ঢাকা, রোববার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭ আপডেট : ২৮ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি ২০২১, ২০:১৭

প্রিন্ট

বাবার নামে স্টেডিয়ামে খেলা উদ্বোধন করলেন প্রতিমন্ত্রী

বাবার নামে স্টেডিয়ামে খেলা উদ্বোধন করলেন প্রতিমন্ত্রী
ছবি: সংগৃহীত

গাজীপুর প্রতিনিধি

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি বলেছেন, বুধবার গাজীপুরের শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের ফুটবল খেলা শুরু হয়েছে। এটি গাজীপুরের ইতিহাসে প্রথম একটি বড় আয়োজন। এখানে ফুটবল আয়োজন করতে পেরে আমরা খুব গর্বিত ও আনন্দিত। গাজীপুর বাসীর জন্য সামনে আরো শুভ মুহূর্ত অপেক্ষা করছে। এই প্রথম বিপিএল ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজন হওয়ায় সকলের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন প্রতিমন্ত্রী।

বুধবার বিকেলে গাজীপুরের টঙ্গীতে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়ামে পেশাদারী ফুটবল টুর্নামেন্ট বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ফুটবল লীগের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি বলেছেন, শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়ামটি আর্চারীর জন্য বরাদ্দ ছিলো। আর্চারী এবং ফুটবল ফেডারেশনের সমন্বয়ে প্রতি সপ্তাহে একটি করে ম্যাচ আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে এবং সেই আলোকে এই স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের খেলা শুরু হলো।

খেলার মাঠের সুযোগ সুবিধা অপ্রতুল উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এটি আর্চারী খেলার জন্য বরাদ্দ ছিলো। আর্চারীর জন্য যেভাবে প্রয়োজন এটা সেভাবেই তৈরি করা হয়েছিলো। ফুটবল খেলার জন্য ফিফা বা ফেডারেশনের জন্য যে নিয়ম নীতি প্রয়োজন, সাংবাদিকদের বসার জন্য স্পেসসহ সুযোগ সুবিধা অপ্রতুল রয়েছে। তবে এ ধরনের বড় আয়োজন করতে হলে এসব সুযোগ সুবিধা বাড়াতে হবে। এজন্য এই স্টেডিয়ামে আমরা বড় একটি বরাদ্দ দিয়েছি যেটি অনুমোদন হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী রাসেল বলেন, ঢাকার পাশেই এই স্টেডিয়ামটি হওয়ায় খেলোয়াড়রা খেলে সহজে ঢাকায় ফিরে যেতে পারছে। এ ধরনের একটি আয়োজন গাজীপুরের জন্য অত্যন্ত ফলপ্রসূ হবে। এক সময় গাজীপুর থেকে ফুটবলের অধিনায়কসহ অনেক কৃতি খেলোয়াড়রা জাতীয় পর্যায়ে খেলেছেন। অনেক ভালো খেলোয়াড় তৈরি হয়েছে। ইদানীং এই ধারা কিছুটা কমে গেলেও এই ধরনের আয়োজনের মধ্যদিয়ে ফুটবলে নতুন করে জাগরণ তৈরি হবে, অনেক ভালো খেলোয়াড় তৈরিতে উৎসাহিত হবে। ফুটবল ফেডারেশন যাতে আলাদা করে ফুটবলের জন্য স্টেডিয়াম পেতে পারে সেজন্য আলাপ আলোচনা চলছে, এটা যেন তারা পায় সেজন্য ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ফুটবল ফেডারেশনের সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম মোর্শেদী জানান, কোভিড-১৯ এর মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চারটি স্টেডিয়ামে পেশাদার ফুটবল টুর্ণামেন্ট আয়োজন সম্পন্ন হওয়ায় আমরা খুশি। খেলার মাঠ দেশের সবার, কোন নির্দিষ্ট কারো জন্য নয়। আর্চারী আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ভালো করেছে এবং তাদের জন্য আরো সুযোগ অপেক্ষা করছে। শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়ামের জন্য সরকার আরো ২৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। আন্তর্জাতিক মানের ফুটবল খেলার জন্য যেসব সুযোগ সুবিধা থাকার দরকার তার সবই এখানে হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ফুটবল ফেডারেশনের সদস্য নূরুল ইসলাম নূরু, সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলরসহ আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী ও স্থানীয় বিপুল সংখ্যক দর্শক উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনী পর্বে উত্তর বারিধারা ক্লাবের সঙ্গে ব্রাদার্স ইউনিয়নের ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। এতে দুটি দলের মধ্যে ৩-৩ গোলে ম্যাচ ড্র হয়। এখানে ১২টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত