দাঁড়ান সাকিব।

সাকিব নিজেও চান তার এই গোপন কথাটা কেউ না জানুক। কারণ সাকিবের চাওয়া, কিছু কৌতুহল থাকা ভালো। এই ব্যাপারে সাকিব বলেন, ‘এটা এমন একটি সিক্রেট যেটা চাইনা কখনো কেউ জানুক। কিছু কিছু জায়গা মানুষের কৌতূহল জাগানোর মতোই জায়গা। যে বিষয়টি নিয়ে কথা বলছেন সেখানেও মানুষের কৌতূহল থাকাই স্বাভাবিক। আমি যদি আমার জায়গা না থাকতাম তাহলে আমারও কৌতূহল জাগত। এই দুই-একটা কৌতূহল মানুষের মনে থাকার দরকার। সব কৌতূহল যদি আপনি প্রকাশ করে দেন তখন মানুষের আমাকে নিয়ে আগ্রহ থাকবে না। সেজন্য বলছি এটা নিয়ে আগ্রহ থাক।’

উপস্থাপক খালেদ মুহিউদ্দিন সাকিবকে প্রশ্ন করেছিলেন, ভবিষ্যতে এমপি, মন্ত্রী হওয়ার ইচ্ছা আছে নাকি? তার উত্তরে সাকিব জানালেন, ‘এগুলো সময়ের ওপর ছেড়ে দিতে হবে। ভবিষ্যতে কি হবে তা বলা খুব কঠিন। করোনাভাইরাসের সময় আমি এতোটুকু শিক্ষা পেয়েছি, কাল কি হবে সেটা নিশ্চিত নয়। এই জায়গা থেকে আমি বলতে চাই, খুব বেশি দূরের বিষয়ে আমি ফোকাস করতে চাই না। যদি সুযোগ আসে আমি স্বাগত জানাবো সত্যি কথা। যদি সুযোগ না আসে সেটা নিয়েও আমার আফসোস থাকবে না।’

বাংলাদেশ জার্নাল/এনএইচ
shopno
  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত