ঢাকা, রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭ আপডেট : ৯ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৯ আগস্ট ২০২০, ১৮:১১

প্রিন্ট

হাসপাতালে অভিযান নয়, ইনকোয়ারি হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

হাসপাতালে অভিযান নয়, ইনকোয়ারি হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক

হাসপাতালের অভিযান বন্ধের বিষয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, অভিযান বন্ধ হয়েছে এটা ঠিক নয়। এটা অভিযান কেন? হাসপাতালে অভিযান হবে না, ইনকোয়ারি (অনুসন্ধান) হবে। অভিযান তো হয় চিটাগাং হিল ট্র্যাক্টসে (পার্বত্যাঞ্চল), যেখানে সন্ত্রাসীরা থাকে।

রোববার সচিবালয়ে বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত ব্রিফিংয়ে সংবাদকর্মীদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, যেখানে (হাসপাতাল, ক্লিনিক ও স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান) অনিয়ম ও দুর্নীতি হবে সেখানে স্বাস্থ্য এবং স্বরাষ্ট্র– দুই মন্ত্রণালয় আলোচনা সাপেক্ষে আইনগতভাবে যা যা করা দরকার সে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এককভাবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কোথাও যাবে না। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করবে। প্রয়োজনে তাদের নিয়ে সেখানে যাওয়া হবে।

জাহিদ মালেক বলেন, আপনারা লক্ষ্য করেছেন, করোনায় মৃত্যুর হারটা ধীরে ধীরে কমে এসেছে। হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা পাওয়ার পাশাপাশি টেলিমেডিসিনের মাধ্যমে সারাদেশের রোগীরা চিকিৎসা গ্রহণ করছেন। প্রায় পাঁচ হাজার চিকিৎসক প্রতিদিন হাজার হাজার রোগীকে বাসায় থেকে করোনা চিকিৎসার বিষয়ে পরামর্শ দিচ্ছেন। জেলা ও উপজেলা পর্য়ায়ে বাড়ি বাড়ি ওষুধ পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। ৯০ শতাংশ রোগী বাসায় চিকিৎসা গ্রহণ করছেন। মুমূর্ষু না হলে হাসপাতালে আসছে না। ফলে হাসপাতালে ৬০ শতাংশ বেড ফাঁকা থাকছে। ফলে আক্রান্ত ও রোগীর সংখ্যা কমে গেছে।

একই দিন বিএমএ এবং বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক মালিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন স্বাস্থ্যসচিব আবদুল মান্নান। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের স্বাস্থ্যসেবা সংক্রন্ত নানা প্রশ্নের জবাব তিনি।

বেসরকারি হাসপাতাল মালিকদের কাছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নমনীয় কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে আবদুল মান্নান বলেন, অভিযান বন্ধ থাকবে না। অনিয়মের ক্ষেত্রে আমরা একটুও নমনীয় হব না। কিন্তু যেন সমন্বয় থাকে, সেজন্যই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেয়া হয়েছে। যেখানেই অনিয়মের গন্ধ পাব, অনিয়মের তথ্য পাব, আমরা সঙ্গে সঙ্গে সেখানে যাব। আমরা টাস্কফোর্স করে দিয়েছি। আমরা আমাদের ফোন নম্বর দেয়ার চিন্তা করছি। আমাদের ফোন করলে তাৎক্ষণিকভাবে টাস্কফোর্স এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তারাও যাবে।

তিনি বলেন, আমরা চাচ্ছি সমন্বয়টা যেন থাকে। আমরা যেন এমনটা না করি, সকালে বিকালে রাতে একই জায়গায় সবাই একসাথে গিয়ে রাশ না করি। এতে স্বাস্থ্যসেবায় ব্যাঘাত ঘটবে। নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে হাসপাতালের লাইসেন্স নবায়নের আবেদন না করলে ওই হাসপাতালের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত