ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৭ আশ্বিন ১৪২৭ আপডেট : ০১ জানুয়ারি, ১৯৭০ English

প্রকাশ : ১৪ আগস্ট ২০২০, ১৮:৪০

প্রিন্ট

এমপির নেতৃত্বে শোক দিবস পালনে প্রস্তুত রামগঞ্জ

এমপির নেতৃত্বে শোক দিবস পালনে প্রস্তুত রামগঞ্জ
ফাইল ছবি
রামগঞ্জ প্রতিনিধি

স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদৎবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালনে লক্ষ্মীপুর-১ (রামগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ড. আনোয়ার হোসেন খানের নেতৃত্বে উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গসংগঠন প্রস্তুত।

ড. আনোয়ার খানের নিজ অর্থায়নে প্রতিবছর ১০ ইউনিয়নে ১০টি গরু এবং পৌরসভায় ৪টি গরু দেয়া হলেও এবার বৈশ্বিক মহামারী করোনার কারণে তিনি ব্যক্তিগত তহবিল থেকে প্রত্যেক ইউনিয়নের জন্য ৫০ হাজার করে ৫ লাখ এবং পৌরসভার জন্য ১ লাখ টাকা দিয়েছেন।

অভিযোগ রয়েছে, শফিক মাহমুদ পিন্টু উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হওয়ার পর গত তিন বছর থেকে ঢাকায় বসবাস করে আসছেন। তিনি জাতীয় এবং দলীয় প্রোগ্রামগুলোতে কোন সহযোগীতা না করায় তৃণমূল আওয়ামী লীগে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৫ আগস্ট শফিক মাহমুদ পিন্টু উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হওয়ার পর থেকে তৃণমূল আওয়ামী লীগের সাথে কোন সর্ম্পকই রাখছেন না। এমনকি তিনি দলীয় এবং জাতীয় প্রোগ্রামগুলোতে উপস্থিত না থেকে ঢাকায় নিজের ব্যবসা বাণিজ্য করছেন।

এদিকে স্থানীয় সংসদ সদস্য ড. আনোয়ার হোসেন খানের নেতৃত্বে দলের সাধারণ সম্পাদক আ.ক.ম রুহুল আমিন, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বেলাল আহম্মেদ, ১০ ইউপি চেয়ারম্যান, পৌরসভার ৯ কাউন্সিলর, উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, সেচ্চাসেবকলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ, শ্রমিকলীগসহ তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে সকল প্রোগ্রাম সফলতার সাথে পালন করে আসছেন।

গত ৬ বছর থেকে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গসংগঠনকে ঐক্যবদ্ধ রেখে বিএনপির ঘাটি নামক রামগঞ্জ উপজেলাকে রূপান্তরিত করেছেন আওয়ামী লীগের ঘাটিতে। স্বাধীনতার পর এই প্রথম নৌকা মার্কা নিয়ে বিপুল ভোটে এমপি নির্বাচিত হয়েছেন সংসদ সদস্য ড. আনোয়ার হোসেন খান।

ভাদুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদ হোসেন ভুঁইয়াসহ তৃণমূলের কয়েকজন নেতা জানান, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা এ্যানী চৌধুরীর ভগ্নিপতি শফিক মাহমুদ পিন্টুকে দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে দেয়ায় উপজেলা আওয়ামী লীগসহ তৃণমূল আওয়ামী লীগের সাথে দূরত্ব সৃষ্টি হয়েছে। তাই তিনি রামগঞ্জে আসেন না এবং জাতীয় প্রোগ্রামে উপস্থিত থাকেন না।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ.ক.ম রুহুল আমিন জানান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির কোন দিকনির্দেশনা বা সহযোগীতা না পেলে স্থানীয় সংসদ সদস্য ড. আনোয়ার খানের অর্থায়নে এবং পত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সহযোগীতা করায় তার নেতৃত্বে গত তিন বছর থেকে সকল প্রোগ্রাম সফলভাবে পালন করা হয়েছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট শফিক মাহমুদ পিন্টুর মোবাইলে বারবার চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

সংসদ সদস্য ড. আনোয়ার হোসেন খান জানান, কে কি করলো বা না করলো এটা আমার জানার দরকার নেই। জননেত্রী শেখ হাসিনার সৌজন্যে গত ৬ বছর থেকে রামগঞ্জের অসহায় মানুষের জন্য মৌসুম অনুযায়ী চাল-ডাল, সেমাই-চিনি, ইফতারিসহ নগদ অনুদান দিয়ে আসছি।

তিনি বলেন, আমরা ভাগ্যবান জাতি বঙ্গবন্ধুর মতো একজন মহান নেতা পেয়েছি। এ মহামানবের জন্ম না হলে বাংলাদেশ নামের একটি রাষ্ট্র পৃথিবীর মানচিত্রে স্থান পেত না। কিন্তু কিছু সংখ্যক পাকিস্তানের দোসর, মীর জাফররা ১৯৭৫ সালে ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করে। আমরা বাঙালিরা আজো তার স্বপ্ন ও আদর্শ বুকে ধার করে আছি। আমি জাতির জনকের শাহাদাৎবার্ষিকীতে বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছি।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত