ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ১০ বৈশাখ ১৪২৮ আপডেট : ১৮ মিনিট আগে

প্রকাশ : ০৩ নভেম্বর ২০২০, ১৮:৪৫

প্রিন্ট

জেলায় জেলায় জেলহত্যা দিবস পালিত

জেলায় জেলায় জেলহত্যা দিবস পালিত

জার্নাল ডেস্ক

আজ ৩ নভেম্বর জেলহত্যা দিবস। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ’৭৫ এর ১৫ আগস্ট সপরিবারে হত্যার পর জাতির ইতিহাসে এটি দ্বিতীয় কলংকজনক অধ্যায়। ১৫ আগস্টের নির্মম হত্যাকাণ্ডের পর তিন মাসেরও কম সময়ের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম বীর সেনানী ও চার জাতীয় নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দিন আহমেদ, এএইচএম কামারুজ্জামান এবং ক্যাপ্টেন মনসুর আলীকে এই দিনে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। এর আগে ১৫ আগস্টের পর এই চার জাতীয় নেতাকে কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়।

জাতি আজ মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম বীর সেনানী ও চার জাতীয় নেতাকে যথাযথ শ্রদ্ধা প্রদর্শনের মাধ্যমে দেশের ইতিহাসের অন্যতম বর্বরোচিত এই কালো অধ্যায়টিকে স্মরণ করছে। জেলায় জেলায় পালিত হয়েছে নানান কর্মসূচি। জেলা সংবাদদাতাদের পাঠানো তথ্য বাংলাদেশ জার্নালের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।

পাবনায় জেলহত্যা দিবস পালিত

জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার সকালে পাবনা জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে জাতীয় চারনেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পনের মাধ্যমে গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন পাবনা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. তসলিম হাসান সুমন, সহ-সভাপতি মোঃ শামসুর রহমান, জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক তৌফিকুল আলম তৌফিক, সদর থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ রাসেল আলী মাসুদ, পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান এপ্রিল প্রমুখ।

জেলা ছাত্রলীগও জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে নানা কর্মসূচি পালন করে। দিবসটি উপলক্ষে মঙ্গলবার সকালে জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে দলীয় কার্যালয়ে দলীয় পতাকা অর্ধনমিত ও কালো পতাকা উত্তোলন এবং জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। বাদ যোহর সরকারি এডওয়ার্ড কলেজ জামে মসজিদে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মাহফিলে বঙ্গবন্ধুসহ জাতীয় চার নেতার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক তাজুল ইসলাম, সহ -সভাপতি সাদ্দাম হোসেন, সহ -সভাপতি মোঃ জুনায়েদ উদ্দিন জনি, সহ- সভাপতি হারুন অর রশিদ, সহ-সভাপতি সেজান রেজা প্রমুখ।

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পাবিপ্রবি) জেলহত্যা দিবস পালন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে দুপুর ১২টায় করোনাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষে উপাচার্য প্রফেসর ড. এম রোস্তম আলী, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মোঃ আনোয়ার খসরু পারভেজ ও অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার বিজন কুমার ব্রহ্ম স্বাধীনতা চত্বরে বঙ্গবন্ধুসহ জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

এসময় আরো শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করেন শিক্ষক সমিতি, অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন, কর্মচারী সমিতি, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, প্রক্টর অফিস, ছাত্র উপদেষ্টা দপ্তর, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল প্রশাসন, রসায়ন পরিবার, সমাজকর্ম সমিতি, লোকপ্রশাসন সমিতিসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন।

শ্রদ্ধাজ্ঞাপন শেষে উপাচার্য ড. এম রোস্তম আলী শহীদদের স্মরণে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, মুক্তিযুদ্ধের বিজয় ও চেতনাকে চিরতরে বাঙ্গালির হৃদয় থেকে মুছে দেওয়ার জন্যই বঙ্গবন্ধুকে হত্যার ধারাবাহিকতায় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে এই নির্মম হত্যাযজ্ঞ চালানো হয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিশ্বস্ত সহচর ও চার জাতীয় নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দিন আহমেদ, ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী ও এএইচএম কামারুজ্জামানকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।

জেলহত্যা দিবসে টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধীতে শ্রদ্ধা

জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাডায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধীতে শ্রদ্ধা জানিয়েছে জেলা প্রশাসন, আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় জেলা প্রশাসনের পক্ষে থেকে জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা বঙ্গবন্ধুর সমাধী সৌধ বেদীতে পুস্পস্তবক অর্পন করে গভীর শ্রদ্ধা জানান। এরপর আলাদাভাবে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ, পৌর আওয়ামী লীগ, কৃষক লীগ ও ছাত্রলীগ ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়।

পরে বঙ্গবন্ধু, পরিবারের নিহত সদস্য ও জাতীয় চার নেতার রুহের মাগফেরাত কামনা করে ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন তারা।

