ঢাকা, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৩ বৈশাখ ১৪২৬ অাপডেট : ৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৪ আগস্ট ২০১৭, ০০:০৪

প্রিন্ট

শিক্ষক নিয়োগে ঐতিহ্য হারিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়: প্রধান বিচারপতি

শিক্ষক নিয়োগে ঐতিহ্য হারিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়: প্রধান বিচারপতি
নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটা ঐতিহ্য আছে। বর্তমানে এখানে শিক্ষক নিয়োগে সেই ঐতিহ্য বজায় রাখা হচ্ছে না।

বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক তোফায়েল আহমদের নিয়োগ অবৈধ নিয়ে শুনানিকালে রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেলের উদ্দেশ্যে তিনি এসব কথা বলেন। ঢাবির দর্শন বিভাগের শিক্ষক তোফায়েল আহমেদের নিয়োগ স্থগিত চেয়ে করা আবেদনের শুনানিতে অ্যাটর্নি জেনারেলকে এসব কথা বলেন প্রধান বিচারপতি।

সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেন, বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে যারা প্রথম শ্রেণীতে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় হতেন তাদেরকে শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হতো। কিন্তু এখন আর সেটি হচ্ছে না। এটা অ্যালার্মিং।

শুনানি শেষে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের তিন বিচারপতির বেঞ্চ হাইকোর্টের রায়ই বহাল রাখেন।

গত ২৫ জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) দর্শন বিভাগে প্রভাষক পদে খন্দকার তোফায়েল আহমেদের নিয়োগকে অবৈধ ঘোষণা করে আদেশ দেন হাইকোর্ট। এ ছাড়া ওই শূন্যপদে নিয়োগের জন্য নতুন করে কমিটি গঠন করে নিয়োগ দেয়ার জন্য নির্দেশ দেন আদালত।

সিজিপিএর শর্তপূরণ না করার পরও তোফায়েলকে নিয়োগ দেওয়ায় হা্ইকোর্টে রিট করেন শিক্ষক পদে আরেক আবেদনকারী এইচ এম মিরাজ সৌরভ। এ রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে ৩০ জানুয়ারি নিয়োগের সব শর্তপুরণ না করার পরও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগে শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ায় রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট।

রিটে বলা হয়, গত বছরের ২ জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগে দু'জন প্রভাষক নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। বিজ্ঞপ্তিতে আবেদনকারীদের এসএসসি ও এইচএসসিতে যোগ্যতা চাওয়া হয় সিজিপিএ-৫-এর মধ্যে নূ্যনতম ৪.২৫। নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর দু'জনকে প্রভাষক হিসেবে নিয়োগ দেয় দর্শন বিভাগ। কিন্তু নিয়োগপ্রাপ্ত দু'জনের মধ্যে খন্দকার তোফায়েল আহমেদের সিজিপিএ-৩.১৯। ফলে তিনি এ পদে আবেদন করারই যোগ্য না।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত
close
close