ঢাকা, শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ আপডেট : ৭ মিনিট আগে

প্রকাশ : ১১ এপ্রিল ২০২১, ১৩:৫১

প্রিন্ট

আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, নিহত ২

আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, নিহত ২
এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মতায়েন

বরিশাল প্রতিনিধি

বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ উলানিয়া ইউনিয়নের সুলতানী গ্রামে আওয়ামী লীগ ও বিদ্রোহী প্রার্থীর মধ্যে আধিপত্য বিস্তারের জের ধরে সংঘর্ষে দুইজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১০ জন।

রোববার ভোরের দিকে এ সংঘর্ষে ১০ থেকে ১২টি ঘর ও দোকানপাট ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

ঘটনার পর এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। সম্প্রতি স্থগিত হওয়া উলানিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে।

নিহতরা হলেন- আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রুমা বেগমের সমর্থক সাইফুল সরদার (৩০) ও আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী মিলন চৌধুরীর চাচাতো ভাই সাঈদ চৌধুরী (৩৫)।

সাইফুলের স্ত্রী খাদিজা বেগম জানান, উলানিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে তারেক সরদারগংদের সাথে মিলন চৌধুরী, মিজান মোল্লা, নোমান মোল্লাগংদের দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলছে। এই বিরোধকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের মধ্যে একাধিক হামলা-মামলার ঘটনা ঘটেছে। এরই ধারাবাহিকতায় ভোররাতে মিলন চৌধুরী, মিজান মোল্লা, নোমান মোল্লার নেতৃত্বে শতাধিক কথিত সন্ত্রাসীরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে কালীগঞ্জ বাজার এবং আশপাশ এলাকার বাড়িঘরে অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় তাদের ধারালো অস্ত্রের কোপে সাইফুল ইসলাম নিহত এবং হাবু সরদার (৩০), জহিরুল ইসলাম (৩২) ও রত্তন সরদার(৫০) গুরুতর জখম হয়।

ভাঙচুর করা হয়েছে ঘরবাড়ি ও দোকানপাট

তিনি বলেন, সন্ত্রাসীরা কয়েকটি বাড়ি ভাঙচুর করে মালামাল লুট করে নিয়ে যাওয়ার সময় অহিদ হাওলাদার ও হাসান আলী হাওলাদার নামের দুই হামলাকারীকে আটক করেন স্থানীয়রা।

নিহত সাঈদের চাচাতো ভাই মিলনের আপন ছোট ভাই মিল্টন চৌধুরী বলেন, গভীর রাতে রুমা বেগমের সন্ত্রাসী বাহিনী অতর্কিতে হামলা চালায়। এ সময় সন্ত্রাসী তারেক সরদার, মোশারেফ, রাকিব ও আলমগীরসহ ১০/১২ জন মিলে সাঈদকে কুপিয়ে হত্যা করে। সন্ত্রাসীরা সাঈদের ঘরবাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়।

দক্ষিণ উলানিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান লিটন বলেন, রাত ৪টার দিকে কয়েকশ’ লোক একত্রিত হয়ে দেশীয় অস্ত্র সহকারে ওই গ্রামে হামলা চালায়। এ সময় হামলাকারীরা ওই এলাকার দোকান ও ঘরবাড়ি ভাঙচুর করে। ওই এলাকার বাসিন্দারা প্রতিরোধ করতে গেলে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে দুইপক্ষের দুইজন নিহত হয়। কমপক্ষে ১০-১২ জন আহত হয়।

হাবিবুর রহমান লিটন বলেন, হামলাকারীরা উলানিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা। হামলাকারীরা চেয়ারম্যান প্রার্থী মিলন চৌধুরীর লোক বলে দাবি করেন তিনি।

এ ব্যাপারে মেহেন্দিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম জানান, দক্ষিণ উলানিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মিলন চৌধুরী এবং স্বতন্ত্র ও বিদ্রোহী প্রার্থী রুমা বেগমের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে ২ জন নিহত এবং বেশকিছু আহত ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন জানান, ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত