ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৮:৩৫

প্রিন্ট

অবসরে যাচ্ছেন মাউশি সচিব

অবসরে যাচ্ছেন মাউশি সচিব
জার্নাল ডেস্ক

চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যেই অবসরোত্তর ছুটিতে যাচ্ছেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসাইন। এছাড়া প্রশাসনের আরো ১৪ জন সচিব অবসরে যাচ্ছেন।

জানা গেছে, চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান, সেতু বিভাগের সিনিয়র সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জুয়েনা আজিজ, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মফিজুল ইসলাম, ধর্ম সচিব মো. আনিছুর রহমান, জনপ্রশাসন সচিব ফয়েজ আহম্মদ, খাদ্য সচিব শাহাবুদ্দিন আহমদ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব মো. রইছউল আলম মণ্ডল, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় সচিব মো. কামাল উদ্দিন তালুকদারের স্বাভাবিক অবসরে যাওয়ার কথা রয়েছে।

একই সময়ের মধ্যে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান সচিব রৌনক জাহান, বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান (সচিব) মো. সামছুর রহমান, সরকারি কর্মকমিশনের (পিএসসি) সচিব ওএন সিদ্দিকা খানম, বাংলাদেশ ট্যারিফ কমিশনের চেয়ারম্যান (সচিব) জ্যোতির্ময় দত্ত এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস অবসরে যাবেন।

এসব পদ খালি হলে সেখানে পদোন্নতিযোগ্য কর্মকর্তারাই নিয়োগ পাবেন- এমনটাই আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। তবে ব্যক্তিগত ক্যারিশমার কারণে সরকারের গুডবুকে থাকা কেউ কেউ চুক্তিতে নিয়োগ পেলে অবাক হওয়ার কিছুই থাকবে না।

জানা গেছে, বর্তমানে সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, সংস্থা ও দূতাবাস মিলিয়ে ১৬২ জন কর্মকর্তা চুক্তিতে চাকরি করছেন। তাদের মধ্যে ১৬ জন সচিব রয়েছেন, যারা অবসরে যাওয়ার পরও চুক্তিতে আছেন। এর বাইরেও শতাধিক সরকারি কর্মচারী রয়েছেন চুক্তিভিত্তিক। বর্তমানে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের কোনো নীতিমালা নেই। তবে যোগ্যতা, দক্ষতা ও মেধা বিবেচনায় নিয়ে সরকারের পছন্দের কিছু কর্মকর্তাকে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়ে থাকে। অতীতেও এ ধরনের নিয়োগ হয়েছে।

তবে এ কথাও সত্য যে, চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের ফলে উপরের দিকে পদ ব্লক হয়ে যাচ্ছে। নিচের দিকে থাকা কর্মকর্তারা সুযোগ থাকা সত্ত্বেও কাক্সিক্ষত পদে পদোন্নতি পেয়ে দায়িত্ব নিতে পারছেন না।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত