ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭ আপডেট : ৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০২ অক্টোবর ২০২০, ০১:৩৮

প্রিন্ট

কিস্তির টাকা চাওয়ায় ব্যাংক কর্মকর্তাকে হত্যা

কিস্তির টাকা চাওয়ায় ব্যাংক কর্মকর্তাকে হত্যা
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে কিস্তির টাকা চাওয়ায় টাকা না দিয়ে নুরুজ্জামান (৩৮) নামের গ্রামীন ব্যাংকের সুপারভাইজারের গলা কেটে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আরো পড়ুন: করোনায় দুর্নীতির শীর্ষে কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ

বৃহস্পতিবার (০১ অক্টোবর) উপজেলার ফিলিপনগর দফাদার পাড়া গ্রামের মমিন দফাদারের বাড়ির টয়লেটের দরজা ভেঙ্গে নুরুজ্জামানের মরদেহ উদ্ধার করে দৌলতপুর থানা পুলিশ।

নিহত নুরুজ্জামান গ্রামীণ ব্যাংক হোসেনাবাদ শাখায় সুপারভাইজার হিসাবে কর্মররত ছিলেন। সে খলিশাকুন্ডি ইউনিয়নের কামালপুর গ্রামে আব্দুল মোতালেবের ছেলে।

গ্রামীণ ব্যাংক হোসেনাবাদ শাখার ব্যবস্থাপক মোঃ সালাউদ্দিন জানান, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৭ টার দিকে নুরুজ্জামান কিস্তি আদায়ের জন্য দফাদারপাড় ১২ নং কেন্দ্রে যায়। সেখানে মমিন দফাদারের স্ত্রী হীরা খাতুনের অনেকগুলো কিস্তি বাকি থাকায় তার সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে মমিন দফাদার নুরুজ্জামান কে বাড়ির ভিতরে ডেকে নিয়ে গলা কেটে হত্যা করে টয়লেটের মধ্যে ফেলে রেখে বাড়িতে তালা ঝুলিয়ে সকল সদস্য পালিয়ে যায়।

নুরুজ্জামানের চাচাতো ভাই শাওন জানান, সন্ধ্যা হলেও তার কোন খোঁজ না পেয়ে হোসেনাবাদস্থ ব্যাংকে আসলে জানাযায় সে কিস্তি আদায় করতে গিয়ে আর ফেরৎ আসেনি। এরপর থানায় খবর দিলে ব্যাপক অনুসন্ধান করে ঐ বাড়ির দরজা ভেঙ্গে টয়লেট থেকে গলাকাটা অবস্থায় নুরুজ্জামানের মৃতদেহ উদ্ধার করে।

দৌলতপুর থানার ওসি জহুরুল আলম জানান, অনেক খোঁজাখুজির পর মমিন দফাদারের বাড়ির তালা ভেঙ্গে টয়লেটের ভিতর থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকেই মমিন দফাদারের বাড়ির সকলেই পলাতক রয়েছে। হত্যাকারীদের ধরতে তৎপরতা চালানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমএম

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত