ঢাকা, শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬ আপডেট : ২ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ৩১ জুলাই ২০১৯, ১৯:৫৬

প্রিন্ট

রাজস্ব আদায়ে প্রবৃদ্ধির হার ১১ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন

রাজস্ব আদায়ে প্রবৃদ্ধির হার ১১ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন
নিজস্ব প্রতিবেদক

২০১৮-১৯ অর্থবছরে ২ লাখ ২৩ হাজার ৮৯২ কোটি ৪২ লাখ টাকার রাজস্ব আদায় করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এ হিসেবে প্রবৃদ্ধির হার ১০ দশমিক ৭ শতাংশ, যা গত ১১ অর্থবছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। এছাড়া এ আয় ১২ মাসের রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২০ শতাংশ কম। বুধবার রাজধানীর সেগুনবাগিচার কার্যালয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া সাংবাদিকদের সামনে সদ্য বিগত অর্থবছরের রাজস্ব আদায়ের যে পরিস্থিতি তুলে ধরেছেন, তাতে এ চিত্র ফুটে উঠেছে।

মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া জানান, রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে ২০০৯-১০ অর্থবছরে প্রবৃদ্ধি হয়েছিল ১৮ দশমিক ১ শতাংশ, ২০১০-১১ অর্থবছরে হয়েছিলো ২৮ শতাংশ, ২০১১-১২ অর্থবছরে ১৯ দশমিক ৭ শতাংশ, ২০১২-১৩ অর্থবছরে ১৪ দশমিক ৮ শতাংশ, ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ১০ দশমিক ৭ শতাংশ, ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ১২ দশমিক ৩ শতাংশ, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ১৩ দশমিক ২ শতাংশ, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ১১ দশমিক ৭ শতাংশ, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ১৭ দশমিক ৯ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন হয়েছিল।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, বিভিন্ন সেক্টরের ভ্যাট অব্যাহতি, বিভিন্ন পণ্য আমদানিতে শুল্ক, আয়কর অব্যাহতি দেওয়া ও বড় বড় প্রকল্প চালু করায় গতবছর রাজস্ব আদায়ের প্রবৃদ্ধি কমেছে।

তিনি আরও বলেন, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে আয়করে ৭২ হাজার ৮৯৯ কোটি ৯০ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে, যা মোট রাজস্বের ৩২ দশমিক ৬ শতাংশ। এর মধ্যে ভ্যাট থেকে ৮৭ হাজার ৬১০ কোটি ৩৬ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে, যা মোট রাজস্বের ৩৯ দশমিক ১ শতাংশ। কাস্টমস থেকে রাজস্ব আদায় হয়েছে, ৬৩ হাজার ৩৮২ কোটি ১৬ লাখ টাকা। যা মোট রাজস্বের ২৮ দশমিক ৩ শতাংশ। টাকার পরিমাণে অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেলেও প্রবৃদ্ধির হারে তা কম।

এদিকে চলতি অর্থবছরের জন্য পাঁচ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকার বাজেট পাস হয়েছে। সম্ভাব্য এ ব্যয়ের ৭২ শতাংশ রাজস্ব খাত থেকে পাওয়ার আশা করছে সরকার। বাজেটে রাজস্ব খাতে আয় ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা। এই অঙ্ক বিদায়ী অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের ১৯ শতাংশের বেশি।

রাজস্ব আদায়ের এই লক্ষ্যমাত্রা আহরণ সম্ভব কিনা জানতে চাইলে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, চলতি অর্থবছর থেকে ভ্যাট আইন বাস্তবায়নের ফলে ভ্যাট আদায় উল্লেখযোগ্য হারে বাড়বে। তাছাড়া রাজস্ব আহরণ জোরদারকরণে এর মধ্যেই আমদানি পর্যায়ে ৫ শতাংশ আগাম কর আরোপ করা হয়েছে। করনেটকে ভিত্তি করে রাজস্ব আহরণ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত রয়েছে সরকারের। নতুন ১ কোটি করদাতা তৈরির লক্ষ্য সামনে রেখে চলতি অর্থবছরে ৬ লাখ ৭২ হাজার নতুন করদাতাকে করনেটের আওতায় আনতে প্রস্তুতি চলছে।

এভাবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের মাধ্যমে কর হিসেবে ৩ লাখ ২৫ হাজার ৬০০ কোটি টাকা আদায় করা যাবে বলে সরকারের তরফ থেকে আশা করা হচ্ছে। ফলে এনবিআরের কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা বাড়ছে ১৬ দশমিক ২৮ শতাংশ।

ডিপি/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত
close
close