এসময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কাজী শহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোসা: শাম্মী আক্তার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ.কে.এম, হেদায়েতুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) দিদারুল ইসলাম, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল বাশার খায়ের, সাধারণ সম্পাদক মো: বাবুল শেখ, সাবেক সভাপতি ইলিয়াস হোসেন, ‌উপজেলা চেয়ারম্যান সোলায়মান বিশ্বাস, পৌর মেয়র শেখ আহম্মেদ হোসেন মির্জা, ‌পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ সাইফুল ইসলাম, ‌সাধারণ সম্পাদক ফোরকান বিশ্বাস, যুব মহিলা লীগের সভাপতি কাজী জোনাকি, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক শেখ বাবুল হোসেন, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি নুরুল ইসলামসহ জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে, দিবসটি উপলক্ষে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি নাদের আলী মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আয়নাল হোসেন শেখ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান হাওলাদার, গোলাম কিবরিয়া দাড়িয়া, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ লুৎফর রহমান, আওয়ামী লীগ নেতা কবিরুল ইসলাম রুনি, রুহুল আমিন খান, উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম তালুকদার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম পটু, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহবায়ক বাবলু হাজরা, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান মুন, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বক্তব্য রাখেন। পরে বঙ্গবন্ধু, পরিবারের নিহত সদস্য ও জাতীয় চার নেতার রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্টিত হয়।

সাতক্ষীরায় জেলহত্যা দিবস

জেল খানায় নিহত জাতীয় চার নেতার স্মরণে সাতক্ষীরা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধু পাঠাগারসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষে ৩রা নভেম্বর জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান করেছে।

মঙ্গলবার বেলা ১১টায় সাতক্ষীরা বঙ্গবন্ধু পাঠাগারে পর্যায়ক্রমে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা ২ আসনের সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি।

এসময় জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ফিরোজ কামাল শুভ্র, সাবেক প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক শেখ নুরুল হক, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এ্যাড. ফরিদা আক্তার বানু, সাধারণ সম্পাদক জ্যোৎসনা আরা সহ আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ঝালকাঠিতে জেলহত্যা দিবস

ঝালকাঠিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় জেলহত্যা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে মঙ্গলবার সকালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ঝালকাঠি জেলা আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

পরে দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সরদার মো. শাহআলমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য দেন, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক তরুন কুমার কর্মকার, সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিল, পৌর মেয়র লিয়াকত আলী তালুকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক হাফিজ আল মাহামুদ, জেলা যুবলীগ আহবায়ক রেজাউল করিম জাকির, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

আলোচনা সভা শেষে চার জাতীয় নেতা এবং বঙ্গবন্ধুসহ ১৫ আগষ্টের শহীদদের আত্মার প্রতি মাগফেরাত কমানা করে দোয়া মোনাজাত করা হয়।

টাঙ্গাইলে জেলহত্যা দিবস পালিত

জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে টাঙ্গাইলে জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনেরে নেতারা।

মঙ্গলবার সকালে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে ও শহরের শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যানে জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

এতে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সংসদ সদস্য জোয়াহেরুল ইসলাম (ভিপি জোয়াহের)। এ সময় উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান আনছারী, সহ-সভাপতি এম এ রকীব, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নাহার আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক সুভাষ চন্দ্র সাহা, দপ্তর সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম রফিক প্রমুখ।

পরে ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

গাজীপুরে জেলহত্যা দিবস পালিত

গাজীপুরের কাপাসিয়ায় যথাযথ মর্যাদায় জেলহত্যা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় তাজউদ্দীন প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়ে চার নেতাকে স্মরণ করা হয়।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমানত হোসেন খান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসমত আরা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার বজলুর রশিদ মোল্লার নেতৃত্বে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

এর আগে কাপাসিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ অন্যান্যরা বনানীতে বঙ্গতাজের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়।

নোবিপ্রবিতে জেলহত্যা দিবস পালিত

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) যথাযোগ্য মর্যাদা, শ্রদ্ধা ও ভাবগাম্ভীর্যে জেলহত্যা দিবস পালিত হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে এ উপলক্ষে নোবিপ্রবি পরিবারের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম শহিদদের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানিয়ে কেদ্রীয় শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করন।

এরপর নোবিপ্রবি শিক্ষক সমিতি ও অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। সর্বশেষ শহিদ মিনার প্রাঙ্গনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: দিদার-উল-আলম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, নোবিপ্রবি কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফারুক উদ্দিন, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর, সাধারণ সম্পাদক মো. মজনুর রহমান, অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মেজবাহ উদ্দিন পলাশ।

এছাড়াও অন্যান্যদর মাঝে উপস্থিত ছিলেন, নোবিপ্রবি বিভিন্ন অনুষদসমূহের ডিন, ইনস্টিটিউটসমূহের পরিচালক, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যানবৃন্দ, হলের প্রভোস্টবৃন্দ, দপ্তরসমূহের পরিচালকবৃন্দ, শিক্ষক সমিতি ও অফিসার্স সমিতির অন্যান্য নেতৃবৃন্দ এবং ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত