ঢাকা, রোববার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭ আপডেট : ২ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ১৮:৫৯

প্রিন্ট

‘কে-টু’ জয়ে ইতিহাস গড়লেন নেপালি পর্বতারোহীরা

‘কে-টু’ জয়ে ইতিহাস গড়লেন নেপালি পর্বতারোহীরা
ছবি সংগৃহীত।

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

শীতকালে চরম প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যে প্রথমবারের মতো বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পর্বত কে টু জয় করেছেন নেপালের ১০ পর্বতারোহীর একটি দল। এর মধ্য দিয়ে এক নতুন রেকর্ড গড়লেন তারা। বিবিসির প্রতিবেদনে এই তথ্য পাওয়া গেছে।

দলটির সদস্য পর্বতারোহী নিমসদাই পূরজা জানায়, শনিবার স্থানীয় সময় বিকাল ৫টায় তারা পর্বতশীর্ষে পৌঁছান।

তাদের মতো সাফল্য পাওয়ার আশায় আরও বহু পর্বতারোহী এখন আট হাজার ৬১১ মিটার (২৮ হাজার ২৫১ ফুট) উচ্চতার এই পবর্তটির বিভিন্ন অংশে আছেন। কিন্তু এদের মধ্যে একজন স্পেনীয় পর্বতারোহী শনিবার বেইস ক্যাম্পে ফিরে আসার সময় পিছলে নিচে পড়ে নিহত হয়েছেন।

বিশ্বের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ এভারেস্ট থেকে মাত্র ২০০ মিটার কম উচ্চতার কে-টু পাকিস্তান-চীন সীমান্তজুড়ে দাঁড়িয়ে থাকা কারাকোরাম পর্বতমালার একটি অংশ।

আট হাজার মিটার থেকে উঁচু মাত্র ১৪টি পর্বতের মধ্যে এটি একটি। বিশ্বের বহু পর্বতারোহী শীতকালে এটি জয় করার বাসনা পোষণ করেন। শীতে সবগুলো পর্বতের মধ্যে এটির চাহিদাই সর্বোচ্চ পর্যায়ে থাকে বলে মনে করা হয়।

দীর্ঘ দিন ধরেই এটি ‘নিষ্ঠুর পর্বত’হিসেবে পরিচিত। ১৯৫৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের পবর্ততারোহী জর্জ বেল এটি জয়ের ব্যর্থ চেষ্টার পর বলেছিলেন, এটি একটি নিষ্ঠুর পবর্ত যা আপনাকে হত্যা করার চেষ্টা করবে।

এই পর্বতের সবচেয়ে বিপজ্জনক অংশগুলোর মধ্যে কুখ্যাত ‘বোটলনেক’ অন্যতম। এটি পর্বতের সংকীর্ণ খাড়া একটি হিমবাহের খাত। ২০০৮ সালে এখানে তুষারধসে ১১ জন পর্বতারোহী মৃত্যু হয়েছিলো।

নেপালি পর্বতারোহীরা প্রথমে চারটি প্রতিযোগী দলের তিনটির মধ্যে ছড়িয়ে ছিলো, ওই দলগুলোতে সবমিলিয়ে ৬০ জন ছিলেন। পরে ওই ১০ নেপালি ঐতিহাসিক এই অর্জন নেপালের হয়ে দাবি করার জন্য নিজেরা মিলে একটি একক দল গঠন করেন।

পর্বতারোহী নির্মল পূরজা একটি ছবি শেয়ার করেছেন, যেখানে দলটিকে পর্বতশীর্ষে তাদের অর্জন উদযাপন করতে দেখা গেছে, যা নিশ্চিত করেছে অভিযানের সংগঠক ‘সেভেন সামিট ট্রেক’।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমএম

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত