ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারি ২০১৯, ৫ মাঘ ১৪২৬ অাপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৩:৪১

প্রিন্ট

ঘরে ঘরে শেখ হাসিনার মতো নেত্রী দরকার : বাঁধন

ঘরে ঘরে শেখ হাসিনার মতো নেত্রী দরকার : বাঁধন
আসিফ আলম

আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও নৌকার প্রচারণায় আনুষ্ঠানিকভাবে মাঠে নেমেছেন নানা অঙ্গনের তারকারা। তারমধ্যে আছেন অভিনয় শিল্পী, চিত্রশিল্পী, সংগীত শিল্পী ও বুদ্ধিজীবীরা।

লাক্স তারকা আজমেরি হক বাঁধন। যার অভিনয়ে সবাই মুগ্ধ হতেন। সম্প্রতি একাদশ সংসদ নির্বাচনে প্রচারণায় তাকে মাঠে সক্রিয় দেখা যাচ্ছে। আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচন নিয়ে কি তার ভাবনা? বাংলাদেশ জার্নালের সাথে আসন্ন নির্বাচন নিয়ে তার ভাবনা সহ কথা হলো নানা বিষয়ে।

আসন্ন নির্বাচন নিয়ে আপনার ভাবনা কি জানতে চাইলে এই অভিনেত্রী বলেন, ‘নির্বাচন সব সময় আমার জন্য বেশ গুরুত্বপুর্ণ। সংবিধান মেনেই এবার নির্বাচন হচ্ছে। সব দলের অংশ গ্রহনে নির্বাচন হচ্ছে। পাঁচ বছর পরপর যেহেতু নির্বাচন আসে সে ক্ষেত্রে সাধারণ জনগণ হিসেবে সবারই একটা আশা থাকে যে যারা ক্ষমতায় আসবে তার দ্বারা কতটুকু উন্নয়ন হবে। আমার ক্ষেত্রেও তেমন।’

আমার ভোটটি এবার নৌকায় যাবে উল্লেখ করে এই লাক্স তারকা বলেন,আমি বড় হয়েছি বলেতে গেলে শেখ হাসিনা কে দেখে। দশ বছর কিন্তু অনেক লম্বা সময়। তার শেখ হাসিনা ক্ষমতায় যাবার পর থেকে এখন পর্যন্ত উন্ননয় হয়েছে তা দেখেই আমি বড় হয়েছি। আসলে আমার মনে হয় মানুষ তার মত একজন লিডার চান। তার উন্নয়ন এখন আমাদের সবার সামনে। আমাদের বাংলাদেশে যদি শেখ হাসিনার মত একজন জন্মগ্রহণ করে তাহলে বাংলাদেশকে কেউ আর পিছিয়ে রাখতে পারবে না। এই দশ বছরে আমার চোখের সামনে যে উন্নয়ন তা তো আমি ভূলতে পারবো না। আর তাই আমি এবার শেখ হাসিনার পক্ষেই ভোট চাই।

বাংলাদেশে নারী ক্ষমতায়নের কথা উল্লেখ করে বাঁধন বলেন, নারী ক্ষমতায়নের বিষয়টি আমার জন্য অনেক গুরুত্বপুর্ণ। সেটা আপনারা ভালোভাবেই জানেন। অনেক উন্নয়নের সাথে সাথে যদি আমারা দেশের অর্ধেক জনগোষ্ঠীকে পিছিয়ে রাখি তাহলে দেশের উন্নয়ন সম্ভবনয়। নারী ও শিশু অধিকার আদায় শেখ হাসিনা অনেক অবদান রেখেছেন। আমার বাবা সরকারি কর্মকর্তা ছিলেন সেজন্য আমি মফস্বলে থাকতাম। তখন দেখতাম আমার বাবার যারা কলিগ ছিলেন তারা সবাই পুরুষ। কিন্তু এখন যখন আমি মফস্বলে যাই তখন দেখি একজন এস পি কিংবা ডিসি মহিলা তখন সত্যি ভালোলাগে। আর এই পরিবর্তন এসেছে এই সরকারের আমলে। আমি মনে করি এই সরকার যখন আবার আসবেন তখন নারী ক্ষমতায়ন আরো বেশী করেবন।’

তারকারা এখন সরাসরি নৌকায় ভোট চাচ্ছেন। বিষয়টি অনেকেই ভিন্ন চোখে দেখছেন। বিষয়টি আপনি কিভাবে দেখছেন? এমন প্রশ্নের জবাবে বাঁধান বলেন, অনেকেই হয়তো বলছে সুবিধা নেয়ার জন্য আমি নৌকার জন্য কাজ করছি। কিন্তু আমি বলবো আমারা সমাজের একটি অংশকে রিপ্রেজেন্ট করি। আমারা নিরোপেক্ষ থেকে এমন ভাব করি অন্যায় কে অন্যায় বলবো না আমি এর মাঝে নেই। আমি আমার নিতীগত জায়গায় শক্ত। আমি কিন্তু হুট করে প্রচারণায় আসিনি। অমি বাংলাদেশ ডেন্টাল সোসাইটির নির্বাচিত সদস্য পাশাপ্সহি সাচিবের মেম্বার। আমি এরআগে মেয়র আনিসুল হকের নির্বাচনের সময় উনার স্ত্রী রুবানা হকের সাথে আমি নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়েছি অনেকবার। আমি তখন মিরপুরের বস্তি, গার্মেন্টস সব জায়গায় গিয়েছি। কারন আমার মনে হয়েছে উনি আসলে উন্নয়ন হবে। ’

আমার কাছে নেতাটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে তিনি বলেন,কোন স্কুলের হেড মাস্টার যদি ভালো হয় আর কয়েকটা শিক্ষক যদি খারাপও হয় তাহলে সে কিন্তু তাদের ঠিক করতে পারবে। কিন্তু যদি হেড মাস্টারই যদি করার্প্টেট হয় তাহলে তো আর অন্যদের ভালো করা সম্ভব নায়। সুতারাং লিডার ঠিক হলেই অন্যদের তিনি ঠিক করতে পারবেন।'

প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে বাঁধান বলেন, শেখ হাসিনার হাত ধরেই বহিঃবিশ্বে আজ বাংলাদেশ মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। আমি ব্যক্তিগত ভাবে অনেক চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন। কেননা আমার প্রাক্তন স্বামী আমার বাচ্চা কে এই দেশ থেকে নিয়ে যেতে চেয়ে ছিলো। সে বলে ছিলো এই দেশে বাচ্চার ভবিষ্যত নেই। আমার জন্য আমার দেশ অনেক কিছু তাই আমি চাই দেশের এই উন্নয়ন অন্যহত রাখার জন্য নৌকায় ভোট চাই। আর ঘরে ঘরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্ম হোয়া উচিত তাহলে বাংলাদেশকে আর কেউ পিছিয়ে রাখতে পারবে না। ’

অনেক দিন হলো আপনাকে তেমন কোন কাজে দেখা যাচ্ছে না আবার কবে কাজে ফিরবেন জানতে চাইলে বাঁধন বলেন, আসলে নির্বাচনের প্রচারণার জন্য এখন কাজে তেমন সময় দিতে পারবো না তাই কাজ করছি না। তবে অনেক ভালো কাজের অফার আসছে। নতুন বছর থেকে আবার কাজ শুরু করবো।’

বাংলাদেশ জার্নাল/ এএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত
close
close
close