ঢাকা, রোববার, ৩১ মে ২০২০, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১৬ মে ২০২০, ১০:১৫

প্রিন্ট

ব্রাজিলে এক মাসের মাথায় দুই স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ

ব্রাজিলে এক মাসের মাথায় দুই স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ

Evaly

অনলাইন ডেস্ক

ব্রাজিলে দায়িত্ব গ্রহণের মাত্র দু সপ্তাহ পর শুক্রবার পদত্যাগ করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী নেলসন টেইক। প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারোর সঙ্গে তীব্র মতবিরোধের জের ধরেই তিনি ওই দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন বলে জানা গেছে। এ নিয়ে করোনা মহামারির মধ্যেই দেশটিতে মাত্র এক মাসের মাথায় দুই স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগের ঘটনা ঘটলো।

কাতারভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল জাজিরা জানাচ্ছে, লকডাউন নিয়ে দেশটির প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বিরোধের জের ধরেই স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন নেলসন টেইক। একই কারণে গত মাসে পদত্যাগ করেন তৎকালীন স্বাস্থ্যমন্ত্রী লুইজ হেনরিক মেন্ডেটা। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেশজুড়ে চলা লকডাউনকে সমর্থন করেন না প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনারো ।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, মহামারী সংক্রমণের চরম অবস্থায় জিম এবং বিউটি পার্লার কোলার খোলার অনুমতি দেন প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনারো। এতে হতাশা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন নেলসন টেইক। তিনি প্রেসিডেন্টের এমন সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা করেন।

এর আগে ব্রাজিলে করোনা রোগীদের জন্য ‘হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন’ওষুধ বড় পরিসরে ব্যবহারে প্রেসিডেন্টের বিরোধিতা করেছিলেন টেইক। সে সময় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সঙ্গে একমত হয়ে তিনি জানিয়েছিলেন, করোনা রোগীর ক্ষেত্রে এ ওষুধের কার্যকর প্রমাণ নেই। সর্বশেষ জিম, বিউটি পার্লার ও সেলুন খুলে দেয়ার বিষয়ে প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনারোর সঙ্গে মতানৈক্য দেখা দেয় ও সম্পর্কে ফাটল ধরে টেইকের।

যে কারণে প্রেসিডেন্ট তাকে ক্ষমতাচ্যুত করার আগেই নিজেই ওই পদ থেকে সরে দাঁড়ান। তবে পদত্যাগের কোনও কারণ জানাননি নেলসন টেইক।

এর আগে গত এপ্রিলে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী লুইজ জনগণকে সামাজিক দূরত্ব অবলম্বন এবং বাড়ির ভেতরে থাকার জন্য অনুরোধ করায় প্রকাশ্যে তার সমালোচনা করেছিলেন প্রেসিডেন্ট বোলসোনারো। সেসময় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কর্মকাণ্ডে অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট। করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে কীভাবে প্রতিক্রিয়া জানানো হবে, তা নিয়েও দুজনে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য দিচ্ছিলেন। এরপরই লুইজকে বরখাস্ত করেন বোলসোনারো।

প্রসঙ্গত, দেশের করোনা পরিস্থিতির বাস্তবতা মানতে রাজি নন প্রেসিডেন্ট বোলসোনারো। দেশটিতে এই মহামারি ছড়িয়ে পড়ার শুরুর দিকে তিনি এ ভাইরাসকে ‘সামান্য ফ্লু’ বলে উড়িয়ে দিয়েছিলেন। বর্তমানে তিনি লকডাউন বিরোধীদের সমর্থন দিয়ে যাচ্ছেন।

কিন্তু ল্যাটিন আমেরিকার দেশগুলোর মধ্যে ব্রাজিলের করোনা পরিস্থিতি সবচেয়ে ভয়াবহ। যে কারণে বিশ্বের করোনা আক্রান্ত দেশগুলোর তালিকায় এর অবস্থান ষষ্ঠতম স্থানে।

ওয়ার্ল্ডোমিটার্সের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ২০ হাজারের বেশি মানুষ। আর করোনায় প্রাণ হারিয়েছে প্রায় ১৫ হাজার মানুষ।

সূত্র: আল জাজিরা

এমএ/

shopno
  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত