ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : ১০ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৪:০২

প্রিন্ট

৭৮ পেরিয়ে এটিএম শামসুজ্জামান

৭৮ পেরিয়ে এটিএম শামসুজ্জামান
বিনোদন প্রতিবেদক

ঢাকাই সিনেমার একুশে পদক ও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত বরেণ্য অভিনেতা ও পরিচালক এটিএম শামসুজ্জামান। দীর্ঘদিনের অসুস্থতা কাটিয়ে গেল সপ্তাহে সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন। রাজধানীর দুটি ভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় থেকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে প্রায় চার মাস সময় লেগেছে। বর্তমানে শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে কিছুটা ভালো।

আজ ১০ সেপ্টেম্বর বাংলা চলচ্চিত্রের শক্তিমান এই অভিনেতার জন্মদিন। ৭৮তম জন্মদিনে এই কিংবদন্তি অভিনেতাকে দেখা গেল বেশ হাস্যোজ্জ্বলরূপে। বয়সের ভার আর বার্ধক্যের অসুখ তার মুখের হাসি থামাতে পারেনি। বর্তমানে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় মেয়ের বাসায় সময় কাটছে তার। সেখানেই আজ সকালে কেক কেটে নিজের জন্মদিন পালন করেন এই অভিনেতা।

এটিএম শামসুজ্জামান জানান, এখন আমি সুস্থ আছি। সৃষ্টিকর্তার আশীর্বাদে সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছি। সবার দোয়া ও ভালোবাসার কাছে আমি ঋণী হয়ে গেলাম। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞ। কারণ তিনি সব সময়ই আমার পাশে ছিলেন। শত ব্যস্ততার মধ্যেও তিনি আমার খোঁজ রেখেছেন। সত্যিই তিনি শিল্পী-বান্ধব প্রধানমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, নোয়াখালী জেলার ভোলাকোটে জন্মগ্রহণ করেন এটিএম শামসুজ্জামান। ঢাকায় থাকতেন দেবেন্দ্রনাথ দাস লেনে। লেখাপড়া করেছেন ঢাকার পগোজ স্কুল, কলেজিয়েট স্কুল, রাজশাহীর লোকনাথ হাই স্কুলে। ম্যাট্রিকুলেশন পাশ করেন ময়মনসিংহ সিটি কলেজিয়েট হাই স্কুল থেকে। তারপর জগন্নাথ কলেজ ভর্তি হন।

পাঁচ ভাই ও তিন বোনের মধ্যে এটিএম শামসুজ্জামান সবার বড়। ১৯৬১ সালে পরিচালক উদয়ন চৌধুরীর ‘বিষকন্যা’ চলচ্চিত্রে সহকারি পরিচালক হিসেবে চলচ্চিত্র জীবন শুরু করেন। প্রথম কাহিনী ও চিত্রনাট্য লিখেছেন ‘জলছবি’ চলচ্চিত্রের জন্য। খলনায়ক হিসেবে পর্দায় তার আবির্ভাব হয় ১৯৭৬ সালে, 'নয়নমণি' চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে।

একুশে পদকসহ পাঁচবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন এ অভিনেতা। ১৯৮৭ সালে কাজী হায়াত পরিচালিত ‘দায়ী কে?’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। তিনি রেদওয়ান রনি পরিচালিত ‘চোরাবালি’-তে অভিনয় করেন ও শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব-চরিত্রে অভিনেতা বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। এ পর্যন্ত শতাধিক চিত্রনাট্য ও কাহিনী লিখেছেন তিনি। চলচ্চিত্র জীবনে একটি সিনেমা পরিচালনাও করেছেন তিনি। ‘ইবাদত’ নামের সেই ছবিতে জুটি বেঁধেছিলেন রিয়াজ-শাবনূর।

বাংলাদেশ জার্নাল/ আইএন

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত