ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ৩১ বৈশাখ ১৪২৮ আপডেট : ১৫ মিনিট আগে

প্রকাশ : ১১ এপ্রিল ২০২১, ১১:৫১

প্রিন্ট

গবেষণা

আফ্রিকান ভ্যারিয়েন্টে দুর্বল ফাইজারের টিকা

আফ্রিকান ভ্যারিয়েন্টে দুর্বল ফাইজারের টিকা
ফাইজারের টিকা। ফাইল ছবি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বড় এক হতাশার কথা শুনিয়েছে তেল আবিব ইউনিভার্সিটি ও ইসরায়েলের সর্ববৃহৎ স্বাস্থ্যসেবা সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ক্লালিৎ। তারা নতুন এক গবেষণায় দেখতে পেয়েছেন, করোনাভাইরাসের দক্ষিণ আফ্রিকান ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে ফাইজারের টিকা কম কার্যকর।

গতকাল শনিবার এই গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, ভাইরাসের দক্ষিণ আফ্রিকান ভ্যারিয়েন্ট বি.১.৩৫১ ফাইজার/বায়োএনটেকের টিকার কোডকে ভেঙে ফেলে। ফলে এই টিকা যারা নেননি তাদের তুলনায় যারা টিকা নিয়েছেন তাদের মধ্যে করোনা সংক্রমণের হার আটগুণ বেশি।

এতে আরো বলা হয়েছে, কোভিড রোগী প্রায় ৪০০ জনের ওপর তারা এই গবেষণা চালিয়েছে। এই রোগীরা করোনার টিকার একটি বা দুটি ডোজ নেয়ার ১৪ বা তারও বেশি দিন পর তাদের শারীরিক পরিস্থিতি নিয়ে গবেষকেরা পর্যালোচনা করেন। তাতে প্রাপ্ত ফলাফল আরো ৪০০ জন ব্যক্তির সঙ্গে মেলানো হয়। ওই ৪০০ ব্যক্তি করোনার টিকা নেননি।

তবে যেসব ব্যক্তির ওপর এই গবেষণা চালানো হয়, তাদের মধ্যে শতকরা প্রায় ১ ভাগের শরীরে রয়েছে বি.১.৩৫১ নামের দক্ষিণ আফ্রিকান ভ্যারিয়েন্ট।

সংশ্লিষ্ট গবেষকেরা বলছেন, ফাইজারের তৈরি টিকা প্রকৃত করোনাভাইরাস ও যুক্তরাজ্যে পাওয়া এর ধরনের বিরুদ্ধে অপেক্ষাকৃত বেশি শক্তিশালী। সেই তুলনায় দক্ষিণ আফ্রিকায় পাওয়া করোনার ধরনের বিরুদ্ধে এটি কম কার্যকর বলে দেখা গেছে।

এ বিষয়ে তেল আবিব ইউনিভার্সিটির আদি স্টার্ন বলেন, যারা দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিয়েছেন তাদের মধ্যে অসামঞ্জস্যভাবে উচ্চহারে দক্ষিণ আফ্রিকান ভ্যারিয়েন্ট দেখতে পেয়েছি আমরা। তবে যারা টিকা নেননি, তাদের মধ্যে এই সংক্রমণ হার অনেক কম। এর অর্থ হলো করোনার টিকায় দেয়া নিরাপত্তাকে ভেঙে ফেলতে সক্ষম দক্ষিণ আফ্রিকান ভ্যারিয়েন্ট।

তবে গবেষকেরা এ-ও বলছেন যে, তাদের গবেষণা তুলনামূলক কম সংখ্যক মানুষের ওপর চালানো হয়েছে। কারণ ইসরায়েলে করোনার এই ধরন খুব কম ছড়িয়েছে। এ ব্যাপারে পূর্ণাঙ্গ ও পূর্ণ সিদ্ধান্ত পেতে হলে আরও বেশি তথ্য-উপাত্ত ও অধিকতর গবেষণার প্রয়োজন আছে।

এই নতুন গবেষণায় পাওয়া তথ্যের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি ফাইজার/ বায়োএনটেক। চলতি মাসের এক তারিখে কোম্পানিটি জানিয়েছিল, কোভিড-১৯ প্রতিরোধে তাদের তৈরি টিকা ৯১ শতাংশ কার্যকর।

বাংলাদেশ জার্নাল/ওয়াইএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত